০৫ মার্চ ২০২১
`

গণধর্ষণের শিকার প্রতিবন্ধী কিশোরী

গণধর্ষণের শিকার প্রতিবন্ধী কিশোরী - ছবি : প্রতীকী

ফরিদগঞ্জে শ্রবণ প্রতিবন্ধী কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগে তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। উপজেলার সুবিদপুর পশ্চিম ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামে এ গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে। মঙ্গলবার গ্রেফতারকৃতদের চাঁদপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে।

থানায় দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ১৮ জানুয়ারি বিকেলে শ্রবণ প্রতিবন্ধী কিশোরী বুকের ব্যথার ওষুধ কেনার জন্য বাড়ি থেকে বের হন। এ সময় একই বাড়ির জামাল হোসেনের ছেলে ইজি বাইকচালক টিটু কৌশলে তাকে ইজিবাইকে তুলে পাশের একটি বাগানে নিয়ে যান এবং ধর্ষণ করেন। পরে সেখান থেকে ইজি বাইকে করে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের পাশে আরেকটি বাগানে নিয়ে যান। রাত হয়ে গেলে টিটু ও তার সহযোগীরা পালাক্রমে গণধর্ষণ করেন। ধর্ষণ শেষে তাকে বাগানের পাশে ফেলে রেখে যায় তারা। পরে আশপাশের লোকজন টের পেয়ে তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে পৌঁছে দেয়। বাড়ি ফিরে তিনি পরিবারের লোকজনকে এ ঘটনা জানান। এ দিকে বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মীমাংসার জন্য চেষ্টা করেন কিছু প্রভাবশালী।

একপর্যায়ে সোমবার রাতে ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশ বিষয়টি জানতে পারে। এরপর পুলিশ অভিযান চালিয়ে জামাল হোসেনের ছেলে টিটু (২০), আইটপাড়া গ্রামের আ: মান্নানের ছেলে শিপন (২৫), একই গ্রামের মৃত আবু বকর সিদ্দিক প্রকাশ কালুর ছেলে মিজানুর রহমান রিপন (৪৫) নামে তিনজনকে আটক করতে সক্ষম হয়। তারা সবাই ইজিবাইক ও সিএনজিচালক। মঙ্গলবার বিকেলে কামতা গ্রামের শরাফাত আলীর ছেলে চৌকিদার আ: মালেককে (৪৫) আটক করে পুলিশ।

মঙ্গলবার দুপুরে ঘটনার শিকার কিশোরীর মা জোছনা বেগম ছয়জনকে অভিযুক্ত করে ফরিদগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন।

এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ শহিদ হোসেন জানান, সোমবার রাতে ঘটনাটি শোনার পর রাতেই ফোর্স নিয়ে অভিযান পরিচালনা করে অভিযুক্ত তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়। মঙ্গলবার আরো একজনকে আটক করতে সক্ষম হয়েছি। বাকিদেরকে আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। কিশোরীকে উদ্ধার করে পরবর্তী আইনী পদক্ষেপের জন্য ও আটককৃতদের চাঁদপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে।



আরো সংবাদ