২৬ নভেম্বর ২০২২, ১১ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

সোনাইমুড়ী বিএনপির নতুন কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক নিয়ে অসন্তোষ

-

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার বিএনপি কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক নিয়ে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। কমিটিতে হামলা মামলায় শিকার ত্যাগী নেতাদের অবমূল্যায়ন করে ‘দোআচলা’ লোককে উপজেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক করায় উপজেলার নেতা কর্মীদের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।
জানা গেছে, চলতি বছরের ১৭ জুলাই সোনাইমুড়ী উপজেলা বিএপির কমিটি অনুমোদন দেয় জেলা বিএনপি। আমিশাপাড়া ইউনিয়ন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও নবগঠিত সোনাইমুড়ী উপজেলা বিএনপির সদস্য আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, দলের যুগ্ম আহ্বায়ক লোকমান হোসেন দেশে থাকেন না। এ ছাড়া ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর লোকমান বিভিন্ন স্থানে প্রকাশ্যে খালেদা জিয়াকে বলেন, শেখ হাসিনার কাছ থেকে রাজনীতি শেখার জন্য। তখন থেকে এলাকায় থাকতেন না লোকমান। তিনি আরো বলেন, ত্যাগী ও হামলা মামলার শিকার সিনিয়র নেতাদের মুল্যায়ন না করে জেলা কমিটি তাকে কিভাবে উপজেলা যুগ্ম আহ্বায়ক করেছে আমরা বুঝতে পারছি না।
নবগঠিত উপজেলা বিএনপির সদস্য প্রফেসর একেএম আবদুল্লাহ বলেন, হামলা মামলার শিকার অনেক ত্যাগী নেতাকে স্থান না দিয়ে লোকমান হোসেনকে যুগ্ম আহ্বায়ক করাটা উচিত হয়নি। তার ব্যাপারে অনেকের আপত্তি রয়েছে।
সোনাইমুড়ী উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বয়াক শেখ মানিক বলেন, লোকমান দীর্ঘ ২১ বছর দেশে ছিলেন না। তিনি আমাদের গ্রেফতার করিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, তার কারণে দলকে শক্তিশালী করা যাচ্ছে না। নেতারা আরো বলেন, লোকমান হোসেন জাতীয় সংসদের নোয়াখালী-১ (সোনাইমুড়ী-চাটখিল) আসনের আওয়ামী লীগের এমপি এইচএম ইব্রাহিমের অনুসারী।


আরো সংবাদ


premium cement