০৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯, ৭ জিলহজ ১৪৪৩
`

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম সম্মাননা পেলেন নয়াদিগন্তের শাহাদাত

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম সম্মাননা পেয়েছেন নয়াদিগন্তের সাংবাদিক শাহাদাত হোসেন। - ছবি : নয়া দিগন্ত

সাংবাদিকতায় বিশেষ অবদানের জন্য জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম স্মৃতি সম্মাননা পেয়েছেন দৈনিক নয়া দিগন্ত ফেনী অফিস প্রধান ও দৈনিক ফেনীর সময় সম্পাদক মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন।

শনিবার বিকালে শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে তাকে সম্মাননা ও পুরস্কার তুলে দেন সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতি এস এম মুজিবর রহমান। জাতীয় কবির ১২৩তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে অনুষ্ঠানটির আয়োজন করেন ইউনাইটেড মুভমেন্ট ফর হিউম্যান রাইটস ও আবহমান সাংস্কৃতিক পরিষদ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিচারপতি এস এম মুজিবর রহমান আয়োজকদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘জাতীয়ভাবে আজকের আয়োজকরা সবসময় গুরুত্বপূর্ণ আয়োজনগুলো করে থাকেন। এ সংগঠনটি সবসময় গুণী ব্যক্তিদের উৎসাহ দিয়ে থাকে। গুণী ও বিচক্ষণদের অত্যন্ত সুন্দরভাবে খুঁজে বের করে থাকে। অতীতেও তাদের কাজগুলো প্রশংসিত ছিলো। আজকের অনুষ্ঠানটিও অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আমি খোঁজ নিয়েছি- তারা দীর্ঘ সময় অত্যন্ত সতর্কতার সাথে গুণী ব্যক্তিদের খুঁজে বের করেছেন। আজকের গুণী ব্যক্তিরা সবাই সবার কাজে সেরা।’

তিনি বলেন, ‘কাজী নজরুল ইসলাম ও রবীন্দ্রনাথকে আজ আমরা স্মরণ করি, কিন্তু চেতনায় লালন করি না। আমাদের এ দুজনকে চেতনায় লালন করতে হবে। কবি নজরুল ধর্মান্ধতাকে ধোলাই করেছেন, মানবতা জাগ্রত করেছেন। লিখেছেন-বলেছেন মানুষের জন্য। দুঃসাহসিকতার সাথে কলমের মাধ্যমে কাজ করে গেছেন। তাইতো কবি বলেছেন, “আমি চিরতরে হারিয়ে যাব, তবে নিজেকে দেবো না ভুলিতে।” কবি আজ আমাদের মাঝে নেই কিন্তু তাকে ভোলা যায়নি। অন্যদিকে প্রেমের জন্য, বিশ্বে জাগ্রত ভূমিকায় রবীন্দ্রনাথও আমাদের হৃদয়ে থাকবেন।’

মুজিবর রহমান বলেন, ‘আজকে আমরা দুটো বিষয়ের জন্য উন্নত শিখরে পৌঁছতে পারছি না। এক ক্ষোভ, দুই হিংসা। আমাদের একেকজনের এক একটা যোগ্যতা থাকতে পারে। কেউ ভালো মেধাবী, কেউবা সুন্দর। আমরা যদি এগুলোকে দূর করতে না পারি তাহলে প্রশান্তি পাবো না। তাই অহংকারকে পায়ের তলায় পুঁতে ফেলতে হবে।’

সংগঠনের সভাপতি অ্যাডভোকেট লুৎফুল আহসান বাবুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের উদ্বোধক ছিলেন জাতীয় কবির নাতনী খিলখিল কাজী। প্রধান আলোচক ছিলেন চীফ ইঞ্জিনিয়ার (অব.) বিপিডিপি অ্যান্ড এডভাইজার পাওয়ার সেক্টর বাংলাদেশের ইঞ্জিনিয়ার চৌধুরী নেসারুল হক।

বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পালি বিভাগের প্রফেসর ড. জিনোবধি ভিক্ষু, যুগ্ম-সচিব (অব.) মো: হারুনুর অর রশীদ, স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতরের পরিচালক অধ্যাপক ডা: কামদা প্রসাদ সাহা, প্রাবন্ধিক ও কথাসাহিত্যিক অধ্যাপিকা হোসনে আরা আজাদ, সমাজসেবক রোটারিয়ান মায়া কবির, প্রফেসর শাহানারা হোসেন, কবি সাবরিনা রুবি, বীর মুক্তিযোদ্ধা অলিউর রহমান খান, ডা: মিজানুর রহমান কল্লোল প্রমুখ। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শাহরিয়ার স্বপন স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

স্ব-স্ব ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য অনুষ্ঠানে ২৩ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা, কবি, লেখক, সাংবাদিক, চিকিৎসক, শিল্পী, শিক্ষক, আইনজীবী ও সমাজসেবককে গুণীজন সম্মাননা দেয়া হয়।

প্রসঙ্গত, দৈনিক ফেনীর সময় ও সাপ্তাহিক আলোকিত ফেনী সম্পাদক মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন এর আগে সাংবাদিকতায় হাজারীকা পুরস্কার, বন্ধুর বন্ধন সম্মাননা, তারুণ্য সম্মাননা, পরিবর্তন গুণীজন সম্মাননাসহ বিভিন্ন পুরস্কার অর্জন করেছেন। তিনি বর্তমানে ফেনী রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। এর আগে ফেনী প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।


আরো সংবাদ


premium cement