২৩ জানুয়ারি ২০২২, ০৯ মাঘ ১৪২৮, ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩
`
নাগরিক ঐক্যের আলোচনা সভায় অভিমত

কল্যাণ রাষ্ট্র গড়তে প্রাচীন ধারণা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে

-

কল্যাণ রাষ্ট্র গড়তে হলে প্রাচীন ধারণা থেকে বেরিয়ে এসে মানুষের জন্য কল্যাণ ভাবনা থেকে কাজ করতে হবে। শিক্ষার আমূল পরিবর্তন করতে হবে। সবার সুস্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। গতকাল সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে নাগরিক ঐক্য আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। কেমন হবে কল্যাণ রাষ্ট্র বাংলাদেশ? কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার স্লোগান নিয়ে ২০১২ সালে প্রতিষ্ঠিত এবং ২০১৭-তে রাজনৈতিক দল হিসেবে ঘোষিত নাগরিক ঐক্য গতকাল ‘কল্যাণ রাষ্ট্র ভাবনা’ শীর্ষক এই আলোচনা সভার আয়োজন করে। সভায় বক্তারা বাংলাদেশ রাষ্ট্র নিয়ে তাদের ভবিষ্যৎ রূপরেখা তুলে ধরেন।
নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, প্রথম বছরেই দেশের সবচেয়ে দরিদ্র এবং কম সামর্থ্যবান ছয় কোটি মানুষকে মাসে মাথাপিছু এক হাজার টাকা করে দেয়া হবে। পরবর্তী সময়ে এই কর্মসূচির আওতা এবং ক্রমান্বয়ে ভাতার পরিমাণও বাড়ানো হবে। ১০ ভাগ লোক ৯০ ভাগ লোকের অর্থসম্পদ লুটপাট করে খাচ্ছে, এর নাম উন্নয়ন নয়। আমরা সামগ্রিক উন্নয়ন চাই, সেই আলোকে আমরা বাংলাদেশে কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে চাই। নাগরিক ঐক্য ক্ষমতায় গেলে তা করবে। আমরা কাল ক্ষমতায় গেলে পরশুর বাজেটেই এই পরিকল্পনা আনব। দুর্নীতি দূর করে এই বাজেট আমাদের হাতে থাকবে। আমরা তা বাস্তবায়নের দায়িত্ব নেবো।
মূল প্রবন্ধে মান্না বলেন, শিক্ষাব্যবস্থার আমূল সংস্কার করা হবে। শুধু ডিগ্রি দেয়ার শিক্ষা নয়, দেশে/বিদেশে কর্মসংস্থান নিশ্চিত করার শিক্ষা দেয়া হবে। যাচ্ছেতাই পর্যায়ে চলে যাওয়া শিক্ষার মান উন্নয়নকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেয়া হবে। চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের জন্য প্রয়োজনীয় প্রযুক্তি জ্ঞান নিশ্চিতে প্রতিটি শিক্ষার্থীকে এই সংক্রান্ত প্রাথমিক জ্ঞান দেয়া হবে এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে বিশেষায়িত বিভাগ চালু করা হবে।
তিনি বলেন, স্বাস্থ্য বিষয়ে নাগরিক ঐক্যের পদক্ষেপ হবে জনমুখী। দেশের দারিদ্র্যসীমার নিচের সব মানুষের ওষুধসহ সব ধরনের চিকিৎসার দায়িত্ব নেবে রাষ্ট্র। মধ্যবিত্তদের হাসপাতালে ভর্তি হয়ে নেয়া চিকিৎসার পুরো খরচ দেবে রাষ্ট্র। এরপর দ্রুতই পর্যায়ক্রমে সবার জন্য সার্বজনীন স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করা হবে। রাষ্ট্রের আয় তার জনগণের জন্য। এখানে সব মানুষের একটি ন্যূনতম আয় থাকবে। শুরুতে অধিকতর দরিদ্র, আয়হীন, নিম্ন আয়ের ছয় কোটি মানুষজন এটি পেলেও এটির পরিমাণ এক হাজার টাকা থেকে বাড়বে ও আমাদের সক্ষমতার সাথে বাড়বে এবং সবাই তা পাবে। কৃষি নিয়ে মান্না বলেন, কৃষকের কৃষিপণ্যের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করব। ধান, গম, ডাল, আলু প্রভৃতি পর্যায়ক্রমে সরকারি তত্ত্বাবধানে সরাসরি কৃষকদের থেকে ক্রয় করে সারা দেশে সরবরাহ করার মাধ্যমে পণ্যমূল্য নিশ্চিত করা হবে। নগদ টাকার সংস্থানের জন্য কৃষকদের বিশেষ ক্রেডিট কার্ড দেয়া হবে। ভর্তুকি মূল্যে কৃষি সরঞ্জাম দেয়া হবে। প্রাকৃতিক বা অন্য কোনো দুর্যোগে ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হলে কৃষিঋণ মওকুফের ব্যবস্থা করা হবে। এ ছাড়া বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন মান্না। নাগরিক ঐক্যের সদস্য ডা: জাহেদুর রহমানের পরিচালনায় সভায় ব্যারিস্টার আনোয়ার, বেলার প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের নুুরুল আমিন ব্যাপারী, উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের প্রধান রাশেদ আল মাহমুদ তিতুমীর, নাগরিক ঐক্যের শহীদুল্লাহ কায়সার, বীর মুক্তিযোদ্ধা মমিনুল ইসলাম, জিন্নুর চৌধুরী দিপু, মোফাখখারুল ইসলাম নবাব, মাহবুব মুকুল, আনিসুর রহমান খসরু, মঞ্জুর কাদির, আবু তালেন দেওয়ান, বেগ শাহিন জাহান, সোহরাব হোসেন, শাহনাজ রানু, অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম, ফরিদুল ইসলাম, লুতফুন্নাহার মিনু, ফেরদৌসি আক্তার, ইকবাল কবীর, শিউলি আক্তার রুবি, আতিকুল ইসলাম, এস এম এ কবীর হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


আরো সংবাদ


premium cement
বিপিএল মাতাতে গেইল এখন ঢাকায় জাতিসঙ্ঘে ইরানের বকেয়া পরিশোধ করে দিলো দক্ষিণ কোরিয়া ইউক্রেন-রাশিয়া নিয়ে মন্তব্যের জেরে জার্মান নৌবাহিনী প্রধানের পদত্যাগ রাশিয়ার সাথে সীমান্ত উত্তেজনার মধ্যেই ইউক্রেনে পৌঁছল মার্কিন সামরিক সাহায্য বিনা নোটিশেই দখলদারদের উচ্ছেদ করা হবে : মেয়র আতিক রিয়েলিটি শো ‘সাওতুল কোরআনে’ ইয়েস কার্ড পেলো ঢাকার ১৫ কিশোর সরকার বিরোধী দল ও মত শূন্য বাংলাদেশ চায় : রিজভী ২শ শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দিলো জিয়াউল হক মাইজভান্ডারী ট্রাস্ট ট্রান্সজেন্ডার নারীকে যৌন নির্যাতন শৈলকুপায় ট্রাকের ধাক্কায় সেনা সদস্যের মৃত্যু শীতে কাঁপছে দেশ, এরই মধ্যে বৃষ্টির আভাস

সকল