১০ জুলাই ২০২০
রাঙ্গাবালী-ঢাকা নৌরুট

স্বাস্থ্য বিধি না মেনে লঞ্চ যাত্রা

স্বাস্থ্য বিধি না মেনে লঞ্চ যাত্রা - ছবি : নয়া দিগন্ত

ঘড়ির কাটায় তখন ৯ টা ১৫ মিনিট। রাঙ্গাবালী থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল এম.ভি জাহিদ-৭ নামের একটি যাত্রীবাহী লঞ্চ। যাত্রীরা যে যার মত লঞ্চে উঠছিল। বেশিরভাগ যাত্রীর মুখে মাস্ক নেই, হাতে নেই হ্যান্ড গ্লাভস। লঞ্চের ভেতরে কোথাও যাত্রীরা জড়ো হয়ে বসে ছিল, কোথাও একে অপরের গা ঘেঁষে দাঁড়িয়ে ছিল।

করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে এভাবেই বেশিরভাগ যাত্রী যাত্রা শুরু করে এম.ভি জাহিদ-৭ এ। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১০ টায় পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার কোড়ালিয়া লঞ্চঘাট থেকে ঢাকার সদরঘাটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় ওই লঞ্চটি। এরআগে দেখা গেছে, করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও স্বাস্থ্য বিধি মানেনি বেশিরভাগ যাত্রী। অনেকে শুরুতেই সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে লঞ্চ যাত্রা শুরু করে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনেছে, এমন যাত্রী অল্প সংখ্যক। নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন সচেতন যাত্রীর অভিযোগ, লঞ্চে প্রবেশের আগে যাত্রীদের সুরক্ষার জন্য জীবাণুমুক্ত করার কোনো ব্যবস্থা করেননি লঞ্চ কর্তৃপক্ষ। এছাড়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিষয়ে যাত্রীদের কোনো পরামর্শ কিংবা পদক্ষেপ নেয়নি তারা। এদিকে লঞ্চ সংশ্লিষ্টরা বলছেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনেই লঞ্চে যাত্রী পরিবহণ করছেন তারা।

রাঙ্গাবালী-ঢাকা নৌরুটের এই লঞ্চটিতে যাত্রীদের কাউকে হাত ধুয়ায়ে, হাতে স্যানিটাইজ করে কিংবা জীবাণুণাশক স্প্রে করে প্রবেশ করাতে দেখা যায়নি। স্থানীয়রা বলছেন, এখন প্রতিদিনই ঢাকা-রাঙ্গাবালী নৌরুটে লঞ্চ চলাচল করবে। কিন্তু স্বাস্থ্য বিধি না মানলে পুরো উপজেলা করোনা ঝুঁকিতে পড়তে পারে বলে ধারণা করছেন তারা। অনেকেই বলছেন, হাসপাতালবিহীন এই উপজেলায় করোনা ভাইরাস সংক্রমণের বিস্তার ঘটলে মারাত্মক সংকটে পড়বে এখানকার মানুষ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাশফাকুর রহমান বলেন, ‘সামাজিক দূরত্ব না মানার বিষয়টি জানতে পেরে রাঙ্গাবালী থানার ওসি সাহেবকে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। পরে পুলিশ সেখানে গিয়ে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে লঞ্চ ছেড়েছে।’ রাঙ্গাবালী থানার ওসি আলী আহম্মেদ বলেন, ‘আমরা গিয়ে দেখেছি, যাত্রীরা সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেছে। লঞ্চটি সাড়ে ১১ টায় ছাড়ার কথা থাকলেও বাড়তি যাত্রী ওঠার সম্ভাবনা থাকায় নির্দিষ্ট সময়ের এক ঘন্টা আগেই আমরা ঘাট থেকে ছেড়ে দেয়ার নির্দেশ দেই। সে অনুযায়ী সাড়ে ১০ টায় লঞ্চটি ছেড়ে দেয়।’


আরো সংবাদ