২১ অক্টোবর ২০২০

ডিবি পুলিশ পরিচয়ে টাকা লুট, গ্রেফতার ডাকাত দলের ৪ সদস্য

প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত পুলিশের বিভিন্ন সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়। - ছবি : নয়া দিগন্ত

কুমিল্লায় ডিবি পুলিশ পরিচয়ে একাধিক স্থানে টাকা লুটের ঘটনায় আন্তঃজেলা ডাকাত দলের চার সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাত থেকে বুধবার ভোর পর্যন্ত রাজধানী ঢাকা, সাভার ও গাজীপুর এলাকার বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছেন, শেরপুর জেলার শ্রীবরদী থানার ধাতুয়া গ্রামের মৃত সাইদুর রহমানের ছেলে সুমন মিয়া (৪৫), ভোলার তজুমুদ্দিন থানার শ্যাম্ভপুর গ্রামের শাহজাহানের ছেলে গাড়ি চালক ইউসুফ (৫২), জয়পুরহাটের আক্কেলপুর থানার মানিকপাড়া গ্রামের মৃত আনারুলের ছেলে আপেল (৩৩) ও যশোর সদরের জমজমপুর গ্রামের লুৎফুর রহমানের ছেলে মনির (৪৫)। এসময় তাদের কাছ থেকে নগদ অর্থসহ প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত পুলিশের বিভিন্ন সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়।

বুধবার দুপুরে জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার জানান, জেলায় সাম্প্রতিক নগদ অর্থ বহনকারীদের জোরপূর্বক গাড়িতে উঠিয়ে ছিনতাই করে ভিকটিমকে নির্জন স্থানে ফেলে পালিয়ে যাচ্ছিল ডিবি পুলিশ পরিচয়ে একটি প্রতারকচক্র। গত তিন মাসে জেলার বিভিন্ন স্থানে তিনটি ঘটনায় ২২ লাখ ৫৮ হাজার টাকা ছিনতাই করে নিয়ে যায় ওই চক্রটি।

এর মধ্যে গত ২১ জুলাই সদর দক্ষিণ উপজেলার পদুয়ার বাজারে ৫ লাখ ৮ হাজার টাকা, গত ১২ আগস্ট কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের দেবিদ্বার পৌরসভাস্থ মহিলা কলেজের সামনে থেকে ১২ লাখ টাকা এবং সর্বশেষ ২১ সেপ্টেম্বর দাউদকান্দির গৌরিপুর এলাকা থেকে বিকাশ ব্যবসায়ীর নিকট থেকে সাড়ে ৫ লাখ টাকা অভিনব কায়দায় ছিনতাই হয়।

বিষয়টি নজরে আসায় ডিবির এলআইসি টিমের প্রধান পুলিশ পরিদর্শক মুহা: ইকতিয়ার উদ্দিনের নেতৃত্বে ডিবির একটি টিম মঙ্গলবার রাত থেকে বুধবার ভোর পর্যন্ত ঢাকাসহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে প্রতারকচক্রের চার সদস্যকে গ্রেফতার করে। এসময় তাদের কাছ থেকে নগদ দেড় লাখ টাকা, কভারসহ খেলনা পিস্তল, একটি হ্যান্ডকাফ, একটি ওয়াকিটকি, ডিবি’র পোশাক, একটি লাঠি ও একটি প্রাইভেটকার উদ্ধার করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজিম-উল আহসান, শাহরিয়ার মোহাম্মদ মিয়াজী, তানভীর সালেহীন ইমন, নাজমুল হাসান, ডিআইও-১ মাইনুদ্দিনসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


আরো সংবাদ