০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ন ১৪২৮, ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি
`

মিটফোর্ড হাসপাতালের আউটসোর্সিং কর্মচারীদের বেতনের অর্ধকোটি টাকা হাওয়া : বেতন বকেয়া চার মাস

-

রাজধানীর স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ ও মিটফোর্ড হাসপাতালের আউটসোর্সিং কমচারীদের বেতন থেকে ৫২ লাখ টাকা কেটে নিয়েছে একটি সিন্ডিকেট। ওই সিন্ডিকেটের মূল হোতা হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও নিয়োগ করা প্রতিষ্ঠান ধলেশ্বর সিকিউরিটি কোম্পানির সুপার ভাইজার ইসমাইল। এদিক গত চার মাস যাবত বেতন বকেয়া রয়েছে। এতে মানবেতর জীবন যাপন করছে ওইসব কর্মচারী। জানা গেছে, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতালে আয়া, ওয়ার্ডবয় ও পরিচ্ছন্নতা কর্মী সঙ্কট দেখা দেয়ায় ২০১৮ সালে সরকার আউট সোর্সিং পদ্ধতিতে ওইসব পদে ২০০ জন নতুন কর্মী নিয়োগ দিতে দোলেশ্বর সিকিউরিটি নামে একটি প্রতিষ্ঠানকে কার্যাদেশ দেয়।
শুরু থেকে প্রতিষ্ঠানটির মালিক পক্ষ ও হাসপাতালের কতিপয় কর্মকর্তা মিলে একটি সিন্ডিকেট গঠন করে অর্থের বিনিময়ে লোকবল নিয়োগ দিতে শুরু করে। প্রতি নিয়োগ প্রত্যাশীর কাছ থেকে এক লাখ থেকে দুই লাখ টাকা পর্যন্ত আদায় করে নেয় চক্রটি। এ প্রক্রিয়াটি পুরো সমন্বয় করেন হাসপাতালটির প্রশাসনিক কর্মকর্তা জাকির হোসেন ও ওই প্রতিষ্ঠানের সুপার ভাইজার ইসমাইল। বিশাল অঙ্কের অর্থ হাতিয়ে নিয়েও চক্রটি থেমে থাকেনি। প্রশাসনিক কর্মকর্তা জাকির হোসেন নিজ রুমে ডেকে নিয়ে কর্মচারীদের বেতন বহিতে স্বাক্ষর করতে বাধ্য করতেন। কোনো কর্মচারী প্রতিবাদ করলেই তাকে ছাঁটাইসহ মাসিক বেতন বন্ধ করে দেয়া হয়। এ যাবত ৩৫ জনকে ছাঁটাই করা হয়েছে।
এদিকে আউটসোর্সিং পদ্ধতিতে নিয়োগ পাওয়া ১৬৫ জন কর্মচারীর মূল বেতন থেকে প্রতিমাসে এক হাজার ৬১০ টাকা করে কেটে নিচ্ছে সিন্ডিকেট। আউটসোর্সিং কমচারীদের মূল বেতন ১৭ হাজার ৬১০ টাকা। কিন্তু তাদের দেয়া হচ্ছে ১৬ হাজার টাকা। ২০১৮ সালের জুলাই থেকে এ পর্যন্ত ১৬৫ জন কর্মচারীর বেতন থেকে ৫২ লাখ টাকার অধিক মেরে দিয়েছে চক্রটি। হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা জাকির ও নিয়োগ করা প্রতিষ্ঠান ধলেশ্বর সিকিউরিটি কোম্পানির সুপার ভাইজার ইসমাইলই এর পেছনের মূল হোতা।
এ ঘটনায় চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে কর্মচারীদের মাঝে। এতে তাদের পরিবার-পরিজন নিয়ে সঙ্গীন অবস্থায় জীবন যাপন কাটছে। আউটসোর্সিং পদ্ধতিতে নিয়োগ পাওয়া প্রায় ২০ থেকে ৩০জন কর্মচারী নাম প্রকাশ না করার শর্তে নয়া দিগন্তকে বলেন, তারা দেশে সর্বোচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়েও দালালের খপ্পরে পড়ে সরকারি চাকরি মনে করে মোটা অঙ্কের টাকা দিয়ে এ হাসপাতালে চাকরি নিয়েছে। কিন্তু এখানেও আবার খোদ কর্মকর্তাসহ একটি চক্রের বেতনের টাকা খেয়ে ফেলছে। কাউকে কিছু বললে উল্টো চাকরি ও মামলার হুমকি দেয়া হচ্ছে। তারা আরো বলেন, হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা স্যার ও ওই কোম্পানির সুপার ভাইজার ইসমাইল লুটেপুটে খাচ্ছে তাদের বেতন। আমরা কিছুই করতে পারছি না। স্বাক্ষর করা চেকের পাতা ছিঁড়ে দিচ্ছি। মোবাইলেও ১৭ হাজার ৬১০ টাকার মেসেজ আসছে। কিন্তু বেতন দিচ্ছে ১৬ হাজার টাকা।
সূত্র জানায়, নিয়োগ করা প্রতিষ্ঠান ধলেশ্বর সিকিউরিটি কোম্পানির সুপার ভাইজার ইসমাইল নিজেকে চতুর্থ শ্রেণী কর্মচারীদের নেতা পরিচয় দেয়। আসলে সে ওই সিকিউরিটি কোম্পানির সুপার ভাইজার। তার বিরুদ্ধে ‘টাকায় মেলে করোনার টিকা’ শিরোনামে নিউজ প্রকাশের পর থেকে তিনি আত্মগোপনে রয়েছেন বলে জানা গেছে। হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা জাকির হোসেনের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের কাছে কিছুই বলতে নারাজ বলে মন্তব্য করেন তিনি।
মিটফোর্ড হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল কাজী মো: রশীদ উন নবী নয়া দিগন্তকে বলেন, আউটসোর্সিং কমচারীদের বেতন থেকে টাকা মেরে দিচ্ছে, এহেন অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। চার মাস বেতন বকেয়ার বিষয়ে বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আউটসোর্সিং কর্মচারীদের নিয়োগ বাতিলের কথা বলছে। ওইসব কর্মচারী ছাড়া আমি হাসপাতাল চালাতে পারব না জানিয়ে দিয়েছি। তাই যেকোনো দিন তারা বকেয়া বেতন পাবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।



আরো সংবাদ


পাহাড়ে সন্ত্রাসী হামলায় একবছরে ১৮ জন নিহত ব্যবসায়ীদের প্রস্তুত হওয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে যশোর জেলা মহিলা দলের মৌন মিছিল ১০ মাসেই চা উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়ালো বাংলাদেশ ‘জরুরি প্রয়োজন ছাড়া দক্ষিণ আফ্রিকা প্রবাসী কেউ দেশে না আসাই ভালো’ গ্রিন ইউনিভার্সিটিতে সশরীরে ক্লাস শুরু কক্সবাজার বিমানবন্দরে গরুর মৃত্যু নিয়ে রহস্য কাটেনি সংক্রমণে ডেল্টাকেও ছাপিয়ে যেতে পারে ওমিক্রন : দক্ষিণ আফ্রিকার বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা গাজীপুরে সাবেক মেয়র সমর্থকদের ওপর হামলা ও ভাঙ্গচুর পঞ্চসারে গুলি ও ককটেল বিষ্ফোরণ ঘটনায় মামলা এইডস রোগীর কী চিকিৎসা আছে বাংলাদেশে?

সকল