২৮ অক্টোবর ২০২০

তৃতীয় দফায় তাফসির আউয়ালকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ

-

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টুর ছেলে ও মাল্টিমোড লিমিটেডের মালিক তাফসির আউয়ালকে তৃতীয়বারের মতো জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল বৃহস্পতিবার দুদকের প্রধান কার্যালয়ে সংস্থাটির পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেনের নেতৃত্বে একটি টিম তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। এর আগে গত ১০ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় দফায় ও গত ৩১ আগস্ট প্রথম দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক।
পারিবারিক বিরোধের বিষয়টি উল্লেখ করে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে গণমাধ্যমকে তাফসির আউয়াল জানিয়েছিলেন, দুদক পারিবারিক বিরোধের বিষয় অবগত নয় বিধায় বারবার ডাকছে। যা যা জানতে চেয়েছে, আমি বলেছি। আমি আসলে রাজনীতি করি না। রাজনীতির সঙ্গেও নাই। তারপরও কেন বারবার তলব করছে, আমি জানি না। এ ব্যাপারে দুদক সচিব মুহাম্মদ দিলোয়ার বখত বলেন, সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে দ্বিতীয় দফায় নথিপত্র নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে তাকে।
দুদকের জিজ্ঞাসাবাদের পর বের হয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তাফসির বলেন, গত ৩১ আগস্ট থেকে গতকাল পর্যন্ত ২৫ দিনে তাকে তিনবার ডাকা হয়েছে। তিনি মনে করেন, তার জবাবে দুদকের সন্তুষ্ট না হওয়ার কিছু নেই। তারা জিজ্ঞেস করেছেন তিনি উত্তর দিয়েছেন। কাগজপত্র দিয়েছেন। ডাকলে আবার আসবেন। তিনি বলেন, আমি তো মনে করি, আমার পারিবারিক ঝামেলার জন্য বারবার ডাকা হচ্ছে। সন্তান থেকে দূরে রাখার জন্য এমনটি করা হচ্ছে। আমি আগেও বলেছি, হয়তো দুদক জানে না, আমার পারিবারিক ঝামেলা চলছে লন্ডনে। লন্ডনের আদালতও আমার ছোট মেয়েটিকে দেখাশোনার জন্য অনুমতি দিয়েছে। আমি মনে করি, আমাকে বারবার এখানে নিয়ে আসা, এখানে রেখে দেয়া ওই কারণে যাতে মেয়েকে দেখতে না পারি। লন্ডন যেতে বাধা দেয়া হচ্ছে কি না জানতে চাইলে তাফসির বলেন, ওই রকম কিছু বলেনি। আবার ডাকলে তো না এসে উপায় নেই।
তাফসির আউয়াল এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে লন্ডন যান। সেখানে থাকা অবস্থায় তার বিরুদ্ধে গত ২০ আগস্ট দুদক তাফসির আউয়ালকে কমিশনের প্রধান কার্যালয়ে হাজির হয়ে বক্তব্য দিতে নোটিশ দেয়। এরপর ৩১ আগস্ট প্রথম তাকে দুদক জিজ্ঞাসাবাদ করে। তারপর আরো দুইবার তাকে ডাকা হয়।
জন্মসূত্রে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক তাফসির পড়াশোনা করেছেন যুক্তরাজ্যে। বর্তমানে তাফসির পারিবারিক ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান মাল্টিমোড লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক।

 


আরো সংবাদ