২৮ জুলাই ২০২১
`

কানের অফিসিয়াল সিলেকশনে বাংলাদেশ, আছে আরো যেসব ছবি

কানের অফিসিয়াল সিলেকশনে বাংলাদেশ, আছে আরো যেসব ছবি - ছবি : সংগৃহীত

চলচ্চিত্র দুনিয়ার গুরুত্বপূর্ণ আয়োজন কান উৎসবের অফিসিয়াল সিলেকশন ঘোষণা করা হলো। কম্পিটিশন, আঁ সার্তে রিগার, আউট অব কম্পিটিশন, মিডনাইট স্ক্রিনিংস, কান প্রিমিয়ার ও স্পেশাল স্ক্রিনিংস বিভাগে জায়গা করে নিয়েছে বিভিন্ন দেশের ছবি। এর মধ্যে আছে বাংলাদেশ

কানের অফিসিয়াল সিলেকশনে সাধারণত কয়েকটি শাখা থাকে। এর মধ্যে আঁ সার্তে রিগারে স্থান পেয়েছে আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ পরিচালিত ‘রেহানা মরিয়ম নূর’। এতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন আজমেরী হক বাঁধন। বাংলাদেশের কোনো ছবি কানের অফিসিয়াল সিরেকশনে জায়গা পাওয়ার ঘটনা এটাই প্রথম।

ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে বৃহস্পতিবার (৩ জুন) সকাল ১১টায় ( বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টা) অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচিত ছবিগুলোর নাম ঘোষণা করেন কানের পরিচারক থিয়েরি ফ্রেমো। তার পাশে ছিলেন উৎসবের সভাপতি পিয়ের লেসকিউর।

কানের সর্বোচ্চ পুরস্কার স্বর্ণ পামের (পাম দ’র) জন্য প্রতিযোগিতা বিভাগে নির্বাচিত হয়েছে ২৪টি ছবি। আগামী ১৭ জুলাই সমাপনী আয়োজনে স্বর্ণ পাম বিজয়ী ছবির নাম ঘোষণা করবেন প্রতিযোগিতা বিভাগের বিচারকদের প্রধান আমেরিকান নির্মাতা স্পাইক লি।

দক্ষিণ ফ্রান্সের সাগর পারের শহর কানের পালে দে ফেস্টিভাল ভবনে আগামী ৬ জুলাই উৎসবটির ৭৪তম আসরের পর্দা উঠবে। উদ্বোধনী ছবি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে ফরাসি নির্মাতা লিও ক্যারাক্সের ‘অ্যানেট’। এতে অভিনয় করেছেন অ্যাডাম ড্রাইভার ও মরিয়ন কঁতিয়ার।


প্রতিযোগিতা বিভাগ
অ্যানেট (লিও ক্যারাক্স, ফ্রান্স; উদ্বোধনী ছবি)

দ্য স্টোরি অব মাই ওয়াইফ (ইলদিকো এনিয়েদি, হাঙ্গেরি)

বেনেডেট্টা (পল ভারহোভেন, নেদারল্যান্ডস)

বার্গম্যান আইল্যান্ড (মিয়া হারসেন-লাভ, ফ্রান্স)

ড্রাইভ মাই কার (রিয়ুসুকে হামাগুচি, জাপান)

ফ্ল্যাগ ডে (শন পেন, যুক্তরাষ্ট্র)

ক্যাসাব্ল্যাঙ্কা বিটস (নাবিল আয়ুশ, মরক্কো)

কম্পার্টমেন্ট নম্বর সিক্স (ইওহো কুয়োসমান, ফিনল্যান্ড)

দ্য ওর্স্ট পারসন ইন দ্য ওয়ার্ল্ড (ইওয়াকিম ট্রিয়ার, নরওয়ে)

লা ফ্র্যাকচার (ক্যাথেরিন করসিনি, ফ্রান্স)

দ্য রেস্টলেস (জোয়াকিম লাফোস, বেলজিয়াম)

প্যারিস থার্টিন্থ ডিস্ট্রিক্ট (জ্যাক অদিয়ার, ফ্রান্স)

লিঙ্গুই (মাহামাত সালাহ হারুন, চাদ)

মেমোরিয়া (অ্যাপিচ্যাটপঙ বীরাসেতাকুল, থাইল্যান্ড)

নিট্রাম (জাস্টিন কারজেল, অস্ট্রেলিয়া)

ফ্রান্স (ব্রুনো দুমো, ফ্রান্স)

পেত্রোভ’স ফ্লু (কিরিল সেরেব্রেনিকোভ, রাশিয়া)

রেড রকেট (শন বেকার, যুক্তরাষ্ট্র)
দ্য ফ্রেঞ্চ ডিসপাচ (ওয়েস অ্যান্ডারসন, যুক্তরাষ্ট্র)

টাইটেনিয়াম (জুলিয়া দুকুরনো, ফ্রান্স)

থ্রি ফ্লোরস (ন্যানি মরেত্তি, ইতালি)

এভরিথিং ওয়েন্ট ওয়েল (ফ্রাঁসোয়া ওজো, ফ্রান্স)

