১২ জুলাই ২০২০

দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেবো না : ব্যারিস্টার তাপস

-

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন, করপোরেশনের রন্ধ্রে রন্ধ্রে দুর্নীতি রয়েছে। এই দুর্নীতিকে আমি প্রশ্রয় দেবো না এবং দুর্নীতির লেশমাত্র এই সংস্থায় রাখব না।
গতকাল নগর ভবনের মেয়র মোহাম্মদ হানিফ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত প্রথম করপোরেশন সভায় তিনি এ কথা বলেন। সভায় ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলররা অংশ নেন।
সভায় শেখ ফজলে নূর তাপস ঢাকাবাসীর কাছে দেয়া ওয়াদা পূরণে করপোরেশনের কাউন্সিলররাই তার পথচলার প্রধান সঙ্গী হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, আজ থেকে আমাদের নব যাত্রা শুরু হলো। শুরু হলো নব সূচনা। ঢাকাবাসীর কল্যাণে দেয়া ওয়াদা পূরণের লক্ষ্যে আমরা কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করছি। ইনশা আল্লাহ আমাদের কার্যক্রমের মাধ্যমেই ঢাকাবাসী এর প্রতিফলন দেখতে পাবেন।
তিনি আরো বলেন, এখন থেকে করপোরেশনের সব কাজে কাউন্সিলরদের সম্পৃক্ত করা হবে এবং ঢাকাবাসীর কল্যাণে যা কিছু করা হবে, যেসব সিদ্ধান্ত নেয়া হবে তা তাদের নিয়েই করা হবে এবং তার বাস্তবায়ন করা হবে।
তিনি কাউন্সিলরদের উদ্দেশে বলেন, আজ থেকে করপোরেশনের দরজা আপনাদের জন্য খোলা। আপনারা সরাসরি আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন। সভায় মেয়র মশক নিয়ন্ত্রণ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, যানজট, জলাবদ্ধতা নিরসন, রাস্তাঘাট উন্নয়ন ও অবৈধ দখলমুক্তকরণ ইত্যাদি কাজে কাউন্সিলরদের সক্রিয় সহায়তা কামনা করেন। উন্নয়নকাজে কাউন্সিলরদের সম্পৃক্ত করা এবং তাদের সরাসরি সম্পৃক্ততার ব্যাপারে বেশ কিছু বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে মেয়র বলেন, এখন থেকে প্রতি মাসের প্রথম সপ্তাহে বোর্ড মিটিং অনুষ্ঠিত হবে এবং কাউন্সিলররা সপ্তাহে এক দিন সমস্যা নিরসনে তার সাথে আলাপ করতে পারবেন; এ জন্য সপ্তাহের একটি দিন ধার্য করে দেবেন বলেও কাউন্সিলরদের আশ্বস্ত করেন।
নবনির্বাচিত কাউন্সিলররা মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান এবং তাদের প্রত্যাশামাফিক বিভিন্ন সমস্যা নিরসনে মেয়র আশ্বাস দেয়ায় কাউন্সিলররা মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসকে অসংখ্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।
বোর্ড সভায় অর্থ ও সংস্থাপনবিষয়ক স্থায়ী কমিটি গঠন করা হয়। এ কমিটিকে নির্দিষ্ট দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি কোনো কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুর্নীতিবিষয়ক বা দায়িত্ব পালনে কোনো গাফিলতির অভিযোগ পেলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ প্রদানের অনুরোধ করেন মেয়র। কমিটির সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে তাৎক্ষণিক কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে কর্মকর্তাদের প্রতি তিনি পুনরায় হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।
মেয়র ঢাকাবাসীর সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধিকল্পে যৌক্তিকভাবে নতুন নতুন আয়ের খাত সৃষ্টি করার ঘোষণা দেন। তবে নাগরিকদের ওপর কোনো কর বৃদ্ধি হবে না বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

 


আরো সংবাদ