২৫ নভেম্বর ২০২০

৬ বছরের শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ, মাদরাসা শিক্ষক পলাতক


বরগুনা সদর উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নে আইয়ুব আলী (৩৫) নামের এক মাদরাসার শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছয় বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। তিনি সদরে অবস্থিত বুড়িরচর দাখিল মাদরাসার একজন শিক্ষক। এ ঘটনায় শিশুটির বাবা বুধবার নয়টায় বরগুনা সদর থানায় মামলা দায়ের পর পুলিশ অভিযুক্ত আইয়ুব আলীর বাড়িতে অভিযান চালায়। তবে পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করতে ব্যর্থ হয়।

ঘটনাটি শনিবার দুপুর ঘটলেও নানাবিধ হুমকি ও ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে তা চাপা দেয়ার চেষ্টা চলছিল বলে জানা গেছে। ওই শিশুটির বাবা জানান, শনিবার দুপুরে শিক্ষক আইয়ুব আলী বাচ্চাটার সাথে খেলার জন্য তাদের ঘরে যায়। এসময় ওই শিক্ষক শিশুটিকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। এতে শিশুটি কান্না শুরু করলে বাচ্চাটিকে ওই অবস্থায় রেখে চলে যান। শিশুটির মা বাড়িতে ফিরে তাকে প্যান্ট খোলা ও উল্টো অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। কারণ জানতে চাইলে সে মাকে বিষয়টি জানায়।

পরে শিশুটির বাবা আইয়ুব আলীর ভাই সাবেক ইউপি সদস্য ইসমাইলকে ঘটনাটি সম্পর্কে অবগত করেন। কিন্তু ঘটনা জানার পর ইসমাইল বিষয়টি কাউকে না জানানোর জন্য ভুক্তভোগী পরিবারের ওপর চাপ প্রয়োগ করে। একপর্যায়ে শিশুটিসহ ওই পরিবারকে নিজ বাড়িতে জিম্মি করে রাখে। খবর পেয়ে গণমাধ্যকর্মীরা ওই বাড়িতে গিয়ে পুলিশের সহায়তায় শিশুটিকে মা-বাবাসহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

অভিযুক্ত আইয়ুবের ভাই ইসমাইল মুঠোফোনে জানান, এরকম কোনো ঘটনার বিষয় আমার জানা নেই।

এ বিষয়ে বরগুনা থানার ওসি তরিকুল ইসলাম তরিক বলেন, শিশুর বাবা ইউনুস শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন। বুধবার রাত নয়টার পুলিশ আইয়ুব আলীর বাড়িতে অভিযান চালায়। তবে তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।


আরো সংবাদ