২৬ জানুয়ারি ২০২২, ১২ মাঘ ১৪২৮, ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩
`

ওসমানী বেঁচে থাকলে গণতন্ত্রের জন্য একা দাঁড়িয়ে যেতেন: ডা: জাফরুল্লাহ

জাতীয় প্রেস ক্লাবে ভাসানী অনুসারী পরিষদের আলোচনা সভায় অতিথিরা: নয়া দিগন্ত -

মুক্তিযুদ্ধের প্রধান সেনাপতি এম এ জি ওসমানী বেঁচে থাকলে গণতন্ত্রের জন্য রাস্তায় একা দাঁড়িয়ে যেতেন বলে মন্তব্য করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা: জাফরুল্লাহ চৌধুরী।
গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবের আব্দুস সালাম হলে জেনারেল এম এ জি ওসমানীর ১০৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ‘৭১-এর মহান মুক্তিযুদ্ধ ও জেনারেল এম এ জি ওসমানী’ শীর্ষক আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্য তিনি এ কথা বলেন। ভাসানী অনুসারী পরিষদ এ সভার আয়োজন করে। পরিষদের ঢাকা মহানগর সভাপতি হাবিবুর রহমান রিজুর পরিচালনায় সভায় আরো বক্তৃতা করেন, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক মহাসচিব নঈম জাহাঙ্গীর, ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, বীর মুক্তিযোদ্ধা গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক লায়লা পারভীন বানু, মুক্তিযোদ্ধা ডা: নাজিম উদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা ইসতিয়াক আজিজ উলফাত, ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ইকবাল হোসেন ফোরকান, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি মহাসচিব মুক্তিযোদ্ধা মনোয়ারুল ইসলাম প্রমুখ।
জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, যে ব্যক্তি না হলে এখনো হয়তো স্বাধীনতাযুদ্ধ চলতেই থাকত। ওসমানী সাহেবের বুদ্ধি অনেক তীক্ষ্ণ ছিল। সে সময় সামরিক বাহিনীতে ম্যাট্রিক পাস, ইন্টার পাস ছেলেরা যেত। উনি মাস্টার্স দিয়ে যোগ দেন। তিনি ছিলেন গণতন্ত্রের স্বাধীন পুরুষ। আজ যেমন গণতন্ত্র নেই। তিনি বেঁচে থাকলে রাস্তায় একা দাঁড়িয়ে যেতেন। ওনার বড় পার্টি ছিল না, কিন্তু রাস্তায় মাথা উঁচু করে দাঁড়াতেন। ওনার বাড়ি সবার জন্য খোলা ছিল, উনার বেডরুম পর্যন্ত সবাই যেতে পারত। উনি স্বাধীন বাংলাদেশ চেয়েছিলেন। ইসলামাবাদের পরিবর্তে দিল্লির শাসন নয়।
ডা: জাফরুল্লাহ বলেন, বিচারপতিদের অভিনন্দন জানাই, তারা পরীমণিকে মুক্তি দিয়েছেন। সুন্দরী মহিলা বলে নয়; বিভিন্ন কারণে মুক্তি দিয়েছেন। কয়েকজন ছাত্র এখনো মুক্তি পায়নি। আমি-সাকি (জোনায়েদ সাকি) ছাত্রদের সাথে দেখা করার চেষ্টা করেছিলাম। তখন তিনি বলেন (প্রধান বিচারপতি), আমরা নাকি বিচারে হস্তক্ষেপ করতে পারি না। এখন পরীমণি কিভাবে মুক্তি পেল। ছাত্রগুলোকে ও খালেদা জিয়াকে জামিন দিয়ে দেন। খালেদা জিয়া কয় টাকা চুরি করেছেন?
বিএনপিকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, আপনারা শুধুমাত্র প্রেস ক্লাবের মধ্যে থাইকেন না। পথে আসেন। পথে এলে আমরাও আপনাদের সাথে থাকব। আপনাদের সাথে নিয়েই দেশে গণতন্ত্র আনব। কিন্তু আওয়ামী লীগের গণতন্ত্র নয়। জিয়াউর রহমানকে গালি দিলে আপনারা কষ্ট পান। কিন্তু আপনারা তো জিয়াউর রহমানের কথা শোনেন না। বিএনপির গঠনতন্ত্র আপনারা আরেকবার পড়েন।
জোনায়েদ সাকি বলেন, দেশে নির্বাচন আসন্ন। নির্বাচন কমিশন থেকে শুরু করে নির্বাচন সংক্রান্ত গণতন্ত্রের বিষয়টা আবার সামনে চলে আসবে। বিএনপি একটি গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক দল, বড় রাজনৈতিক দল, কাজেই বিএনপিকে এখন জিয়াউর রহমানের কবরে ঢুকিয়ে দিতে হবে। জিয়াউর রহমান গুলি ছুড়েছিলেন কিনা, এইটাই এখন বিএনপির বিষয় হয়ে দাঁড়াবে। এ রকম একটা জটিল পরিস্থিতির মধ্যে আমরা আছি। বিএনপির উদ্দেশে তিনি বলেন, জিয়াউর রহমানের কবর বা উনি গুলি ছুড়েছেন কিনা এ তর্কের মধ্যে প্রবেশ করবেন না। আপনারা সামনের দিকে তাকান। সামনের নির্বাচনে যাতে কেউ ভোট চুরি করতে না পারে তার প্রস্তুতি নেন। সরকারের ষড়যন্ত্রে পা দিয়েন না। ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর বলেন, একজন সেক্টর কমান্ডার ছিলেন জিয়াউর রহমান। তাকে বীর উত্তম উপাধি দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। রাজনৈতিক দুর্বৃত্তরা বলছে, জিয়াউর রহমান নাকি মুক্তিযুদ্ধই করেনি। আবার একদল বঙ্গবন্ধুকে খাটো করে কথা বলছে। এটা কোন ধরনের রাজনীতি। দেশে অসুস্থ রাজনীতি চলছে।


আরো সংবাদ


premium cement
ভারতে লাফিয়ে বাড়ল করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু, ঊর্ধ্বমুখী পজিটিভিটি রেটও ওমিক্রনের ঝুঁকি এখনও অনেক বেশি : ডব্লিওএইচও মার্চ মাসে গার্লস স্কুল খুলে দেয়া হবে : অসলোয় তালেবান পররাষ্ট্রমন্ত্রী দুই বাসের মাঝে পিষ্ট হয়ে কিশোরের মৃত্যু : ২ চালক গ্রেফতার শৈত্যপ্রবাহ আর কুয়াশায় দেবীগঞ্জে জেঁকে বসেছে শীত সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রথম রাষ্ট্রীয় সফরে যাচ্ছেন ইসরাইলের প্রেসিডেন্ট অনশন ভাঙলেন শাবি শিক্ষার্থীরা বাবা হলেন যুবরাজ সিং বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস আরো হ্রাস করলো আইএমএফ বাংলাদেশ-রাশিয়া অংশীদারিত্ব দুই দেশের অভিন্ন স্বার্থ পূরণ করে : সের্গেই লাভরভ কূটনৈতিক সম্পর্কের সুবর্ণজয়ন্তী : রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা পুতিনের

সকল