০৭ মার্চ ২০২১
`

নোয়াখালীতে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারণায় নৌকা সমর্থকদের হামলা, আহত ১০

ধাওয়া খেয়ে পাশের বাড়িতে আশ্রয় নিলেন প্রার্থী - ছবি : নয়া দিগন্ত

নোয়াখালী চৌমুহনী পৌরসভার নির্বাচনী প্রচারণায় স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক উপ মহাব্যবস্থাপক, গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যালসের পরিচালক ও নোয়াখালী-৩ আসনের সংসদ সদস্য মামুনুর রশিদ কিরনের ভাই খালেদ সাইফুল্লাহ এবং তার সমর্থকদের ওপর প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগের নৌকা সমর্থকরা হামলা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।এতে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে।এর প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করে মেয়র প্রার্থী খালেদ সাইফুল্লাহ। রোববার সকালে চৌমুহনী পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ডের হাজিপুরে মুক্তিযোদ্ধা গাজী আমানউল্ল্যা মিয়ার বাড়িতে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

জানা যায়,স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী খালেদ সাইফুল্লাহ সকালে হাজীপুর গনসংযোগ চালানোর সময় নৌকা সমর্থিত একদল সন্ত্রাসী পিছন থেকে তিনি এবং তার সমর্থকদের উপর হামলা চালায়।এতে রাতুল (২০), পাপ্পু (২৪), রাশেদ (১৫), আবদুল মান্নান (৬০) অমিত হাসান (৩০) ও নয়নসহ (২৫) অন্তত ১০ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে রাতুলকে বেগমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। বাকিদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়।

এ ঘটনার প্রতিবাদে তাৎক্ষণিক খালেদ সাইফুল্লাহ’র কর্মী-সমর্থকরা প্রতিবাদ মিছিল বের করে। চৌমুহনী বাজারের প্রধান সড়ক থেকে মিছিলটি বের করে চৌরাস্তার রুহুল আমিন স্কয়ারে সমাবেশের মধ্য দিয়ে শেষ হয়। দুপুরে খালেদ সাইফুল্লাহ চৌরাস্তা গ্লোব ডেইরি ফার্মে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি অভিযোগ করেন, আমরা শান্তিপূর্ণভাবে মোবাইল মার্কার নির্বাচনী প্রচারণা করতে গেলে হঠাৎ নৌকার ব্যাচ পরিহিত সন্ত্রাসীরা পেছন দিক থেকে আমার উপর হামলা চালায়। এসময় আমার নেতা-কর্মীরা আমাকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে, আমাদের একজন মহিলা কর্মীসহ নেতা-কর্মীদের তারা বেধড়ক মারধর করে, আমি পার্শ্ববর্তী গাজী আমির উল্যার বাড়িতে আশ্রয় নিই। সেখানে সন্ত্রাসীরা আমাকে অপহরণ এবং হত্যার চেষ্টা করে।পরে আমার সমর্থক নেতা-কর্মীরা সংঘবদ্ধ হয়ে এগিয়ে এলে তারা পালিয়ে যায়। আমি এ ঘটনায় সুষ্ঠু বিচার চাই।



আরো সংবাদ