০৯ এপ্রিল ২০২০

সাক্ষাৎকারে খন্দকার মাহবুব হোসেন আইসিজের রায় ও কূটনৈতিক প্রক্রিয়ায় অগ্রসর হলে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধান সম্ভব

-

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান প্রবীণ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেছেন, রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা দেয়ার জন্য মিয়ানমারকে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণের আদেশ দিয়ে নেদারল্যান্ডসের দ্য হেগের আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতের (আইসিজে) রায় রোহিঙ্গাদের ওপর যে গণহত্যা সংগঠিত হয়েছিল তার স্বীকৃতি পেয়েছে। এই আইনবিদ মনে করেন, বাংলাদেশ এখন একটি রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক পথে অগ্রসর হওয়ার একটি হাতিয়ার পেয়েছে। যার ফলে বাংলাদেশ যদি বলিষ্ঠ পররাষ্ট্রনীতি গ্রহণ করতে পারে তা হলে এই রোহিঙ্গা সমস্যা হতে মুক্তি পাবে।
রোহিঙ্গাদের গণহত্যা ও মিয়ানমার সেনাবাহিনীর মানবতাবিরোধী অপরাধ সংগঠনের বিরুদ্ধে নেদারল্যান্ডসের আন্তর্জাতিক আদালতের রায় প্রসঙ্গে প্রবীণ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন সুপ্রিম কোর্ট বার ভবনের কার্যালয়ে নয়া দিগন্তকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে বলেন, এই রায় শুধুমাত্র রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা ও মানবতাবিরোধী অপরাধ করা হয়েছে তা থেকে স্বীকৃতি পাওয়ার একটা পথ আন্তর্জাতিকভাবে বের হবে। এ রায়ের ফলে বলিষ্ঠ পররাষ্ট্রনীতির মাধ্যমে সমঝোতার ভিত্তিতে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধান করার পথ প্রশস্ত হয়েছে।
নয়া দিগন্ত : মিয়ানমারে রাখাইনে রোহিঙ্গাদের গণহত্যা ও তাদের বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেয়ার কারণে নির্যাতিত এই জনগোষ্ঠীর বেশির ভাগই এখন বাংলাদেশে। প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা জীবন বাঁচাতে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন, যা বাংলাদেশের মতো একটি গরিব দেশের জন্য বড় ধরনের চাপ। আন্তর্জাতিক আদালতের এই রায়ের ফলে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের কোনো পথ দেখছেন কি?
খন্দকার মাহবুব হোসেন : ওআইসি সদস্যভুক্ত সব রাষ্ট্রের পক্ষে গাম্বিয়া ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিস বা আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনালে রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমার শুধু ধর্মীয় বিবেচনায় যে মানবতাবিরোধী অপরাধ সংগঠনের অভিযোগ করেছে; তারই স্বীকৃতি আন্তর্জাতিক আদালতে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের জন্য মিয়ানমারের ওপর একটি অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ দিয়েছে। এবং তিন মাসের মধ্যে আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনালের আইন অনুযায়ী কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়েছে।
খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যার ব্যাপারে আন্তর্জাতিক আদালতের এই রায় আন্তর্জাতিকভাবে রোহিঙ্গাদের ওপর যে মানবতাবিরোধী অপরাধ করা হয়েছে তারই একটা স্বীকৃতি বিশ্বব্যাপী রোহিঙ্গা সমস্যা সম্পর্কে যে দ্বিধাদ্বন্দ্ব ছিল আমি মনে করি এই রায় তা দূর করবে এবং বিশ্বের সব রাষ্ট্র যারা রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের ব্যাপারে দ্বিধাদ্বন্দ্বের মধ্যে ছিল তারাও আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনালের এই রায়ে ফলে তাদের বলিষ্ট ভূমিকা রাখবে।
খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিসের (আইসিজে) আদেশে এক দিকে রোহিঙ্গাদের বঞ্চনার জীবনের অবসানের পথ খুলতে পারে। অন্য দিকে এ রায়ের ফলে বাংলাদেশ যদি বলিষ্ঠ পররাষ্ট্রনীতি গ্রহণ করতে পারে তা হলে বাংলাদেশ এই রোহিঙ্গা সমস্যা হতে মুক্তি পাবে।
গত ২৩ জানুয়ারি রোহিঙ্গাদের সুরক্ষায় মিয়ানমারের বিরুদ্ধে অন্তর্বর্তীকালীন জরুরি পদক্ষেপ নেয়ার যে আবেদন গাম্বিয়া করেছিল, তা যুক্তিযুক্ত বলে মনে করে রায় দেন ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিস। আন্তর্জাতিক আদালতের সর্বসম্মত সিদ্ধান্তে মিয়ানমারকে যে চারটি নির্দেশনা দেয়া হয়েছে সেগুলো হলোÑ
১. রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর সদস্যদের হত্যা বা হত্যার চেষ্টা, তাদের শারীরিক বা মানসিক ক্ষতি করার চেষ্টা, তাদের জীবনযাপনকে ক্ষতিগ্রস্ত করে এমন কোনো পদক্ষেপ কিংবা ওই জনগোষ্ঠীর জন্মহার কমানোর যে কোনো ধরনের চেষ্টা বন্ধের জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা মিয়ানমারকে অবশ্যই নিতে হবে।
২. মিয়ানমারের সেনাবাহিনী বা কোনো সশস্ত্র গ্রুপ যেন এমন কোনো কর্মকাণ্ড না ঘটায় যা গণহত্যা বা গণহত্যার ষড়যন্ত্রের অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হতে পারে।
৩. গণহত্যার অভিযোগের সাথে সংশ্লিষ্ট কোনো আলামত ধ্বংস করা যাবে না, বরং সেগুলো যাতে যথাযথভাবে সংরক্ষণ করা হয়, তা মিয়ানমারকে নিশ্চিত করতে হবে।
৪. এই আদেশের ভিত্তিতে মিয়ানমার কী কী পদক্ষেপ নিয়েছে সে বিষয়ে এই আদেশ হওয়ার চার মাসের মধ্যে আইসিজেতে প্রতিবেদন দিতে হবে। তারপর আদালতের চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে আসার আগ পর্যন্ত প্রতি ছয় মাস পরপর অগ্রগতি প্রতিবেদন দিতে হবে। কলামে

