১৯ এপ্রিল ২০২১
`

পুলিশ হেফাজতে আইনজীবীর মৃত্যুর বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ

-

পুলিশ হেফাজতে এক শিক্ষানবিস আইনজীবীর মৃত্যুর ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। গতকাল বিচারপতি এম এনায়েতুর রহিম এবং মো: মোস্তাফিজুর রহমানের দ্বৈত বেঞ্চে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের ডিবি হেফাজতে বরিশাল জজ কোর্টের শিক্ষানবিস আইনজীবী রেজাউল করিমের মৃত্যুর ঘটনায় তার বাবা ইউনুস মুন্সির এক আবেদনের শুনানি গ্রহণ করে আদালত এ আদেশ প্রদান করেন। আদালতে তার পক্ষে আবেদনটি শুনানি করেন আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির।
এ বিষয়ে শিশির মনির নয়া দিগন্তকে বলেন, হাইকোর্ট বরিশালের মুখ্য মহানগর হাকিমকে এ ঘটনার তদন্ত করতে নির্দেশ দিয়েছেন। পুলিশের পরিবর্তে এখন বিচারিক তদন্ত হবে। তিনি বলেন, ২০২০ সালের ২৯ ডিসেম্বর রাত ৮টায় রেজাউল করিমকে তিনজন সাদা পোশাকধারী পুলিশ ধরে তার বাবার সামনে শারীরিকভাবে নির্যাতন শুরু করে। এরপর তাকে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যায় তারা। পরদিন তাকে আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়। কোর্ট হাজতে থাকাকালে রেজাউল করিম তার ভাইকে জানান, তাকে সারা রাত এসআই মহিউদ্দিনসহ আরো দুইজন ডিবি পুলিশ রুলার দিয়ে পিটায়। অমানুষিক নির্যাতনে তিনি সেখানেই পায়খানা প্রশ্রাব করে দেন। সারা রাত তাকে কোনো খাবার দেয়া হয়নি। তিনি আরো জানান, বাবা-মাকে দোয়া করতে বলিও, আমি বাঁচব না।
ওই দিন তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। সেখানে তিনি বেশি অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। কারা কর্তৃপক্ষ বিষয়টি তার বাবা ইউনুস মুন্সিকে জানান। তখন পরিবারের সদস্যরা গিয়ে দেখেন যে, আঘাতের কারণে তার শরীর থেকে রক্ত ঝরছে এবং তিনি মৃত্যু যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন। ১ জানুয়ারি ২০২১ তারিখ রাত ১২টায় তিনি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।
ভিক্টিমের বাবা ইউনুস মুন্সি এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা দিতে গেলে কর্তৃপক্ষ মামলা নিতে অস্বীকার করে। তখন তিনি বরিশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু (নিবারণ) আইনে মামলা দায়ের করলে আদালত পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ প্রদান করেন। আদেশের বিরুদ্ধে তিনি বিচার বিভাগীয় তদন্তের প্রার্থনায় হাইকোর্টে আবেদন করেন। আজ শুনানি নিয়ে আবেদন নিষ্পত্তি করে আদালত বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ প্রদান করেন।

 



আরো সংবাদ