২৭ মে ২০২০

ভারতজুড়ে তোলপাড় : মহাতারকারা চুপ কেন?

ভারতজুড়ে তোলপাড় : মহাতারকারা চুপ কেন? - ছবি : সংগৃহীত

প্রশ্ন তুলছে ভারতের নতুন প্রজন্ম। গত কয়েক দিন ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় এই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে। ভারতের রাজধানীতে অবস্থিত জওহেরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে (জেএনইউ) বহিরাগতদের হামলার ঘটনায় নেটিজেনদের প্রশ্নের তীর মূলত বলিউডের প্রথম সারির কয়েকজন অভিনেতার দিকে। অর্থাৎ তিন খান এবং অমিতাভ বচ্চন ও অক্ষয়কুমার। কারণ বলিউডের অনেকেই এই প্রসঙ্গে মুখ খুললেও এখন পর্যন্ত এই পাঁচজন কোনো মন্তব্য করেননি। গত মঙ্গলবার রাতে দিল্লির জওহরলাল নেহরু ইউনিভার্সিটি (জেএনইউ) ক্যাম্পাসে ছাত্রনেতা ঐশী ঘোষের পাশে দীপিকা পাড়ুকোনের উপস্থিতি আগুনে ঘি ঢেলেছে।

জেএনইউ-এর ঘটনায় এখন পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে শাবানা আজমি, অনুপম খের, স্বরা ভাস্কর, তাপসী পান্নু বা রীতেশ দেশমুখের মতো অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হয়েছেন। গত রোববার মুম্বইয়ের কার্টার রোডে প্রতিবাদে শামিল হয়েছিলেন অনুরাগ কাশ্যপ, অনুভব সিনহা, বিশাল ভরদ্বাজ, জোয়া আখতার, আলি ফজল, রিচা চাড্ডাসহ বলিউডের অনেকেই। মুখ খুলেছেন অজয় দেবগণও। কে বা কারা দোষী সেই বিতর্কে না ঢুকে ছাত্রদের উপর আঘাতের নিন্দা করেছেন অজয়। তার মতে, সহিংসতা কোনো সমস্যার সমাধান হতে পারে না। পরোক্ষভাবে এই ধরনের ঘটনা দেশের ঐক্য নষ্ট করছে।

দীপিকার ‘ছপাক’ ও অজয়ের ‘তানাজি’ প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে। দীপিকা জেএনইউতে যাওয়াতেই অজয় মুখ খুলতে বাধ্য হয়েছেন বলে মনে করছেন অনেকে। আবার মঙ্গলবার রাত থেকেই দীপিকাকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া কার্যত দুই দলে বিভক্ত। একদল মনে করছেন যে ছবির ‘সস্তা’ প্রচারের জন্যই তিনি এরকম পদক্ষেপ নিয়েছেন। গেলেনই যখন তাহলে এত দেরি কেন? তাই ‘ছপাক’ বয়কট করারও ডাক দিয়েছেন তারা।

অন্য পক্ষ মনে করছেন যে, বলিউডের রথী-মহারথীরা যেখানে ঘাপটি মেরে বসে রয়েছেন, সেখানে দীপিকা অন্তত সোশ্যাল মিডিয়ার বাইরে এসে কোনো রঙের তোয়াক্কা না করে ছাত্রদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। দীপিকা জেএনইউতে না গেলেও প্রাসঙ্গিক সামাজিক ইস্যু নিয়ে তৈরি ‘ছপাক’-এর ভালো ব্যবসা কেউ আটকাতে পারবে না বলেই আশা দীপ ভক্তদের। অনুরাগ ও অনুভবের মতো বলিউডের অনেকেই এখন দীপিকার পাশে দাঁড়িয়েছেন।

