২৫ অক্টোবর ২০২০

‘কাজের মাঝে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন আহমদ শফী’

‘কাজের মাঝে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন আহমদ শফী’ - সংগৃহীত

বৃহত্তর চট্টলার ঐতিহ্যবাহী দ্বীনী ও সেবামূলক সংগঠন আল-আমিন সংস্থার আয়োজনে সদ্য প্রয়াত আমীরে হেফাজত ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফীর জীবন, কর্ম ও অবদান শীর্ষক আলোচনা সভা ও দুআ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বাদ আসর সংস্থার হাটহাজারীস্থ কার্যালয়ে এ আলোচনা ও দুআ মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন আল আমিন সংস্থার উপদেষ্ঠা পরিষদ সদস্য মাওলানা ক্বারী মঈনুদ্দীন।

আলোচনা সভায় বক্তাগণ বলেন, আল্লামা শাহ আহমদ শফী তার বর্ণাঢ্য জীবনে ইসলাম, দেশ ও জাতীর বহুমুখী খেদমত আঞ্জাম দিয়েছেন। বিশ্বনবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ইজ্জত রক্ষায় শাহবাগী নাস্তিক ব্লগারদের বিরুদ্ধে ঐতিহাসিক হেফাজত আন্দোলনে তার বলিষ্ঠ নেতৃত্ব ও ভূমিকা ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।

বক্তাগণ আরো বলেন, শায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফী আমাদের আল-আমিন সংস্থার প্রধান পৃষ্ঠপোষক ছিলেন। সংস্থার দ্বীনী ও সেবামূলক কাজে তিনি আমাদের সদা উৎসাহ অনুপ্রেরণা যোগাতেন, পরামর্শ দিতেন। তার ইন্তেকালে আমরা একজন যোগ্য অভিভাবক হারালাম।

বক্তাগণ বলেন, আল্লামা শাহ আহমদ শফী অত্যন্ত দক্ষতা ও বিচক্ষণতার সাথে দীর্ঘদিন হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালকের গুরু দায়িত্ব আঞ্জাম দিয়েছেন। তার সময়ে সাত তলা বিশিষ্ট দৃষ্টি নন্দিত বায়তুল করীম জামে মসজিদ, বিশাল শিক্ষা ভবন, আহমদ মঞ্জিলসহ একাডেমিক বহু উন্নয়নমূলক কাজ হয়েছে। মাদরাসার শিক্ষা সংস্কারেও তিনি বহু কাজ করে গেছেন। আল্লামা শাহ আহমদ শফী সাহেব তার কাজে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

আল্লামা শাহ আহমদ শফীর চিন্তা চেতনা ও আদর্শ বুকে ধারণ করে ইসলাম, মুসলমানের কল্যাণে, সকল বাতিল ও ইসলাম বিরোধী অপশক্তির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সামনের জীবনে পথ চলতে হবে। আলোচনা সভা ও দুআ মাহফিলে কুরআন থেকে তেলাওয়াত করেন হাফেজ মাওলানা ক্বারী রিজুয়ান আরমান।

উপস্থিত ছিলেন, সংস্থার সেক্রেটারি জেনারেল জনাব মুহাম্মদ আহসান উল্লাহ, সহ-সভাপতি মাওলানা আবু আহমদ, মাওলানা হাবিবুল হক বিন খালেদ, মাওলানা আবদুস সমি, মাওলানা মাহমুদুল হোসাইন, মাওলানা মুফতি নাছির উদ্দীন, মাওলানা আনোয়ার, মাওলানা হোসাইন আহমদ, মাস্টার জাহিদ হোসেন, আবুল হাসেম, হাফেজ ওসমান, হাফেজ শফিউল আজম, মাওলানা আজম উদ্দীন, মাওলানা ফয়জুল্লাহ, মাওলানা শোয়াইব বিন ইয়াহিয়া, মাওলানা কামরুল ইসলাম, মুফতি সোলাইমান প্রমুখ।


আরো সংবাদ