২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০ আশ্বিন ১৪২৯, ২৮ সফর ১৪৪৪ হিজরি
`
পৌরসভা ও এলজিইডির টানাহেঁচড়া

নেত্রকোনার পৌর সড়কগুলো খানাখন্দে বেহাল

নেত্রকোনা পৌরসভার প্রধান সড়কটির একাংশের অবস্থা : নয়া দিগন্ত -

নেত্রকোনা পৌরসভার সড়কের কর্তৃত্ব নিয়ে পৌরসভা ও এলজিইডির মধ্যে টানাহেচরায় সংস্কারের অভাবে অধিকাংশ সড়ক বেহাল হয়ে পড়েছে। পৌরবাসীকে এখন চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। পৌরসভার অধিকাংশ সড়ক চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়লেও জনগুরুত্বপূর্ণ এই দুই প্রতিষ্ঠান সংস্কারের উদ্যোগ না নেয়ায় জনভোগান্তি এখন চরমে পৌঁছেছে।
নেত্রকোনা পৌরসভা প্রায় তিন যুগ আগেই প্রথম শ্রেণীর পৌরসভায় উন্নীত হয়। পৌর ভবনের চাকচিক্য বৃদ্ধি এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ভাগ্যের চাকা ঘুরলেও এখন পর্যন্ত নাগরিক কোনো সুযোগ-সুবিধা পৌরবাসীর ভাগ্যে জোটেনি। দফায় দফায় অযৌক্তিকভাবে কয়েকশ’ গুণ পৌরকর বাগানো হলেও পৌর কর্তৃপক্ষ রাস্তাঘাট সংস্কারের কোনো উদ্যোগ না নেয়ায় শহরের প্রধান প্রধান সড়ক খানাখন্দে ভরে গেছে। বড় বড় গর্তে পড়ে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটছে। চলার পথে স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রী ও পথচারীরা ময়লা ও কাদা পানিতে পড়ে নাস্তানাবুদ হচ্ছে। এই বিব্রতকর পরিস্থিতিতে বাধ্য হয়ে মাঝপথে তাদেরকে বাড়ি ফিরে যেতে হচ্ছে। নেত্রকোনা পৌর এলাকার শিবগঞ্জ, মালনী, ইসলামপুর, ঋষিপাড়া-আমতলা রোড, পাটপট্টী মালনী রোড, নিখিল নাথ রোড, সাতপাই, রেলক্রসিং গাড়া রোড, সদর হাসপাতাল রোডসহ আরো একাধিক সড়ক সংস্কারের অভাবে বেহাল হয়ে পড়েছে। সংস্কারহীন অধিকাংশ সড়কের দায়ভার নিয়ে পৌরসভা ও এলজিইডির মধ্যে ঠেলাঠেলি চলছে। কোনো প্রতিষ্ঠানই দায়ভার নিতে চাচ্ছে না সংস্কারের ভয়ে।
ইসলামপুর, শিবগঞ্জ, মালনী হয়ে আটপাড়া সড়কটি দীর্ঘ দিন ধরে ইট-সুরকি উঠে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। পৌরসভা, এলজিইডি কোনো প্রতিষ্ঠানই সংস্কারের উদ্যোগ নিচ্ছে না। এর আশপাশে রয়েছে চন্দ্রনাথ কলেজ, ডায়বেটিক হাসপাতাল, আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, বিভিন্ন স্কুল, একাধিক মহিলা ও জামিয়া মাদরাসা। শিবগঞ্জ-মালনী সড়কে চলচল করতে অপারগ হয়ে অনেক বয়স্ক লোকজন ভয়ে এখন স্বেচ্ছায় নিজ গৃহেই বন্দী জীবনযাপন করছেন। সম্প্রতি ইসলামপুর মোড় থেকে আমতলা সড়কের পুনর্নির্মাণের কাজ শুরু করা হলেও অজ্ঞাত কারণে তা বন্ধ হয়ে গেছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সংস্কারের উদ্যোগ না নেয়ায় পৌরবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে।
শিবগঞ্জ রোডের বাসিন্দা অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম বলেন, জন গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি দীর্ঘ দিন ধরে চলচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। বাড়ি থেকে বের হয়েই কাদা পানি মাড়িয়ে আসা-যাওয়া ছাড়া কোনো উপায় নেই। একই এলাকার প্রবীণ জালাল উদ্দিন বলেন, রাস্তায় বড় বড় গর্ত হয়ে যে অবস্থা হয়েছে, তাতে বাড়ি থেকে বের হতে সাহস পাই না।
নেত্রকোনা পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুল হেলিম জানান, ইসলাম রোড থেকে আমতলা ও আটপাড়া সড়কটি এলজিইডির কর্তৃত্বাধীন। সংস্কারের জন্য তাদের অনুরোধ করা ছাড়া আমাদের করণীয় কিছু নেই। নেত্রকোনা এলজিইডির নির্বাহী প্রকোশলী আবদুর রহিম শেখ এ বিষয়ে জানান, জনগুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোকে প্রাধান্য দিয়ে পর্যায়ক্রমে আমরা সংস্কার কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।


আরো সংবাদ


premium cement