২৪ জুন ২০২১
`

রাজধানীর ভাটারায় স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা, স্বামী গ্রেফতার

-

পারিবারিক কলহের জেরে রাজধানীর ভাটারা এলাকায় কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে এক গৃহবধূকে হত্যা করা হয়েছে। নিহত গৃহবধূর নাম জোবেদা আক্তার। এ ঘটনায় অভিযুক্ত নিহতের স্বামী আবুল কাসেম মিয়াকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার ভোরের দিকে ভাটারার সোলমাইদ পূর্বপাড়ার আলামিনের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ জোবেদার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।
ভাটারা থানার এসআই সুমন মিয়া বলেন, নিহত জোবেদা মানুষের বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ করেন। তার স্বামী আবুল কাসেম রিকশাচালক। তাদের গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনায়। দুই শিশুসন্তানকে নিয়ে তারা সোলমাইদ এলাকার ওই বাসায় ভাড়া থাকতেন। কিন্তু পারিবারিক কলহের জেরে প্রায় তাদের মধ্যে ঝগড়া হতো। শুক্রবার ভোরের দিকে ঝগড়ার একপর্যায়ে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে স্ত্রী জোবেদাকে হত্যা করে আবুল কাসেম। পরে দুই শিশুসন্তানকে তাদের পাশেই তার (আবুল কাসেম) ভাইয়ের বাসায় রেখে ভাইকে বলে, জোবেদাকে কাজে দিয়ে এসে আবার শিশু দুটিকে নিয়ে যাবে। এরপর পালিয়ে যায় আবুল কাসেম।
এসআই সুমন মিয়া আরো বলেন, স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে জোবেদার লাশ উদ্ধারের পর অভিযান পরিচালনা করে ভাটারা এলাকা থেকেই আবুল কাসেমকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছে। এ ঘটনায় নিহত জোবেদার ভাই গ্রাম থেকে এসে একটি হত্যা মামলা করবেন বলেও জানান এসআই।
ঢাকা মেডিক্যালের বাগান থেকে নবজাতকের লাশ উদ্ধার : গতকাল সকালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বাগানের পাশ থেকে (আনুমানিক ১ দিন) বয়সী এক ছেলে নবজাতকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
ঢাকা মেডিক্যালের পুলিশ ক্যাম্পের পরিদর্শক মো: বাচ্চু মিয়া বলেন, খবর পেয়ে সকালে হাসপাতালে প্রশাসনিক ব্লকে বাগানের পাশ থেকে নবজাতকের লাশটি উদ্ধার করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে কেউ নবজাতকটিকে মৃত অবস্থায় ওখানে ফেলে গেছে। নবজাতকের লাশ হাসপাতালে মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি শাহবাগ থানায় জানানো হয়েছে। তারা তদন্ত করে দেখছে।



আরো সংবাদ