২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯, ১ রবিউল আওয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

এতিমের টাকা লুটের প্রতিবাদ করায় মুসল্লিদের ওপর হামলা, আহত ৬

চকরিয়ায় এতিমের টাকা লুটের প্রতিবাদ করায় মসজিদে ঢুকে মুসল্লিদের মারধর - ছবি : নয়া দিগন্ত

কক্সবাজারের চকরিয়ায় এতিমখানার সরকারি অর্থ লুটপাটের প্রতিবাদ করায় মসজিদের ভেতরে প্রবেশ করে মুসল্লিদের ওপর হামলা চালিয়েছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতার নেতৃত্বে সংঘবদ্ধ দুর্বৃত্তরা। হামলায় ৬ মুসল্লি আহত হয়েছেন।

বুধবার (১০ আগস্ট) রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ভিলিজারপাড়া ষ্টেশন মসজিদে ঘটেছে এ ঘটনা। জাতীয় সেবা কেন্দ্রের ৯৯৯ নম্বরে ফোন করলে ডিউটি পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

ভুক্তভোগী একাধিক মুসল্লি জানান, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ও ইউপি মেম্বার রফিকুল ইসলাম কাজলের নেতৃত্বে সুরাজপুর ভিলিজারপাড়া ইসলামিয়া হেফজখানা ও এতিমখানার বিপুল পরিমাণ সরকারি টাকা লুটপাট করেন। এ নিয়ে স্থানীয় বিক্ষুব্ধ জনতা প্রতিবাদ করে। এ নিয়ে মামলাও করা হয়।
এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে অভিযুক্ত লুপাটকারীরা প্রতিবাদী মুসল্লিদের পথে-ঘাটে উত্যক্ত করাসহ তাদের ওপর হামলার চেষ্টা চালিয়ে আসছে। সর্বশেষ বুধবার (১০ আগস্ট) রাতে মসজিদের অচলাবস্থা নিরসনে কমিটি গঠনের কথা বলে কৌশলে ডেকে নিয়ে তুচ্ছ বিষয়ে বাদানুবাদ শুরু করে মেম্বার রফিকুলের লোকজন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে মসজিদ থেকে বের হতেই প্রতিবাদী মুসল্লিদের ওপর হামলা চালায় আওয়ামী লীগ নেতা রফিকুলের নেতৃত্বে ২০-২৫ জন সশস্ত্র লোক।

হামলায় আহত হয়েছেন ভিলিজারপাড়া গ্রামের মৃত পুতুন আলীর ছেলে মোঃ কালু (৭৫), মৃত রব্বত আলীর ছেলে মাহবুবুল আলম (৬২) ও নুরুল ইসলাম (৪২), মাহবুবুল আলমের ছেলে আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ রুবেল (৩২), মোঃ কালুর ছেলে আবদু খালেক (৪২)।

হামলাকারীরা স্থানীয় মোঃ কালুর ছেলে আবদু খালেকের মুখের দাড়ি টেনে ছিঁড়ে নেয় বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) চন্দন কুমার চক্রবর্তী বলেন, মসজিদে কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে হামলার বিষয়ে ৯৯৯-এর মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে পুলিশ টিম পাঠানো হয়েছে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে আহতদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠায়। ঘটনার বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরো সংবাদ


premium cement