২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯, ১ রবিউল আওয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`

শ্রীনগরে ১৫ কোটি টাকার সরকারি জায়গা বালুভরাট করে দখল!

শ্রীনগরে গণপূর্তের জায়গা বালু ভরাট করে দখল করা হচ্ছে : নয়া দিগন্ত -

শ্রীনগরে এবার গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের প্রায় ১৫ কোটি টাকা মূল্যের জলাশয় দখল করে বালু দিয়ে ভরাট করছেন পাটাভোগ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি রমিজউদ্দিন। শ্রীনগর-দোহার সড়কের মিল্কভিটা অফিসের উল্টো পাশে বেশ কয়েক দিন ধরে বিনা বাধায় তিনি এই ভরাট কার্যক্রম চালাচ্ছেন। এর আগে মিল্ক ভিটার পূর্বপাশে একই মন্ত্রণালয়ের আরেকটি জলাশয় ভরাট করে শ্রীনগরের চিহ্নিত ভূমিদস্যু সিন্ডিকেটের মূল হোতা দেলোয়ার হোসেন ওরফে হোটেল দেলোয়ার। পরবর্তীতে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হলে মুন্সীগঞ্জ গণপূর্ত বিভাগের লোকজন এসে দেলোয়ারের ভরাটকৃত জলাশয় নিজেদের দখলে নেয়। অবশ্য দেলোয়ার গংদের দাবি ছিল তারা জায়গাটি মুন্সীগঞ্জ জেলা পরিষদ থেকে লিজ নিয়েছেন। কিন্তু গণপূর্তের জায়গা জেলা পরিষদ কিভাবে লিজ দিলো এই প্রশ্নে গণপূর্ত বিভাগ নড়েচড়ে বসে।
অতি সম্প্রতি মিল্কভিটা অফিসসংলগ্ন এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, কুশরিপাড়া মৌজার আরএস ২নং খতিয়ানে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের নামে ৪১নং দাগে রেকর্ডকৃত এক একর ১০ শতাংশ পরিমাপের জলাশয়টি ভরাট চলছে।
গণপূর্তের জায়গা দখল করে বালু ভরাট বিষয়ে আওয়ামী লীগ নেতা রমিজ উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, জায়গাটি গণপূর্ণ মন্ত্রণালয়ের এটা সত্য। বালু যা ফেলেছি তা অন্যত্র সরিয়ে নেবো। তবে বাঁশ ও বেড়া দিয়ে আটকেছেন কেনো এমন প্রশ্নে তিনি কোনো উত্তর দেননি।
এ বিষয়ে বক্তব্য নেয়ার জন্য মুন্সীগঞ্জ জেলা গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী খায়রুজ্জামানের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলে নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়। পরে উপবিভাগীয় প্রকৌশলী নাজমুল হাসান হিরাকে একাধিকবার ফোন করা হলে তিনিও ফোন ধরেননি।

 


আরো সংবাদ


premium cement