০৮ মে ২০২১
`

জেনোম সিকোয়েন্সিং চালুর নির্দেশনা বিএসএমএমইউ ভিসির

-

কোভিড-১৯এর সঠিক ভ্যারিয়েন্ট নির্ধারণে জেনোম সিকোয়েন্সিং চালুর নির্দেশনা দিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ভিসি অধ্যাপক ডা: মো: শারফুদ্দিন আহমেদ।
গতকাল বৃহস্পতিবার ডা: মিল্টন হলে অনুষ্ঠিত এক সভায় তিনি এই নির্দেশনা দিয়ে বলেন, জেনোম সিকোয়েন্সিং করার ব্যবস্থা কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত রোগীদের সঠিক রোগ নির্ণয় ও যথাযথ চিকিৎসায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। এর মাধ্যমে দেশে কোভিড-১৯ এর সঠিক ভ্যারিয়েন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে এবং এর ভ্যারিয়েন্টের উপসর্গ নির্ণয়, প্রতিকার ও প্রতিরোধের ব্যবস্থা গ্রহণ সহজ হবে।
পরে এই জেনোম সিকোয়েন্সিংয়ের মাধ্যমে লিকুইড এবং সলিড টিউমার (ক্যান্সার) ডায়াগনোসিস কার্যক্রমে ব্যবহার করার নির্দেশনা দিয়ে ভিসি বলেন, এই কার্যক্রম বাস্তবায়ন হলে চিকিৎসার জন্য রোগীদের আর্থিক ব্যয় সাশ্রয় যেমন হবে,একই সাথে সংশ্লিষ্ট রোগীদের বিদেশে চিকিৎসা নেয়ার প্রবণতাও হ্রাস পাবে।
বিএসএমএমইউ সূত্র জানায়,বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে বেশি সংখ্যক রোগীর জেনোম সিকোয়েন্সিং করার সুযোগ আছে, সেজন্য ভবিষ্যতে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ডাটাগুলো বাংলাদেশসহ সমগ্রবিশ্বে রেফারেন্স হিসেবে ব্যবহৃত হবে। শুধু তাই নয়, এই জেনোম সিকোয়েন্সিং বিষয়ে চিকিৎসকরা গবেষণালব্ধ জ্ঞান অজর্নের পাশাপাশি এ বিষয়ে দেশ বিদেশে বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধ প্রকাশনারও সুযোগ পাবেন। সভায় অ্যানাটমি বিভাগের অধ্যাপক ডা: লায়লা আনজুমান বানু জেনোম সিকোয়েন্সিংয়ের বিষয়ে বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যাগুলো উপস্থাপনা করেন। সভায় ফার্মাকোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা: মো: সায়েদুর রহমান, ভাইরোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা: সাইফ উল্লাহ মুন্সী, হেমাটোলজি বিভাগের অধ্যাপক মো: সালাহউদ্দীন শাহ, প্যাথলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা: বিষ্ণু পদ দে তাদের বৈজ্ঞানিক মতামত প্রদান করেন।
এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভিসি (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা: মুহাম্মদ রফিকুল আলম, প্রোভিসি (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা: মো: জাহিদ হোসেন, প্রোভিসি (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা: এ কে এম মোকারোফ হোসেন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা: মোহাম্মদ আতিকুর রহমান প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

 



আরো সংবাদ