০২ অক্টোবর ২০২২, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯, ৫ রবিউল আওয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

নাজিরপুরে রাস্তা নির্মাণে ব্যবহার হচ্ছে পুরনো ইট

নাজিরপুরে রাস্তা তৈরিতে ব্যবহার করা হচ্ছে ভবনভাঙা ইট : নয়া দিগন্ত -

পিরোজপুরের নাজিরপুরে রাস্তা নির্মাণে ভবনের পুরনো ইট ব্যবহার করছেন ঠিকাদার। উপজেলার সদর ইউনিয়নের হরিপাগলাস্থ পরিষদ সংলগ্ন থেকে দীঘিরজান পর্যন্ত নির্মাণাধীন রাস্তার সাব বেইজ তৈরিতে এই ইট ব্যবহার করা হচ্ছে।
জানা গেছে, সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে ইউনুস অ্যান্ড ব্রাদার্স নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এলজিইডির আওতাধীন এক কোটি ১৬ লাখ ১৬ হাজার টাকা বরাদ্দের হরিপাগলা থেকে দাশের হাওলা মল্লিক বাড়ি পর্যন্ত এক কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে রাস্তাটির কাজ পায়। তারা কাজটি করাচ্ছে পিরোজপুরের অংশু শেখ নামের এক ঠিকাদারকে দিয়ে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, ইটের খোয়া ও বালু মিলিয়ে সাব বেজের কাজ করছেন শ্রমিকরা। সেখানে খোয়া হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে ভবন ভাঙা পুরনো ইট যাতে রয়েছে বালু-সিমেন্ট মাখানো। আবার কয়েক হাজার ইট স্তূপ করে রাখাও রয়েছে সেখানে। শ্রমিকদের কাছে এই ইট কার জানতে চাইলে তারা জানান, ইটগুলো রাস্তার কাজে ব্যবহারের জন্য সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার পাঠিয়েছেন।
উপজেলা প্রকৌশলী অফিস সূত্রে জানা গেছে, কোনো নির্মাণ বা সংস্কার কাজের দরপত্র গ্রহণকালে সেখানে থাকা পুরনো ইট বা মালামাল দরপত্রের সাথে ধরে দরপত্র প্রদান করা হলে শুধু ওই কাজেই পুরনো ইট বা মালামাল ব্যবহার করা যাবে। কিন্তু অন্য স্থান থেকে আনা কোনো পুরনো মালামাল ব্যবহার করার বিধান নেই।
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোশারেফ হোসেন খান জানান, ইটগুলো মেয়াদোত্তীর্ণ ভবনভাঙা ইট। এগুলো রাস্তার কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে দেখে স্থানীয়রা কাজে বাধা দিয়েছেন।
কাজের তদারকির দায়িত্বে থাকা উপজেলা এলজিইডির এসও গাফফার হোসেন জানান, ইটগুলো সরিয়ে ফেলতে বলা হচ্ছে।
উপজেলা প্রকৌশলী জাকির হোসেন মিয়া বলেন, নতুন ইট ব্যবহারের জন্য বরাদ্দ রয়েছে। পুরনো ইট ব্যবহারের কোনো সুযোগ নাই। ঠিকাদারকে তা সরিয়ে ফেলতে বলা হচ্ছে।
এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার অংশু শেখের সাথে কথা হলে তিনি জানান, সমস্যা নেই ইট সরিয়ে ফেরা হবে।

 


আরো সংবাদ


premium cement