১৯ অক্টোবর ২০২০

আলোচিত রিফাত হত্যা মামলার রায় আজ

-

বরগুনার বহুল আলোচিত শাহনেওয়াজ রিফাত শরীফ হত্যা মামলার রায় ঘোষণা হবে বুধবার। বরগুনা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের জজ মো: আছাদুজ্জামান মিয়া এ মামলার রায় ঘোষণা করবেন।

এ রায়ে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন এলাকাবাসী, নিহত রিফাতের পরিবার ও স্থানীয়রা। এদিকে ন্যায্য বিচার পাবেন বলে প্রত্যাশা করেছেন মিন্নির বাবা মোজাম্মেল কিশোর।

বুধবার এ মামলার বয়স্ক ১০ জন আসামির বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা করা হবে। এ মামলার প্রাপ্তবয়স্ক আসামিরা হলেন, রাকিবুল হাসান ওরফে রিফাত ফরাজী (২৩), আল কাইয়ুম ওরফে রাব্বি আকন (২১), মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত (১৯), রেজোয়ান আলী খান হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয় (২২), মো: হাসান (১৯), মো: মুসা (২২), আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি (১৯), রাফিউল ইসলাম রাব্বি (২০), মো: সাগর (১৯) ও কামরুল হাসান সায়মুন (২১)।

গত বছরের ১ সেপ্টেম্বর শাহনেওয়াজ রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় রিফাতের স্ত্রী মিন্নিসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দুই ভাগে বিভক্ত অভিযোগ পত্র (চার্জশিট) দেয় পুলিশ। চলতি বছরের ১ জানুয়ারি রিফাত হত্যা মামলার প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন বরগুনার জেলা ও দায়রা জজ আদালত। এরপর ৭৬ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ, রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রায়ের তারিখ নির্ধারিত হয়। আসামিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ।

আইনের প্রতি শতভাগ আস্থা জানিয়ে রিফাত শরীফ হত্যা মামলার সাক্ষী থেকে আসামি হওয়া আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোরও ন্যায্য বিচার প্রত্যাশা করছেন। তার দাবি মিন্নিকে এই মামলায় ষড়যন্ত্রমূলকভাবে ফাঁসানো হয়েছে।

এ বিষয়ে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট ভুবন চন্দ্র হাওলাদার বলেন, তার প্রত্যাশা আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি হবে।

মিন্নির পক্ষের আইনজীবী মাহবুবুল বারী আসলাম সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, তারা যে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেছেন, তাতে মিন্নি বেকসুর খালাস পাবেন।

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় ১০ আসামির রায়ের দিন নির্ধারিত হলেও ১৪ শিশু আসামির বিচারিক কার্যক্রম বরগুনার শিশু আদালতে চলমান রয়েছে।

রিফাত শরীফকে ২০১৯ সালের ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে নয়ন বন্ড, রিফাত ফরাজি ও তার সহযোগী সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেন। গুরুতর আহত রিফাত বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ওই দিনই মারা যান।


আরো সংবাদ