১৪ আগস্ট ২০২০

অন্ধত্বকে জয় করে ঢাবিতে চান্স পেয়েছে রাফি 

মায়ের সাথে অন্ধ সাইফুদ্দিন রাফি বাবু - নয়া দিগন্ত
24tkt

অন্ধত্বকে জয় করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পেল পটিয়ার মেধাবী ছাত্র অন্ধ সাইফুদ্দিন রাফি বাবু । চোখের দৃষ্টি না থাকলেও মনের দৃষ্টি দিয়ে রাফি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য মেধা তালিকায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার এই সাফল্যে পরিবারের পাশাপাশি পুরো গ্রামের মানুষ খুশি। সাইফুদ্দিন রাফি বাবু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করে ভবিষ্যতে ইংরেজীতে অধ্যাপনা করত চান।

সাইফুদ্দিন রাফি বাবু চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া উপজেলার জঈলখাইন ইউনিয়নের উজিপুর গ্রামের মরহুম শিক্ষক আজহার উদ্দিনের একমাত্র ছেলে। সে এবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ১১ হাজার প্রতিযোগী শিক্ষাথীর মধ্যে ভর্তি পরীক্ষায় নির্বাচিত হয়েছে।

রাফি ২০১৭ সালে ইউনিয়ন কৃষি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস.এ.সি ও ২০১৯ সালে পটিয়া সরকারী কলেজ থেকে মানবিক বিভাগ থেকে জিপিএ ৫ পেয়ে কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হয়। তার বাবা পটিয়ার ইউনিয়ন কৃষি উচ্চ বিদ্যালয়ে ইংরেজী বিভাগের সহকারী শিক্ষক ছিলেন ।

২ বছর পূর্বে তার বাবা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। তার মা নাজনীন আক্তার একজন গৃহিণী। রাফি ৩ বছর বয়সে তার দাদীর জন্য ঘরের কার্নিশ থেকে চুনের পটলা নিতে গিয়ে হাত ফসকে মাটিতে পড়ে গিয়ে তার চোখে চুন ছিটকে পড়ে এ কারণে তার ২ চোখ নষ্ট হয়ে য়ায়।

রাফি ছাড়াও তার বড় দুই বোন রয়েছে। বড় বোন এক উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা, মেঝ বোন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগে লেখাপড়া করছেন। বর্তমানে তার বড় বোনের মাসিক বেতনের টাকায় তাদের পুরো সংসার চলে।

রাফির স্বপ্ন নিয়ে জানতে চাইলে সে বলে শ্রুতি লিখনের মধ্যে অন্যজনের সাহায্য নিয়ে পরীক্ষায় অংশ নিতে হয়। তার পিতার মত সেও ইংরেজীতে মাস্টার্স পাশ করে ইংরেজীর অধ্যাপক হতে চান। মেধাবী ছাত্র রাফি ও তার পরিবার সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন যেন মনের আশা পুরণ হয়।

 

 


আরো সংবাদ