০২ মার্চ ২০২১
`

ভারতীয় বীজের কপি চাষ করে বিপাকে কৃষক

ভারতীয় বীজের কপি চাষ করে বিপাকে কৃষক - ছবি : নয়া দিগন্ত

মিরসরাইয়ে ভারতীয় দেবগিরী ও বঙ্গিম জাতের ফুলকপি, বাঁধাকপি চাষ করে বিপাকে পড়েছে এক কৃষক। রোপনের ৬৫ দিনের মধ্যে ফলন আসার কথা থাকলেও আসেনি ৯০ দিনেও। ফলে প্রায় ৭ হাজার ফুলকপি ও বাঁধাকপি গাছ নিয়ে বিপাকে পড়েছে উপজেলার করেরহাট ইউনিয়নের দক্ষিণ-পশ্চিম জোয়ার গ্রামের কৃষক শরিয়ত উল্ল্যাহ।

করেরহাট ইউনিয়নের দক্ষিণ-পশ্চিম জোয়ার গ্রামের কৃষক শরিয়ত উল্ল্যাহ জানান, তিন মাস আগে করেরহাট বাজারের `কাশেম বীজ ভান্ডার' থেকে প্রায় ৭ হাজার বীজ এনে ২০ শতাংশ জমিতে ফুলকপি ও বাঁধাকপি চাষ করেন। বীজ বিক্রির সময় মালিক আবুল কাশেম বলেছিলেন এগুলোর ভারতীয় বীজ। আগামী ৬৫ দিনের মধ্যে গাছের ফলন আসবে। তাই দেশীয় বীজ থেকে ভারতীয় বীজের দাম একটু বেশি হবে।

তাড়াতাড়ি ফলন ও লাভের আশায় বেশি দামে কাশেম বীজ ভান্ডার থেকে বীজ ক্রয় করেন শরিয়ত। কিন্তু বীজ রোপনের তিন মাস অর্থ্যাৎ ৯০ দিন পেরিয়ে গেলেও গাছে ফল আসেনি। কবে আসবে তারো কোন নিশ্চয়তা নেই।

তিনি আরো বলেন, প্রতিবেশী থেকে টাকা ধার নিয়ে তিনি ২০শতাংশ জমিতে ফুলকপি ও বাঁধাকপি চাষ করেছিলেন। এখন ধারের টাকা পরিশোধ করতে পাওনাদার তাকে চাপ দিচ্ছে।

কৃষক শরিয়ত উল্ল্যার প্রতিবেশী অহিদুর নবী শোভন জানান, শরিয়ত উল্ল্যা তাদের জমি বর্গা চাষ করে। প্রায় ৩ মাস আগে টাকা ধার নিয়ে ফুলকপি ও বাঁধা কপি চাষ করেছেন। কিন্তু এখনো ফলন আসেনি। তাই পাওনাদারের টাকা ফেরত দিতে পারছেন না তিনি।

সরেজমিনে দিয়ে করেরহাট ইউনিয়নের দক্ষিণ-পশ্চিমজোয়ার গ্রামে শরিয়ত উল্ল্যার কপি ক্ষেতে গিয়ে দেখা, হাজার হাজার ফুলকপি ও বাধাকপি গাছ দাঁড়িয়ে আছে। কোন গাছে ফলন আসেনি। কপি ছাড়াও শরিয়ত উল্ল্যাহ প্রায় এক একর জমিতে বেগুন, শীম, বিভিন্ন শাকসবজি চাষ করেছেন।

এ বিষয়ে কাশেম বীজ ভান্ডারের স্বত্বাধিকারী আবুল কাশেম জানান, তিনি ফেনী শহরের একটি বীজ ভান্ডার থেকে ভারতীয় দেবগিরী ও বঙ্গিম জাতের ফুলকপি-বাঁধা কপির বীজ কিনে এনে বিক্রি করছেন। প্যাকেটের গায়ে ৬৫ দিনের মধ্যে ফলন আসার কথা লিখা থাকলেও কেন ফলন আসেনি তিনি তা জানেন না। তবে কৃষক শরিয়ত উল্ল্যাকে তার (আবুল কাশেম) সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ করেন।

মিরসরাই উপজেলা সহকারী কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা কাজী নুরুল আলম জানান, করেরহাটে বীজ বপনের ৯০ দিন পরও কপির ফলন না আসার বিষয়ে তিনি জানেন না। তবে করেরহাট ইউনিয়নে কর্মরত উপ-সহকারীদের মাধ্যমে তিনি খোঁজ খবর নেবেন বলে জানান।

 



আরো সংবাদ


বিদ্যুৎক্ষেত্রে চীনের হানায় অন্ধকার হয়ে গিয়েছিল মুম্বাই! বিজেপিতে যোগ দিলেন শ্রাবন্তী যেকোনো সংকটে দেশের মানুষ ঢাবির দিকে তাকিয়ে থাকে : নুর ২০২১ সালের পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতি : পর্বসংখ্যা-৩ বিজ্ঞান প্রথম অধ্যায় : আমাদের পরিবেশ বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় প্রথম অধ্যায় : আমাদের মুক্তিযুদ্ধ ২০২১ সালের অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের প্রস্তুতি : পর্বসংখ্যা-৩ এইচএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি : বাংলা প্রথম পত্র গল্প : অপরিচিতা এসএসসি পরীক্ষার লেখাপড়া : রসায়ন একাদশ অধ্যায় : খনিজ সম্পদÑ জীবাশ্ম আজ তৃতীয় দফা করোনা টেস্ট অ্যাতলেটিকো ও লিভারপুলের জয় বসুন্ধরা কিংসের খেলা মালদ্বীপে

সকল