৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৫ অগ্রহায়ন ১৪২৮, ২৪ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি
`

ভোলায় গৃহকর্মীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ভোলায় গৃহকর্মীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার - ছবি : নয়া দিগন্ত

ভোলা পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড ওয়েস্টার্নপাড়ার একটি ফ্ল্যাটবাসা থেকে সোনিয়া (১৪) নামের এক গৃহকর্মীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুরে ঠিকাদার জামাল গোলদারের বাসার নিচতলার বাথরুম থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

সোমবার বিকেলে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ভোলা সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এনায়েত হোসেন।

এই ঘটনায় পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ করা হয়নি। অভিযোগ ও ময়নাতদন্তের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ওসি।

ভোলা থানার এসআই মো: জসিম উদ্দিন বলেন, সোমবার দুপুরে ভোলা পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের জামাল গোলদারে ফ্ল্যাটের নিচ তালা থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়। পরিবারের লোকজন সকালে গৃহকর্মী সোনিয়ার লাশটি বাথরুমে বাইরে পেয়েছের বলে জানান।

ওই ফ্ল্যাটের মালিক জামাল গোলদার বলেন, সকালের দিকে আমার বাসার কেয়ারটেকার শাহাবুদ্দিন বাথরুমের দরজা খুলে সোনিয়াকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। পরে সবাই মিলে ধরে তাকে হাসপাতালে পাঠানোর চেষ্টা করলে তার নিথর শরীর পাওয়া যায়। পরে ভোলা সদর থানায় জানানো হলে পুলিশ লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যায়।

সোনিয়া লালমোহন উপজেলার ধলীগড়নগর ইউনিয়নের চতলা গ্রামের মৃত মিলনের মেয়ে। তার মা নাজমা বেগম ও দাদা খবর পেয়ে সোনিয়াকে শেষ বারের মতো দেখতে আসেন। তবে এই ঘটনায় পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ করা হয়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকাবাসী জানান, প্রায় সময় গৃহকর্মী সোনিয়াকে মারধর করা হতো। মাঝে মধ্যেই তার কান্নার চিৎকার শোনা যেতো। আত্মহত্যার ঘটনাটি রহস্যজনক হতে পারে বলে এলাকাবাসী মন্তব্য করেছেন। এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিও জানিয়েছেন তারা।

গৃহকর্মী সোনিয়ার মা নাজমা বেগম বলেন, গত ৩ মাস ধরে আমার মেয়ে জামাল ঠিকাদারের বাসায় কাজ করে। তারা জানিয়েছে আমার মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। আমি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীদের বিচার দাবি করছি।

ভোলা সদর থানার ওসি এনায়েত হোসেন বলেন, ময়নাতদন্ত শেষে সোনিয়ার মৃত্যুর মূল রহস্য জানা যাবে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট ও অভিযোগ পেলে আইনানুনগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



আরো সংবাদ