২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

তাহিরপুরে শিশু তোফাজ্জল হত্যায় রিমান্ড শেষে ৭ জন জেলহাজতে

-

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে আলোচিত সাত বছরের শিশু তোফাজ্জল অপহরণ ও হত্যা মামলার সাত আসামিকে রিমান্ড শেষে গত বৃহস্পতিবার জেলহাজতে পাঠিয়েছে আদালত। নিহত তোফাজ্জল তাহিরপুর উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী বাঁশতলা গ্রামের মাদরাসাছাত্র ও জুবায়েল হোসেনের ছেলে।
গত ৮ জানুয়ারি বিকেলে থেকে নিখোঁজ ছিল তোফাজ্জল। ১১ জানুয়ারি ভোররাতে তার লাশ চোখ উপড়ানো ও পা ভাঙা অবস্থায় হাবিবুর রহমান হবি মিয়ার ছেলে রাসেলের বাড়ির পাশে সিমেন্টের বস্তার মধ্য থেকে উদ্ধার করা হয়। পরে নিহতের পিতা বাদি হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করে তাহিরপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে সাতজনকে আটক করে পুলিশ। আটকরা হলোÑ রাসেল মিয়া, শিউলি বেগম, ফুফা সেজাউল কবির, তার বাবা কালা মিয়া, হাবিবুর রহমান হবি মিয়া, চাচা সালমান মিয়া ও লোকমান মিয়া।
তাহিরপুর থানার ওসি আতিকুর রহমান জানান, এই হত্যাকাণ্ডের সাথে রাসেল নিজে জড়িত বলে গত মঙ্গলবার বিকেলে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শুভদীপ পালের আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে। রাসেল মিয়া উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের বাঁশতলা গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে। ওই দিন বিকেলেই পুলিশ রাসেলের ঘরের ওয়্যারড্রোব থেকে একটি রক্তভেজা লুঙ্গি, একটি চিঠির অংশ, দু’টি বালিশের কভার উদ্ধার করে।
তোফাজ্জলকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে জানায় পুলিশ। পরে লাশের চোখ উপড়ে ফেলা ও পা ভেঙে সিমেন্টের বস্তায় ভরে রাসেলের বাড়ির পাশে ফেলে রাখা হয়।

 


আরো সংবাদ