৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯, ৩ রবিউল আওয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

পাইকগাছার জীর্ণ সেতু দিয়ে ৪ গ্রামের মানুষের চলাচল

পাইকগাছার মরা কুচিয়া নদীর ওপর জীর্ণশীর্ণ সেতু : নয়া দিগন্ত -

খুলনার পাইকগাছা উপজেলার সোলাদানা ইউনিয়নের মরা কুচিয়া নদীর ওপর নির্মিত সেতুটির মূল কাঠামো থেকে খসে পড়ছে পলেস্তরা। পানিতে অতিরিক্ত লবণাক্ততাসহ নানা সঙ্কটে সেতুটির অবস্থা এখন জীর্ণশীর্ণ। বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায় একপ্রকার বাধ্য হয়েই সেতুটি দিয়ে চলাচল করছে অন্তত চার গ্রামের হাজারো মানুষ। যেকোনো সময় সেতুটি ভেঙে বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা। এমন অবস্থায় সেতুটি পরিত্যক্ত ঘোষণার পাশাপাশি নতুন সেতু নির্মাণে সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকাবাসী।
জানা যায়, উপজেলার সোলাদানা ইউনিয়নের কুচিয়া নদীর দুই তীরের টেংরামারী, উত্তর কাইনমুখী, দক্ষিণ কাইনমুখী ও দিঘাসহ প্রত্যন্ত এলাকার বাসিন্দাদের চলাচলের সুবিধার্থে প্রায় ৩৫ বছর আগে সেতুটি নির্মাণ করেন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল মাজেদ সানা। দীর্ঘ দিনেও সংস্কার না করায় অতিরিক্ত লবণাক্ততার কারণে এরই মধ্যে ফাটল ধরেছে সেতুর খুঁটিগুলোতে। রেলিং ভেঙে পড়েছে তারও আগে। দৃশ্যত সেতুটির এখন কঙ্কালসার অবস্থা।
সোলাদানার উত্তর কাইনমুখী গ্রামের কিশোর মণ্ডল বলেন, ইউনিয়নব্যাপী জালের মতো ছড়িয়ে রয়েছে অসংখ্য ছোট-বড় নদী বা খাল। চার দিকে যতদূর চোখ যায় যেন পানি আর পানি। সড়কপথে যাতায়াতের জন্য এ সেতুটিই তাদের একমাত্র ভরসা। তবে মূল অবকাঠামো হারিয়ে সেতুটি এখন রীতিমতো ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় দাঁড়িয়ে রয়েছে। যেকোনো সময় ঘটতে পারে প্রাণঘাতী কোনো দুর্ঘটনা। দিঘার কল্লোল মণ্ডল জানান, সেতুটির এই করুণ পরিণতি আরো ১০ বছর আগের। সেই থেকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাধ্য হয়েই যাতায়াত করছেন তারা। উপজেলা সদরসহ স্কুল-কলেজে পৌঁছাতে সেতুটিই তাদের একমাত্র ভরসা। দক্ষিণ কাইনমুখীর বিজন মণ্ডল জানান, সেতুটি দিয়ে পণ্যবাহী যানবাহন চলাচল মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে।
সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান এস এম এনামুল হক জানান, তিনি চেয়ারম্যান থাকাকালে নতুন সেতুর প্রস্তাবনাসহ কাগজপত্র তৈরি করে উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলীর দফতরে পাঠিয়েছিলেন, সেটি এখনো পাস হয়নি।
বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল মান্নান গাজী বলেন, জনগুরুত্বপূর্ণ সেতুটি দিয়ে প্রতিদিন চার গ্রামসহ উপজেলার হাজারো মানুষ যাতায়াত করে। ঝুঁকিপূর্ণ সেতুটি পরিত্যক্ত ঘোষণার পাশাপাশি নতুন করে আরো একটি সেতু নির্মাণের দাবি এলাকাবাসীর। এ নিয়ে আগামী উপজেলা মাসিক উন্নয়ন সভায় বিষয়টি উত্থাপনের কথাও জানান তিনি।
পাইকগাছা উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান জানান, সাবেক চেয়ারম্যান এস এম এনামুল হক উপজেলা সমন্বয় সভায় একাধিকবার সেতুর বিষয়টি উত্থাপন করলেও সে সময় পর্যাপ্ত অর্থাভাবে বাস্তবায়ন সম্ভব হয়নি। বর্তমানে সেতুটির অবস্থা বিবেচনায় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে শিগগিরই সেতুটি বাস্তবায়নের আশ্বাস দেন তিনি।


আরো সংবাদ


premium cement