০৬ এপ্রিল ২০২০

ফরিদগঞ্জে বন্ধ হয়নি প্রাইভেট কোচিং

ফরিদগঞ্জে বন্ধ হয়নি প্রাইভেট কোচিং - প্রতীকী

সরকারী ঘোষণা অনুসারে বিদ্যালয় বন্ধ হলেও থেমে নেই শিক্ষকদের প্রাইভেট বাণিজ্য। শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের সুস্পষ্ট নির্দেশনা উপেক্ষা করে বাসায় কিংবা প্রাইভেট সেন্টারে অবাধে প্রাইভেট বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছেন ফরিদগঞ্জের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা।

রোববার সকালে উপজেলার চির্কা চাঁদপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক আব্দুল গফুরের বাসায় গিয়ে দেখা গেছে, সকাল ৮টা থেকে তিনি মেয়েদের একটি ব্যাচ পড়াচ্ছেন। এ সময় উপস্থিত কয়েকজন ছাত্র জানান তারা সকাল ৭ টা থেকে স্যারের কাছে পড়েছেন। আরো কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, তারা স্যারের ৯ টার ব্যাচে পড়তে যাচ্ছেন। একই বিদ্যালয়ের শিক্ষক আলাউদ্দিন হোসেনের প্রাইভেট সেন্টারে গিয়ে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। এ সময় তিনি সেন্টারে উপস্থিত ছিলেন না।

হাঁসা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের গণিত শিক্ষক সাইফুল ইসলামও প্রাইভেট পড়ানো অব্যাহত রেখেছেন। তার কাছে পড়তে আসা নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থী আয়েশা আক্তার এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

ফরকাবাদ ডিগ্রী কলেজের শিক্ষার্থী জাহানারা এবং তার সহপাঠীরা জানান, তারা কাজল হোসেন নামে এক শিক্ষকের কাছে প্রাইভেট পড়ে বাড়ি ফিরছেন।

উপজেলার গোবিন্দপুর দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের সামনে অবস্থিত একটি প্রাইভেট সেন্টারে গিয়ে দেখা যায়, ইমরান হোসেন ও মিজানুর রহমান নামে দুই শিক্ষক দু’টি কক্ষে অন্তত ৪০ জন শিক্ষার্থীকে পড়াচ্ছেন। তারা পাশের জেএফসি একাডেমীর শিক্ষক বলে জানিয়েছেন।

ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাহ্ আলী রেজা আশরাফী বলেন, সুনির্দিষ্ট তথ্য পেলে অবশ্যই সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের ব্যাপারে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।


আরো সংবাদ