০৮ মে ২০২১
`

প্রয়োজনে জেলে যাব জীবন উৎসর্গ করব : কাদের মির্জা

আব্দুল কাদের মির্জা - ফাইল ছবি

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌর মেয়র, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর ছোট ভাই আব্দুল কাদের মির্জা নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেছেন, ‘আমি শান্তির প্রস্তাব দিয়েছি। আমি আজকে দিন দেখব, আজকে দিন দেখার পরে আগামী দিন তোমাদেরকে সিদ্ধান্ত দেব। সেই সিদ্ধান্তের আলোকে রাজপথে আমিও থাকব। আমি দেখব কোথাকার পুলিশ, প্রশাসন কি জিনিস। আমি দেখব। প্রয়োজনে জেলে যাব, জীবন উৎসর্গ করব। আমি আর ছেড়ে দেব না।’

বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টা ১০ মিনিটে নিজের অনুসারী স্বপন মাহমুদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে লাইভে এসে তিনি এসব কথা বলেন।

মেয়র কাদের মির্জা বলেন, ‘কোম্পানীগঞ্জে শান্তির প্রস্তাব দিয়েছিলাম কিন্তু সে আহ্বানে সাড়া না দিয়ে তাণ্ডব চালাচ্ছে প্রশাসন। বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে আমার ছেলেদের গ্রেফতার করা হচ্ছে। আমার অফিস থেকে কেউ বের হতে ও ঢুকতে পারছে না। এখানে আমাকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে। আমার ইফতার আনতে দেয়া হচ্ছে না। একদিন সাহরিও আনতে দেওয়া হয় নাই। আমরা সাহরি ছাড়া রোজা রেখেছি এবং ইফতার ছাড়া রোজা ভেঙেছি।’

তিনি বলেন, ‘আমার রাজু নামের একটা ছেলেকে এখান থেকে গ্রেফতার করেছে। পৌরসভা হলো স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান। এটা মন্ত্রণালয় নিয়ন্ত্রণ করে কিন্তু কিভাবে এখান থেকে রাজুকে প্রশাসন গ্রেফতার করে এবং অমানুষিক নির্যাতন করে।’

তিনি আরো বলেন, ‘গত তিন দিনে আমার কর্মী নিজাম উদ্দিন মিকনসহ ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে প্রশাসন। আমার ছেলেকে আহত করল। ইট দিয়ে মাথা ফাটিয়ে চৌচির করে দিয়েছে কিন্তু একটা আসামির ধরল না প্রশাসন। আমার ছেলে অসুস্থ অবস্থায় বাড়িতে কাতরাচ্ছে। যারা হামলা করেছে তাদের গ্রেফতার না করে আমার ছেলেদের গ্রেফতার করে যাচ্ছে। আমার ছেলেকে এভাবে আহত করার পর এরা কিভাবে থানায় বসে মিটিং করে। সারা দিন-রাত তারা সেখানে মিটিং করে, আড্ডাবাজি করে। প্রত্যেকটা ছেলের হাতে অস্ত্র। অস্ত্র নিয়ে তারা থানায় যায়। অস্ত্র নিয়ে ওসির সামনে বসে থাকে। এ অবস্থা যদি চলতে দেয় তাহলে আমরাও বসে থাকব না। আমরাও সশস্ত্র হব অজস্র মৃত্যুতে।’

উল্লেখ্য, গত বুধবার ভোর রাতে নিজের অনুসারী স্বপন মাহমুদের ফেসবুক থেকে লাইভে এসে আবদুল কাদের মির্জা কোম্পানীগঞ্জে স্বাভাবিক জনজীবন ফিরিয়ে আনতে শান্তির ডাক দিয়ে কয়েকেটি প্রস্তাবনা রাখেন।



আরো সংবাদ