১০ আগস্ট ২০২০

রংপুরে নকল সুরক্ষাসামগ্রীর রমরমাবাণিজ্য

পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার ১
-
24tkt

করোনা জীবাণু থেকে সুরক্ষাসামগ্রীর আকাশচুম্বী চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে রংপুর মহানগরীতে একটি চক্র নকল সুরক্ষাসামগ্রী তৈরি করে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। এতে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। মঙ্গলবার বিকেলে একটি চাতালের ভেতরে এরকম একটি নকল কারাখানায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ নকল সুরক্ষাসামগ্রী উদ্ধার করে মেট্রোপলিটন গোয়েন্দা পুলিশ। কারখানার মালিককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়।
রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (গোয়েন্দা) উত্তম প্রসাদ পাঠক জানান, করোনার বিপজ্জনক সময়কে কাজে লাগিয়ে নগরীতে একটি চক্র নকল সুরক্ষাসামগ্রী বানিয়ে তা বাজারজাত করে জনগণকে স্বাস্থ্যঝুঁকির মধ্যে ফেলে দিয়েছে। বিষয়টি আমরা গোয়েন্দা নজরদারির মধ্যে নিয়ে এসেছি। এরই নজরদারির অংশ হিসেবে মঙ্গলবার বিকেলে নগরীর খাসপাগা বালাপাড়া এলাকায় প্রণয় বণিকের চাতালে অভিযান চালানো হয়। এ সময় সেখান থেকে নকল ১৬ কার্টন ভিক্সল, মেডিকেটেড প্রিমিয়াম ভিনাইল ১০ কার্টন, হারটিক্স, প্লাস্টিকের ড্রাম, জারকিন, বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যাল উদ্ধার করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য তিন লাখ টাকা।
রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (গোয়েন্দা) আবু মারুফ হোসেন জানান, ঢাকায় একটি কেমিক্যাল কোম্পানিতে কর্মরত ইকবাল হোসেন ওই চাতালের বাড়িভাড়া নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন কোম্পানির মোড়ক লাগিয়ে বিএসটিআইয়ের অনুমোদন ছাড়াই নিজেই তৈরি করে তা বাজারজাত করত, যা করোনাকালীন সময়ে বিশাল স্বাস্থ্যঝুঁকি। এ ছাড়াও ওই চাতালটি ছিল সুরক্ষিত। সেখানে নিরাপদ ভেবে এই নকল কারখানাটি বসানো হয়েছিল। বিভিন্ন বড় বড় কোম্পানির নামে নকল সুরক্ষাসামগ্রী প্রস্তুত করে গ্রাহকদের প্রতারণা করা হচ্ছিল। তিনি জানান, ইকবাল হোসেনকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ১৫ দিনের কারাদণ্ড এবং ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আদালতের আদেশে তার কারখানা থেকে উদ্ধারকৃত মালামাল পুড়িয়ে ধ্বংস করা হবে।


আরো সংবাদ