০৫ এপ্রিল ২০২০

পটিয়ায় ফার্নিচার ব্যবসায়ী খুনের ঘটনায় গ্রেফতার-২

নিহত ফার্নিচার ব্যবসায়ী জামাল উদ্দীন - ছবি: নয়া দিগন্ত

চট্টগ্রামের পটিয়ায় পবিত্র ওরস উপলক্ষে আয়োজিত মেলায় একদল ডাকাতের হাতে নিহত নরসিংদীর ফার্নিচার ব্যবসায়ী জামাল উদ্দিনের (৫৮) লাশ ১৮ ফেব্রুয়ারি বেলা ১১টায় তার নিজ গ্রাম ভটেশ্বর মেম্বার বাড়ির পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ১৭ ফেব্রুয়ারি পটিয়া থানায় নিহতের ছেলে খলিল মিয়া বাদী হয়ে অজ্ঞাত নামা ৭/৮ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় এ পর্যন্ত দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা হলেন, মাহুব (৪২) ও সাকিব প্রকাশ আমজু (২২)। লুন্ঠিত মালামালও উদ্ধার করা হয়েছে।


এর আগে ১৬ ফেব্রুয়ারি গভীর রাতে চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার কোলাগাঁও ১ নম্বর ওয়াডের্র গরীব উল্লাহ্ শাহ মাজার এলাকায় একদল ডাকাত নিহত জামাল ও সুজন নামে দুই ফার্নিচার ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে নগদ টাকা ও ফার্নিচার লুট করে পালিয়ে যায়।

কালারপোল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক ও মামরার তদন্ত কর্মকর্তা কায়ছার হামিদ বলেন, এই ঘটনায় অজ্ঞাতনামা ৭/৮ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এ ব্যপারে যোগাযোগ করা হলে পটিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক মো: বোরহান উদ্দিন মামলা দায়ের করার বিষিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনার সাথে জড়িত অবশিষ্টদের গ্রেফতারের প্রচেষ্টা চলছে।


খবর পেয়ে পুলিশ ১৭ ফেব্রুয়ারি ভোররাতে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য চমেক হাসপাতালের মর্গে ও আহত সুজনকে (৪২৫) হাসপাতালে ভর্তি করেন। নিহত জামাল উদ্দিন নরসিংদীর বেলাবো ভটেশ্বর মেম্বার বাড়ীর শরাফত আলীর ছেলে। ৪ ছেলে মেয়ের মধ্যে সবার বড় ছিলেন তিনি। তার স্ত্রী, ৩ ছেলে ও ১ মেয়ে রয়েছে। আহত সুজনও একই এলাকার মোহাম্মদ হোসেনের ছেলে বলে জানা গেছে।

ওই এলাকার ইউপি সদস্য মধু জানান, প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ১০ ফেব্রুয়ারি ওরস শুরু হয়। ১১ ফ্রেব্রুয়ারি ওরস শেষ হলে এ মেলায় বিভিন্ন দোকান বসে। নিহত জামাল ও সুজনসহ বেশ কয়েকজন মেলায় কাঠের তৈরি ফার্নিচারের দোকান দেয়। মেলা শেষ হলেও কিছু ফার্নিচার অবিক্রিত থাকায় তারা দোকান তুলে নেননি।

তিনি জানান, রাতে তাদের দুইজনকে ধরে বেধড়ক পিটুনি দিয়ে বিক্রয় করা টাকা ও রক্ষিত বেশ কিছু ফার্নিচার লুট করে পালিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা।

কালারপোল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কায়ছার হামিদ বলেন, এই ঘটনায় অজ্ঞাতনামা ৭/৮ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এ ব্যপারে যোগাযোগ করা হলে পটিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক মো: বোরহান উদ্দিন মামলা দায়ের করার বিষিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনার সাথে জড়িত অবশিষ্টদের গ্রেফতারের প্রচেষ্টা চলছে।


আরো সংবাদ