১৯ জুন ২০২১
`

কুয়াকাটা সৈকতে জীববৈচিত্র রক্ষায় লাল কাঁকড়া ও কচ্ছপের অভয়াশ্রম

লাল কাঁকড়া ও কচ্ছপের অভয়াশ্রম - ছবি নয়া দিগন্ত

কুয়াকাটা সৈকতে সামুদ্রিক জীববৈচিত্র রক্ষায় লাল কাঁকড়া ও কচ্ছপের অবাধ বিচরণের অভয়াশ্রম বানিয়েছে ওয়ার্ল্ড ফিস বাংলাদেশ ও মৎস্য অধিদফতর।

গত ৫ এপ্রিল থেকে কুয়াকাটা সৈকতের কাউয়ারচর জোনের ঝাউবন এলাকায় ৩০০ ফুট বাঁশের বেড়া দিয়ে উপদ্রবহীন এ অভয়াশ্রম নির্মাণ করা হয়েছে।

শনিবার বেলা ১১টায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু হাসনাত মো: শহিদুল হক অভয়াশ্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

এসময় ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন ট্যুরিস্ট পুলিশ কুয়াকাটা জোন সিনিয়ার সহকারী পুলিশ সুপার মো: সোহরাব হোসেন, কলাপাড়া উপজেলা সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মো: মহসিন রেজা প্রমুখ।

অভয়াশ্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সৈকতে উপস্থিত ছিলেন ধুলাসার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আ: জলিল আকন, অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব কুয়াকাটা (টায়াক) সভাপতি রুমান ইমতিয়াজ তুষার, ওয়ার্ল্ডফিস বাংলাদেশের (ইকো ফিস-২) আওতায় কুয়াকাটা সৈকতের প্রাকৃতিক জীববৈচিত্র গবেষণা সহকারী সাগরিকা স্মৃতি।

ওয়ার্ল্ডফিস বাংলাদেশ’র কুয়াকাটা সৈকতের প্রাকৃতিক জীববৈচিত্র গবেষণা সহকারী সাগরিকা স্মৃতি জানিয়েছেন, সৈকতের অন্যতম আকর্ষণ লাল কাকঁড়া ও তার আলপনা। লাল কাকঁড়ার বিচরণ সৈকতের লেম্বুরবন ও গঙ্গামতি পয়েন্টে। পর্যটকদের অতিরিক্ত চাপ, অনিয়ন্ত্রিত যানবাহন, শব্দ দূষণ ও বেপরোয়া মোটরসাইকেল চলাচলে এই লাল কাঁকড়ার প্রাচুর্যে দিন দিন কমে যাচ্ছিল। তাই সৈকতে লাল কাঁকড়া ও কচ্ছপের অবাধ বিচরণে ওয়ার্ল্ডফিস বাংলাদেশ (ইকো ফিস-২) এবং মৎস্য অধিদফতর যৌথভাবে এ অভয়াশ্রম নির্মাণ করেন।

এ বিষয় কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু হাসনাত মো: শহিদুল হক বলেন, কুয়াকাটা সৈকতে লাল কাঁকড়া ও কচ্ছপের অবাধ বিচরণে সামুদ্রিক জীববৈচিত্র রক্ষায় অভয়াশ্রম ইতিবাচক প্রভাব পরবে।



আরো সংবাদ