 


আরো সংবাদ

সেই প্রিয়া সাহা করোনায় আক্রান্ত! (৫০৮৩৩)নিজ এলাকায় ত্রাণ দিয়ে ঢাকায় ফিরে করোনায় মৃত্যু, আতঙ্কে স্থানীয়রা (৪৪৬১১)বেওয়ারিশের মতো সারা রাত সঙ্গীতশিল্পীর লাশ পড়েছিল রাস্তায় (২৬৭২১)দীর্ঘদিন জেলখাটা আসামিদের মুক্তির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর (২০২৫৬)করোনা ছড়ানোয় চীনকে যে ভয়ঙ্কর শাস্তি দেয়ার দাবি উঠল জাতিসংঘে (১৬৩৮৯)কাশ্মিরে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে নিহত ভারতীয় দুর্ধর্ষ কমান্ডো দলের সব সদস্য (১৫৫২৩)রোজার ঈদের ছুটি পর্যন্ত বন্ধ হচ্ছে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান (১৩০৭৯)করোনার লক্ষণ নিয়ে নিজের বাড়িতে মরে পড়ে আছে ব্যবসায়ী, এগিয়ে আসছে না কেউ (১২৮০৫)ঢাকায় নতুন করে ৯টি এলাকা লকডাউন (১০৬৪৩)সবচেয়ে ভয়াবহ দিন আজ : মৃত্যু ৫, আক্রান্ত ৪১ (১০০৬১)