২১ সেপ্টেম্বর ২০২০

৩০ শতাংশ মহার্ঘ্য ভাতা দাবি তৃতীয় শ্রেণীর কর্মচারীদের

-

মূল বেতনের ৩০ শতাংশ মহার্ঘ্য ভাতা ও চিকিৎসা ভাতা তিন হাজার টাকায় উন্নীত করার দাবি জানিয়েছেন তৃতীয় শ্রেণী সরকারি কর্মচারী সমিতি। গতকাল শুক্রবার রাজধানীর তেজগাঁও ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদফতরে বাংলাদেশ তৃতীয় শ্রেণী সরকারি কর্মচারী সমিতির ২০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানে তারা এ দাবি জানান।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, সর্বশেষ ২০১৫-তে জাতীয় বেতন স্কেল প্রদানের পর ইতোমধ্যে প্রায় ৩২ শতাংশ মুদ্রাস্ফীতি ও গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানিসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রবাদির মূল্য অধিক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। ওষুধের দাম বৃদ্ধি ও চিকিৎসা ব্যয় বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকারি কর্মচারীরা অর্থ কষ্টে জীবন যাপন করছেন। তাই মূল বেতনের ৩০ শতাংশ মহার্ঘ্য ভাতা ও চিকিৎসা ভাতা তিন হাজার টাকায় উন্নীতের জোর দাবি জানান। বক্তারা বলেন, প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীদের মধ্যে সৃষ্ট বৈষম্য নিরসনকল্পে বাংলাদেশ সচিবালয়ের ন্যায় সচিবালয় বহির্ভূত দফতর, প্রতিষ্ঠান, বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসকের দফতরে কর্মরত প্রধান সহকারী, উচ্চমান সহকারী, স্টেনোগ্রাফার, কম্পিউটার অপারেটরসহ সমমানের সমমর্যাদার কর্মচারীদের পদবি প্রশাসনিক কর্মকর্তা, ব্যক্তিগত কর্মকর্তা ও বেতন স্কেল প্রদানসহ প্রযোজ্য ক্ষেত্রে স্বপদে দ্বিতীয় শ্রেণীর পদমর্যাদা ও বেতন স্কেল প্রদান করতে হবে।
ডিপ্লোমা নার্সদের ন্যায় সমশিক্ষাগত যোগ্যতাসম্পন্ন ডিপ্লোমা হেলথ টেকনোলজিস্ট ও ফার্মাসিস্টদের দ্বিতীয় শ্রেণীর পদমর্যাদা প্রদানসহ বেতন স্কেল প্রদানেরও জোর দাবি জানানো হয়।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মো: মাহফুজুর রহমান। প্রধান অতিথি ছিলেন সমিতির উপদেষ্টা হারুন উর রশিদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা শাহ্ মো: শফিউল হক। বক্তব্য রাখেন সমিতির মহাসচিব লুৎফর রহমান, কার্যকরী সভাপতি নাজমা আক্তার, মো: সালজার রহমান, সহ-সভাপতি আবদুল মান্নান হাজারী, মুস্তাফিজুর রহমান, সাংগঠনিক সচিব রফিকুল ইসলাম মামুন প্রমুখ।

 


আরো সংবাদ