২৭ নভেম্বর ২০২০

শাহরুখ খান ও সানি দেওলের ২৭ বছরের দ্বন্দ্ব মিটল যেভাবে

শাহরুখ খান ও সানি দেওলের ২৭ বছরের দ্বন্দ্ব মিটল যেভাবে - ছবি : সংগৃহীত

শাহরুখ খান ও সানি দেওল প্রথমবার একসাথে কাজ করেছিলেন ১৯৯৩ সালে। ছবির নাম ছিল ‘ডর’। বলিউড বাদশা ছবিতে খল চরিত্রে অভিনয় করলেও নিজেকে গেম চেঞ্জার হিসেবে প্রমান করে ছিলেন। দুর্ভাগ্যবশত, সব মহলে শাহরুখের অভিনয় প্রশংসিত হলেও ছোট্ট একটি ঘটনার কারণে সানি দেওল ছিলেন নিরব এবং ২৭ বছর তারা একে অপরের সাথে কথা বলেননি।

তবে সাম্প্রতিক কার্যক্রমে মনে হচ্ছে তাদের দুজনের দীর্ঘদিনের দ্বন্দ্ব মিটে যাচ্ছে। বলিউডের একটি সূত্র জানিয়েছে, ১৯৯৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সুপার হিট ছবি‘দামিনী’নতুন করে নির্মানের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সানি দেওল। যেখানে তার ছেলে করণ দেওলকে প্রধান চরিত্রে দেখা যাবে। মূল ছবিতে অভিনয় করে ছিলেন ঋষি কাপুর, সানি দেওল ও মীনাক্ষী শেশেদ্রি। তবে এই ছবির মূল সত্ব রয়েছে এসআরকে প্রোডাকশন হাউস, রেড চিলিজ এন্টারটেইনমেন্ট এবং প্রযোজক অলি ও করিম মুরানির কাছে।

শাহরুখ খান যখন সানি দেওলের পরিকল্পা জানতে পেরেছেন, তখন অতিতের সব ভুলে ‘ডর’ ছবির সহ অভিনেতার বাড়িতে গিয়ে হাজির হয়েছেন। শুধু তাই নয়, কোনো পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই ‘দামিনী’ছবির সত্ব তুলে দিয়েছেন সানির হাতে। তাদের এই সৌহার্দ্যপূর্ণ ভাব বিনিময়ের পরেই বলিউড সমালোচকার ধরে নিয়েছেন তাদের দীর্ঘ দিনের সম্পর্কের বরফ গলতে শুরু করেছে।

তাদের দুজনের মধ্যে দ্বন্দ্ব শুরু ‘ডর’ ছবিতে অভিনয় করেছিলেন সানি দেওল, শাহরুখ খান ও জুহি চাওলা। পরিচালক যশ চোপড়ার এই ছবির ‘নায়কের’র ভূমিকায় ছিলেন সানি দেওল, অন্যদিকে খল চরিত্রে পাওয়া গিয়েছিল এসআরকেকে। কিন্তু এই ছবির চিত্রনাট্যে নায়ককে ছাপিয়ে গিয়েছিল খলনায়ক। বিষয়টা ভালোভাবে মেনে নিতে পারেননি সানি। আপ কি আদালতের মঞ্চে সেকথা স্বীকারও করে নিয়েছিলেন সানি।

ছবির একটি দৃশ্যে সানি দেওলকে, রাহুল অর্থাৎ শাহরুখের ছুরি মারার যে দৃশ্য রয়েছে তা নিয়ে যশ চোপড়ার সাথে রীতিমতো তর্কাতর্কি হয়েছিল সানির। অভিনেতার কথায়, ‘আমি চেষ্টা করছিলাম এটা বোঝানোর যে আমি ছবিতে কম্যান্ডোর চরিত্রে অভিনয় করছি। যে ভীষণ ফিট এবং অভিজ্ঞ। এই ছেলেটা এত সহজে কীভাবে আমাকে হারাতে পারে? যদি আমি ওকে দেখতে না পাই তাহলে অন্য বিষয় কিন্তু আমি ওকে দেখছি আর সে এসে আমাকে মেরে চলে গেল তাহলে তো আমি কম্যান্ডোই নই’।

যদিও যশ চোপড়া অভিনেতার এই তত্ত্বে বিশেষ পাত্তা দেননি। তখন রাগে, অভিমানে প্যান্ট টেনে ছিঁড়ে ফেলেছিলেন সানি। তার কথায়, ‘তখন রাগে আমি হাত দিয়ে টেনে প্যান্ট ছিঁড়ে ফেলেছিলাম, দুর্ভাগ্যবশত আমি সেটা বুঝতেও পারিনি’।

সূত্র : কইমই ডট কম


আরো সংবাদ