২৬ মে ২০২০

সড়ক দুর্ঘটনায় মেয়ের মৃত্যুর খবর শুনে প্রাণ হারালেন বাবা

সড়ক দুর্ঘটনায় মেয়ের মৃত্যুর খবর শুনে প্রাণ হারালেন বাবা - ছবি : সংগৃহীত

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার জুলাইপাড়া গ্রামের সাদ্দাম হোসেনের স্ত্রী পারভিন বেগম তার অসুস্থ বাবাকে দেখতে এসে সড়ক দূর্ঘটনায় স্বামী ও গাড়ির চালকসহ ঘটনাস্থলেই তিনজন মারা গেছে। ঘটনাটি মঙ্গলবার দুপুরে কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানার কোরবানপুর সড়কে ঘটেছে। মেয়ের মৃত্যুর সংবাদ শোনার দশ মিনিট পর পারভিনের বাবা পিছন মিয়াও মারা গেছে। এই সংবাদে গোটা এলাকায় চলছে শোকের মাতম।

জানাযায়, নবীনগর উপজেলার জুলাইপাড়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে সাদ্দাম হোসেনের স্ত্রী ও বাঘাউড়া গ্রামের পিছন মিয়ার মেয়ে পারভিন বেগম, তার বাবার অসুস্থতার সংবাদ শুনে চট্টগ্রাম থেকে স্বামীকে নিয়ে প্রাইভেটকার (চট্রঃ মেট্রো- গ ১২-৩৬৯৯) যোগে বাড়িতে আসার পথে কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার দৌলতপুর-মাধপুর সড়কের কোরবানপুর এলাকায় প্রাইভেটকারটি নিয়ন্ত্রন হারিয়ে খালে পরে পানিতে ডোবে গিয়ে ঘটনাস্থলে স্বামী-স্ত্রী ও চালকের মৃত্যু হয়েছে। স্থানীয় এলাকাবাসী দীর্ঘক্ষণ চেষ্টা করে গাড়ীর ভিতর থেকে থেকে ৩ জনের লাম উদ্ধার করে।

নিহতরা হলেন, নবীনগর উপজেলার শিবপুর ইউনিয়নের জুলাইপাড়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে সাদ্দাম হোসেন (২৭), তার স্ত্রী পারভীন আক্তার (২৩) এবং গাড়ী চালক নোয়াখালী কবিরহাট উপজেলার সোনাদিয়া গ্রামের আবুল বাশারের ছেলে আব্দুর রহমান (২৮)। মেয়ের মৃত্যুর সংবাদ শোনার দশ মিনিট পর পারভিনের বাবা পিছন মিয়া (১০৪) মারা যায়। এই মৃত্যুর সংবাদে গোটা এলাকায় চলছে শোকের মাতম।

এ বিষয়ে পারভিনের চাচাতো ভাই খোকন মিয়া জানান, গুরুতর অসুস্থ পারভীনের বাবা, আমার চাচা বাধ্যর্কজনিত কারণে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিল। পারভিন ও তার স্বামীর মৃত্যুর দশ মিনিট পর চাচাও হাসপাতালে মারা গেছে। পারভিনের ৪ বছর সংসার জীবনে কোনো সন্তানাদি নেই। একই দিনে স্বামি, মেয়ে এবং মেয়ের জামাইয়ের মৃত্যুর শোকে চাচি বারবার জ্ঞান হারাচ্ছেন। তাদের লাশ বাড়িতে আনা হচ্ছে। এই মৃত্যুর সংবাদে গোটা এলাকা জুড়ে চলছে শোকের মাতম।

বাঙ্গরা বাজার থানা অফিসার ইনচার্জ কামরুজ্জামান তালুকদার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নিহতদের পরিবারের কোনো অভিযোগ না থাকায় পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।


আরো সংবাদ