১৭ এপ্রিল ২০২১
`

মাদক দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে নোবিপ্রবি’র ড্রাইভার নিজেই ফেঁসে গেলেন

মাদক দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে নোবিপ্রবি’র ড্রাইভার নিজেই ফেঁসে গেলেন - ফাইল ছবি

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে পূর্ব শক্রতার জেরে মাদক দিয়ে অন্যকে ফাঁসাতে গিয়ে নোবিপ্রবির (নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়) ড্রাইভার নিজেই ফেঁসে গেলেন। শক্রবার দুপুরে পুলিশ তাকে বিচারিক আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশ মাদকসহ জামশেদ হোসেন সোহাগকে (৩৫) আটক করে। তিনি উপজেলার পূর্বচরবাটা ইউনিয়নের হাজীপুর গ্রামের মৃত সাহাব উদ্দিনের ছেলে এবং নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়িচালক।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোহাগের সাথে একই উপজেলার চর আমান উল্যা ইউনিয়নের নেয়াপাড়া গ্রামের কালা মিয়ার ছেলে জহিরুল ইসলামের জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। ঘটনার রাতে জহিরকে চালক সোহাগ তার বাড়ির পাশে একা পেয়ে আটক করে। পরে তার হাতে সাত বোতল বাংলা মদ দিয়ে থানা পুলিশকে খবর দেয়। সোহাগ মদ নিয়ে আসার সময় বিষয়টি এলাকার অনেক মানুষের চোখে পড়ে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে উপস্থিত এলাকাবাসী মদগুলো সোহাগের বলে পুলিশ জানায়। পুলিশ ঘটনাস্থলে সোহাগকে মদসহ আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

চরজব্বর থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) ইব্রাহিম খলিল এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আটককৃত সোহাগের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দিয়ে বিচারিক আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।



আরো সংবাদ