১৮ মে ২০২২, ০৪ জৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩
`

ভালুকায় দেড় কোটি টাকা দামের বন বিভাগের জমি রেজিস্ট্রি!

-

ময়মনসিংহের ভালুকায় জালিয়াতির মাধ্যমে ভুয়া দাতা সাজিয়ে আমমোক্তার নিয়ে শ্রেণী পরিবর্তন ও কম মূল্য দেখিয়ে প্রায় দেড় কোটি টাকা মূল্যের ৫০ শতাংশ বনভূমিসহ ৮৩ শতাংশ জমি রেজিস্ট্রি দলিলমূলে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় বন আদালতে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে স্থানীয় বনবিভাগ জানিয়েছে।
রেজিস্ট্রিকৃত দলিল ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার খারুয়ালী গ্রামের মৃত ছালামত খানের ছেলে মাহবুব খান ২০১৮ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি মেহেরাবাড়ি মৌজার বনবিজ্ঞপ্তিত ৮২ নম্বর দাগে পাশের ত্রিশাল উপজেলার মৃত মনিন্দ্র চন্দ্র তরফদারের ছেলে গৌরাঙ্গ চন্দ্র তরফদার নামে এক ব্যক্তিকে ভুয়া দাতা সাজিয়ে তার ৫০ শতাংশ এবং আরো বেশ কয়েকজনকে ভুয়া দাতা সাজিয়ে আরো কয়েকটি দাগ উল্লেখ করে ৩৩ শতাংশ আমমোক্তার দলিল (নম্বর-১৪২৩) করে নেন। পরে বনবিজ্ঞপ্তিতে ওই জমিসহ ৮৩ শতাংশ জমি ২০২১ সালের ২৮ জুন ৫৬২১ নম্বর দলিলমূলে সদ্য সাবেক সাব-রেজিস্ট্রার বোরহান উদ্দিন সরকারকে দিয়ে শ্রেণী পরিবর্তন ও কম মূল্য দেখিয়ে দালিল লেখক ফাইজউদ্দিনের (সনদ নম্বর-৬৭২১) মাধ্যমে ঢাকার আলহাজ মিয়া মোহাম্মদ নূরুদ্দিন নামে এক ব্যক্তির কাছে ৫৪ লাখ টাকায় বিক্রি করে দেন।
এ ব্যাপারে জমির মালিক গৌরাঙ্গ চন্দ্র তরফদার তার সাথে প্রতারণার বিষয়টি স্বীকার করে জানান, মাহবুব খান নামে কাউকে তিনি চিনেন না। তিনি কারো কাছে ওই মৌজায় তার জমি আমমোক্তার দেননি।
অভিযুক্ত মাহবুব খানের কাছে মোবাইল ফোনে কথা বললে তিনি জানান, জমির মালিকদের কাছে থেকে রেজিস্ট্রি আমমোক্তার নিয়ে তিনি ঢাকার এক ব্যক্তির কাছে বিক্রি করেছেন। বিক্রয়কৃত জমির মধ্যে মেহেরাবাড়ি মৌজার ৮২ নম্বর দাগে ৫০ শতাংশ ভূমি বনবিজ্ঞপ্তিতে জমি কেমনে বিক্রি করলেন প্রশ্ন করা হলে তিনি ফোনটি কেটে দেন।
ভালুকা রেঞ্জের বন কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহিউদ্দিন জানান, মেহেরাবাড়ি মৌজার ৮২ নম্বর দাগে বনবিজ্ঞপ্তিতে ৫০ শতাংশ জমি বিক্রির ব্যাপারে দলিলের নকলসহ অন্যান্য কাগজপত্র সংগ্রহের কাজ চলছে। এ ব্যাপারে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
ভালুকার সদ্য সাবেক সাব-রেজিস্ট্রার বোরহানউদ্দিন সরকারের মোবাইল নম্বরে বারবার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ না করায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।


আরো সংবাদ


premium cement

সকল