অ্যা হিরোস (আসগর ফারহাদি, ইরান)

আঁ সার্তে রিগার
রেহানা মরিয়ম নূর (আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ, বাংলাদেশ)

মানিবয়েস (সি.বি ই, প্রথম ছবি; অস্ট্রিয়া)

ব্লু বায়ো (জাস্টিন চন, যুক্তরাষ্ট্র)

ফ্রেডা (জেসিকা জেনেয়ুস, প্রথম ছবি; হাইতি)

দেলো-হাউস অ্যারেস্ট (আলেক্সেই জার্মান জুনিয়র, রাশিয়া)

গুড মাদার (আফসিয়া আর্জি, ফ্রান্স)

ফায়ার নাইট (তাতিয়ানা হয়েসো, মেক্সিকো)

ল্যাম্ব (ভালদিমার ইওহানসন, প্রথম ছবি; আইসল্যান্ড)

কমিটমেন্ট হাসান (হাসান সেমি কাপলানোলু, তুরস্ক)

আফটার ইয়েং (কোগোনাডা, যুক্তরাষ্ট্র)

লেট দেয়ার বি মর্নিং (এরান কোলিরিন, ইসরায়েল)

আনক্লেনসিং দ্য ফিস্টস (কিরা কোভালেনকা, রাশিয়া)

উইমেন ডু ক্রাই (মিনা মিলেভা ও ভ্যাসেল কাজাকোভা, বুলগেরিয়া)

গ্রেট ফ্রিডম (সেবাস্টিয়ান মায়েস, অস্ট্রিয়া)

লা সিভিল (তেওদোরা আনা মিহাই, প্রথম ছবি; রোমানিয়া/বেলজিয়াম)

গাই ওয়ার (না জিয়াজো, প্রথম ছবি; চীন)

দ্য ইনোসেন্টস (এসকিল ফুক্ট, নরওয়ে)

অ্যা ওয়ার্ল্ড (লরা বন্দেল, প্রথম ছবি; বেলজিয়াম)

আউট অব কম্পিটিশন
ইন হিজ লাইফটাইম (ইমানুয়েল ব্যারকো, ফ্রান্স)

ইমার্জেন্সি ডিক্লারেশন (হান জে-রিম, কোরিয়া)

দ্য ভেলভেট আন্ডারগ্রাউন্ড (টড হেইন্স, যুক্তরাষ্ট্র)

নর্থ বিন (সেদ্রিক হিমেনেজ, ফ্রান্স)

অ্যালিন, দ্য ভয়েস অব লাভ (ভ্যালেরি লুমেরসিয়ার, ফ্রান্স)

স্টিলওয়াটার (টম ম্যাককার্থি, যুক্তরাষ্ট্র)

ব্লাডি অরেঞ্জেস

মিডনাইট স্ক্রিনিংস

ব্লাডি অরেঞ্জেস (জ্যঁ-ক্রিস্তফ-মেরিস, ফ্রান্স)

কান প্রিমিয়ার
হোল্ড মি টাইট (ম্যাথু আমালরিক, ফ্রান্স)

কাউ (আন্ড্রোয়া আর্নল্ড, যুক্তরাজ্য)

লাভ সংস ফর টাফ গাইস (স্যামুয়েল বেনশেত্রিত, ফ্রান্স)

ডিসিপশন (আরনো দেপ্লেশাঁ, ফ্রান্স)

জেন বাই শার্লোট (শার্লোট গান্সবুর্গ, প্রথম ছবি; ফ্রান্স)

ইন ফ্রন্ট অব ইউর ফেস (হঙ সাঙ সু, কোরিয়া)

মাদারিং সানডে (ইভা উসো, ফ্রান্স)

ইভোল্যুশন (কর্নেল মুনদ্রুচকো, হাঙ্গেরি)

ভ্যাল (টিঙ পু এবং লিও স্কট, যুক্তরাষ্ট্র)

জেএফকে রিভিজিটেড: থ্রু দ্য লুকিং গ্লাস (অলিভার স্টোন, যুক্তরাষ্ট্র)

লাভ সংস ফর টাফ গাইস

স্পেশাল স্ক্রিনিং

ম্যারিনার অব দ্য মাউন্টেনস (করিম আইনোস, ব্রাজিল)

ব্ল্যাক নোটবুকস (শোমি আলকাবেৎজ, ইসরায়েল)

বাবি ইয়ার. কনটেক্সট (সের্গেই লজনিৎসা, ইউক্রেন)

এইচসিক্স (ইয়ে ইয়ে, প্রথম ছবি; ফ্রান্স)

দ্য ইয়ার অব দ্য এভারলাস্টিং স্টর্ম (জাফর পানাহি-ইরান, অ্যান্থনি চেন-সিঙ্গাপুর, মালিক ভিথাল-যুক্তরাষ্ট্র, লরা পয়েট্রাস-যুক্তরাষ্ট্র, ডমিঙ্গা সোটোমাইয়র-চিলি, ডেভিড লাওয়ারি-যুক্তরাষ্ট্র, অ্যাপিচ্যাটপঙ বীরাসেতাকুল-থাইল্যান্ড)



আরো সংবাদ