১২ আগস্ট ২০২২
`

ইন্দুরকানীতে দেড় বছরে চালু হয়েছে অর্ধশতাধিক নূরানী ও হেফজ মাদরাসা

ইন্দুরকানীতে দেড় বছরে চালু হয়েছে অর্ধশতাধিক নূরানী ও হেফজ মাদরাসা - ছবি : নয়া দিগন্ত

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে গত দেড় বছরে অর্ধশতাধিক নূরানী ও হেফজ মাদরাসা চালু হয়েছে। চাড়াখালী চৌরাস্তাতে ২০০ গজের মধ্যেই প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ছয়টি মাদরাসা।

করোনার সময় থেকে এলাকায় এই মাদরাসাগুলো চালুর পর উপজেলার ৭০টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ১৮টি আলিয়া মাদরাসায় শিক্ষার্থী কমেছে।

করোনার দীর্ঘ বন্ধের পর গত বছর জুলাই মাসে প্রাথমিক বিদ্যালয় ও আলিয়া মাদরাসা খুললেও অনেক ছাত্র-ছাত্রী এখনো প্রতিষ্ঠানে যায়নি। জানা গেছে, তাদের বেশির ভাগই নূরানী ও হেফজ মাদরাসাগুলোতে ভর্তি হয়েছে।

এদিকে এই নূরানী ও হাফেজী মাদরাসার ৯০ শতাংশই প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ভাড়া বাড়িতে। এসব মাদরাসার ছাত্র সংখ্যা ৩০ থেকে দেড়শতাধিক। শিক্ষার্থীদের বেতন, যাকাত, ফিতরা ও এলাকাবাসীর অনুদানে চলছে প্রতিষ্ঠানগুলো।

এলাকাবাসীর সাথে আলাপ করে জানা গেছে, ২০২০ সালে করোনা মহামারী শুরু হলে সরকারি নির্দেশে প্রাথমিক বিদ্যালয় ও আলিয়া মাদরাসাগুলোর শ্রেণি কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়। তবে কওমি, নূরানী ও হেফজ মাদরাসাগুলো খোলা থাকায় অভিভাবকরা সন্তানদের বাড়িতে বসিয়ে না রেখে মাদরাসাগুলোতে ভর্তি করান।

সরজমিনে উপজেলার চাড়াখালী চৌরাস্তায় গিয়ে দেখা গেছে, খাতুনে জান্নাত মহিলা মাদরাসা ও হিফজখানা, মারকাজুল উলুম আল ইসলামিয়া মাদরাসা, তাহফিজুল কুরআন মাদরাসা, খাদিজাতুল কুবরা (রা:) মহিলা মাদরাসা, তাহফীমুল কুরআন হাফেজিয়া নূরানী মাদরাসা ও মধ্য চাড়াখালী নূরানী মাদরাসা নামে ছয়টি মাদরাসা চলমান।

আশপাশে এক কিলোমিটারের মধ্যে আরো রয়েছে চাড়াখালী শিকদারবাড়ী হাফেজিয়া মাদারাসা, উপজেলার মোড়ে দারুস সুন্নাহ নূরানী হাফেজিয়া মডেল মাদরাসা ও টিঅ্যান্ডটির পাশে মুসলিহুল উম্মাহ নূরানী ও হেফজ মাদরাসা। সব মিলিয়ে উপজেলায় অর্ধশতাধিক নতুন মাদরাসা গড়ে উঠেছে।

খাতুনে জান্নাত মহিলা মাদরাসা ও মারকাজুল উলুম আল ইসলামিয়া মাদরাসা দু’টির পরিচালক মাওলানা মুহিব্বুল্লাহ বলেন, শিক্ষার্থীদের জীবন সুন্দর করে গড়ে তোলার জন্য তিনি এ প্রতিষ্ঠান দু’টি গড়ে তুলেছেন।

দক্ষিণ ইন্দুরকানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এস এম লোকমান হোসেন বলেন, করোনাকালে তার প্রতিষ্ঠান থেকে ৪৫ জন শিক্ষার্থী বিভিন্ন নূরানী ও হেফজ মাদরাসায় ভর্তি হয়েছে, যারা এখন মাদরাসাতেই পড়ছে।

আজাহার আলী দাখিল মাদরাসার সুপার মাওলানা আব্দুস সালাম বলেন, তাদের অনেক ছাত্র-ছাত্রী এখন নূরানী ও হেফজ মাদরাসায় পড়ছে।

ইন্দুরকানী উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো: শহিদুল ইসলাম বলেন, করোনা মহামারীকালীন প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ থাকায় অনেক শিক্ষার্থী নূরানী ও হেফজ মাদরাসায় ভর্তি হয়েছে। ফলে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী কমে গেছে।


আরো সংবাদ


premium cement
বিএনপি দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করতে চায় : ওবায়দুল কাদের বরগুনায় পুলিশি বাঁধায় বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল পণ্ড নবাবগঞ্জে পুকুর থেকে ইজিবাইক চালকের লাশ উদ্ধার আড়াই মাসের মিষ্টি কুমড় চাষে লাভ হলো ৩৫ লাখ টাকা জাবির ভিসি প্যানেল নির্বাচন আজ, অংশ নিচ্ছে আ’লীগের ৩ গ্রুপ ড্রোন উড়ানো কেন নিষিদ্ধ করতে বাধ্য হলো সংযুক্ত আরব আমিরাত পারমাণবিক কেন্দ্র রুশ বাহিনীর দখলমুক্ত করতে বিশ্বের প্রতি জেলেনস্কির আহ্বান ফতুল্লায় চালককে ছুরিকাঘাতে খুন করে মিশুক ছিনতাই ফতুল্লায় বাল্কহেডের ধাক্কায় যাত্রীবাহী ট্রলারডুবি ইউক্রেন নয় ন্যাটোর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে রাশিয়া : মস্কো ইউক্রেনের পরমাণু কেন্দ্রে ফের বিস্ফোরণ

সকল