১০ ডিসেম্বর ২০২২, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

ফেইসবুকে ধর্মীয় অবমাননাকর পোস্ট : আটক ১

আটককৃক কিশোর মো: সাইফুল ইসলাম সুজন। - ছবি : নয়া দিগন্ত

ফেইসবুকে ধর্মীয় অবমাননাকর পোস্ট দিয়ে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির চেষ্টার দায়ে মো: সাইফুল ইসলাম সুজন (২১) নামের এক কিশোরকে আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) শাখা পুলিশ।

শুক্রবার আটককৃত কিশোরসহ তিনজনের বিরুদ্ধের মামলা করেন বুড়িচং থানার এসআই মামুন হোসেন।

সুজন কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার রাজাপুর উত্তর পাড়ার সর্দার বাড়ির আবুল কালাম আজাদের ছেলে।

জানা যায়, গত ৫ অক্টোবর ১১টার সময় বুড়িচংয়ের রাজাপুর গ্রামের কমল চন্দ্র মিত্র (৪০) শারদীয় দূর্গাপূজার বিজয়া দশমীর একটি নাচের দৃশ্যের ভিডিও তার মোবাইলে ধারন করেন। পরে ওই ভিডিও তার প্রতিষ্ঠানের নামে পরিচালিত ‘নন্দিতা জুয়েলার্স’ নামক ফেইসবুক আইডির স্টোরিতে আপলোড করেন।

একদিন পর গতকাল ৬ অক্টোবর সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কমল চন্দ্র মিত্র দেখতে পান, তার আপলোডকৃত ভিডিওটি কেউ একজন তার ফেইসবুক স্টোরি থেকে ডাউনলোড কিংবা স্ক্রিন রেকর্ডিং করে এডিটিংয়ের মাধ্যমে একটি ইসলামী নাতে রাসুল/ গজল সংযোজন করে ‘সুজন’ নামীয় আরেকটি ফেইসবুক আইডিতে আপলোড করেন। এবং ধর্মীয় উস্কানিমূলক একটি স্ট্যাটাস দেন। বিষয়টি সাথে সাথে কমল চন্দ্র মিত্র পুলিশকে জানান।

পুলিশ সুপারের নির্দেশনায় তাৎক্ষণিক জেলা গোয়েন্দা পুলিশ ও কুমিল্লার বিশেষ টিম ‘সুজন’ নামীয় ফেইসবুকটির মালিকানা ও পোস্টদাতাকে শনাক্ত করেন। পরে বুড়িচং থানা পুলিশের সহায়তায় ৬ অক্টোবর ৫টার দিকে মো: সাইফুল ইসলাম সুজনকে (২১) আটক করেন।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাইফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে তার ব্যবহৃত মোবাইলে ‘সুজন’ নামের ফেইসবুকে লগইন করে ফেইসবুকের ওয়ালে তার পোস্টকৃত ভিডিও এবং স্ট্যাটাসটি দেখান। এছাড়া তিনি উক্ত ভিডিওটি তার ভাতিজা সর্ম্পকিত দুবাই প্রবাসী রাকিবুল ইসলাম (২১) ও সানজিদা আক্তারকে (অজ্ঞাত) ফেইসবুক মেসেঞ্জারে পাঠিয়েছে মর্মে জানায়।

ভিডিও এডিটিংয়ের মাধ্যমে আসামিগণ তাদের নামীয় ও পরিচালিত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ধর্ম অবমাননাকর ভিডিও আপলোড করে উস্কানীমূলক, আক্রমনাত্বক মিথ্যা তথ্য প্রকাশ করেন। এছাড়া বাংলাদেশের অসংখ্য ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের ধর্মীয় মূল্যবোধ ও অনুভূতিতে উস্কানী প্রদান এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতেন। এ ছাড়াও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটানোর চেষ্টা করায় আটককৃত ব্যক্তি এবং পলাতকদের বিরুদ্ধে এসআই মামুন হোসেন বুড়িচং থানায় মামলা করেন।

ডিবির ইন্সপেক্টর শরিফ ইবনে আলম মামলাটি তদন্ত করছেন।

কুমিল্লা ডিবি পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাজেশ বড়ুয়া অভিযানের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।


আরো সংবাদ


premium cement