তাহলে আসা যাক বলিউডের তথাকথিত ‘বোবা’দের প্রসঙ্গে— অমিতাভ, শাহরুখ, সালমান, আমির ও অক্ষয়। প্রশ্ন উঠছে, বর্তমান কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে এদের সখ্যতাই কি মুখ বন্ধ রাখার অন্যতম কারণ? নাকি স্টার ভ্যালু কমে যাওয়ার ভয়? বিগত কয়েক দিন সোশ্যাল মিডিয়ায় বলিউডের প্রথম সারির এই অভিনেতাদের রীতিমতো ‘কাপুরুষ’, ‘মেরুদণ্ডহীন’ বলে আক্রমণ শানিয়েছেন নেটিজেনদের একাংশ। অমিতাভ ট্যুইটারে ভীষণ সক্রিয়। নানা ঘটনায় নিয়মিত ট্যুইট করেন। অথচ জেএনইউ কাণ্ড নিয়ে তিনি এখন পর্যন্ত ‘স্পিকটি নট।’ উল্টে ট্যুইটারে রহস্যময় ‘নমস্কার’ ইমোটিকন পোস্ট করে বেজায় ট্রোলড হয়েছেন তিনি। সরকারের একাধিক ক্যাম্পেনে অমিতাভ দেশের প্রধান মুখ। সম্প্রতি তাকে দাদাসাহেব ফালকে সম্মানে ভূষিত করা হয়েছে। সেইজন্যই কি চুপ বিগ বি?

মহাত্মা গান্ধীর আদর্শকে ছবির মাধ্যমে ছড়িয়ে দিতে সম্প্রতি নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণ রক্ষা করতে দেখা গিয়েছিল শাহরুখ ও আমিরকে। শেষবার সহিষ্ণু-অসহিষ্ণু প্রসঙ্গে মুখ খুলে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন দুই খানই। এখন হাতে ছবি নেই। তাই বিতর্ক থেকে শাহরুখ নিজেকে দূরে রাখতেই পছন্দ করছেন বলে মনে করছেন অনেকে।

অন্যদিকে, আন্না হাজারের ধর্না মঞ্চই হোক বা নর্মদা ইস্যু— আমির খান সবসময় এগিয়ে এসেছেন। তাহলে এখন কেন চুপ ‘সত্যমেব জয়তে’র মতো অনুষ্ঠানের প্রাণপুরুষ? সালমান ও বিতর্ক প্রায় সমার্থক। তাই বলিউডের একাংশ মনে করছেন যে সালমান এখন নিজের কাজ ছাড়া অন্য কোনো বিষয়ে মুখ খুলবেন না। অবশ্য মোদির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে বাবা সেলিম খানকে নিয়ে সালমানের উপস্থিতিও যে তার মুখ না খোলার নেপথ্যে থাকতে পারে, সোশ্যাল মিডিয়ায় কেউ কেউ এটা মনে করিয়ে কটাক্ষ করতেও পিছপা হচ্ছেন না!

বাকি রইলেন অক্ষয়কুমার। সম্প্রতি তাঁর নাগরিকত্ব নিয়েও বিতর্কে জড়িয়ে ছিলেন আক্কি। বিগত কয়েক বছরে ‘টয়লেট : এক প্রেম কথা’ বা ‘মিশন মঙ্গল’— অক্ষয়ের ছবি নির্বাচনই অনেক কিছু পরিষ্কার করে দিয়েছে। লোকসভা ভোটের সময় নরেন্দ্র মোদির ‘অরাজনৈতিক’ সাক্ষাৎকার নিতেও দেখা গিয়েছিল অক্ষয়কে। অথচ, স্ত্রী টুইঙ্কেল খান্না জেএনইউ প্রসঙ্গে মুখ খুললেও অক্ষয় কিন্তু এখনো চুপ।

আর একটা ব্যাপারও লক্ষণীয়। জেএনইউ কাণ্ডে এখন পর্যন্ত বলিউডের মহিলা বিগ্রেডই প্রতিবাদে বেশি সোচ্চার। দীপিকা, সোনম, আলিয়া, তাপসীদের মতো বলিউডের প্রথম সারির নায়িকাদের এই প্রতিবাদকে ‘মহিলাদের কলিজা আছে’ বলেও অভিবাদন জানিয়েছেন অনেকে। সেখানে চুপ রয়েছেন আয়ুষ্মান খুরানা বা ভিকি কৌশলের মতো নবীন প্রজন্মের তারারাও। এর পিছনে নিজস্ব পিআর (পাবলিক রিলেশন) টিমের নিষেধবাণীও থাকতে পারে বলে অনেকের ধারণা। তবে শুধু বলিউড নয়, এখন পর্যন্ত খেলার জগতের আইকনরাও এই ঘটনায় মুখ বন্ধই রেখেছেন।
সূত্র : বর্তমান


আরো সংবাদ