২৯ মার্চ ২০২০

জিয়াউর রহমান জাতীয় চার নেতা হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী : মোহাম্মদ নাসিম

জিয়াউর রহমান জাতীয় চার নেতা হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী : মোহাম্মদ নাসিম - ছবি : সংগৃহীত

সকল চক্রান্ত রুখে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে সকলকে একসাথে কাজ করার আহবান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম

জিয়াউর রহমানকে জাতীয় চারনেতা হত্যার পরিকল্পনাকারী হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘দেশকে রাজনীতি শুন্য করতে জিয়াউর রহমান জাতীয় চারনেতাকে হত্যার পরিকল্পনা করেছিলেন। জিয়া মূল খলনায়ক। তদন্ত কমিশন গঠন করে জিয়াউর রহমানের বিচার করতে হবে। না হলে দেশের ইতিহাস অসম্পুর্ন থাকবে। খন্দকার মোস্তাক বেঈমানী করেছে, জাতীয় চারনেতা বঙ্গবন্ধুর রক্তের সাথে বেইমানী করেনি বলেই নির্মম হত্যার শিকার হয়েছেন। আজও সেই চক্রান্তকারী তাদের চক্রান্ত অব্যাহত রেখেছে।’

তিনি আজ বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘আদালতে পাকিস্তানী স্টাইলে হামলা হয়েছে। ওরা বিচার মানে না, আইন মানে না, জোর করে খালেদাকে মুক্ত করতে চায়। শেখ হাসিনাসহ আমরা কারাগারে ছিলাম। আমরা আদালতের মাধ্যমে জামিন নিয়েছি। তাই আদালত ভাঙচুরের বিচার বাংলার জনগণ করবে ইনশাল্লাহ।’

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে উন্নয়নের জোয়ার বইছে। বিশে^র বুকে মাথা উচুঁ করে দাঁড়িয়েছে দেশ। অন্ধকার থেকে আলোর পথে বাংলাদেশ। আওয়ামী লীগ মানুষের মন জয় করে ক্ষমতায় এসেছে। ক্ষমতায় আছেন বলে আত্মতৃপ্তির সুযোগ নেই। এমন কোন আচরণ করা যাবে না যাতে মানুষ কষ্ট পায়। বগুড়াকে আওয়ামী লীগের দূর্গে পরিণত করতে তিনি নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকার আহবান জানান।

নাসিম বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা এখন খুনি বিএনপি জামাত চক্রের মূল টার্গেট। তার উপর ১৯ বার হামলা হয়েছে। চক্রান্ত চলছে। শেখ হাসিনাকে রক্ষা করতে হবে। যেকোন সময় দুঃসময় আসতে পারে। নেতাকর্মীদের সজাগ থাকতে হবে।
শহরের আলতাফুন্নেছা খেলার মাঠে সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ডা. মকবুল হোসেন। সম্মেলনে প্রধান বক্তা ছিলেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবীর নানক।

জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক সুলতান মাহমুদ খান রনির সঞ্চালনায় সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য নুরুল ইসলাম ঠান্ডু, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য মেরিনা জাহান কবিতা, বগুড়া-৫ আসনের এমপি হাবিবর রহমান, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান রিপন।

সম্মেলনে দ্বিতীয় অধিবেশনে জেলা কমিটির সভাপতি হিসেবে বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান মজনু, সহ-সভাপতি টি জামান নিকেতা, সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু, যুগ্ম সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম মোহন, সাগর কুমার রায়, আসাদুর রহমান দুলু ও কোষাধ্যক্ষ হিসেবে প্রয়াত আ’লীগ সভাপতি মমতাজ উদ্দিনের ছেলে চেম্বার সভাপতি মাসুদুর রহমান মিলনের নাম ঘোষণা করা হয়। সূত্র : বাসস


আরো সংবাদ