২৪ জানুয়ারি ২০২২, ১০ মাঘ ১৪২৮, ২০ জমাদিউস সানি ১৪৪৩
`

বরগুনায় কৃষিজমিতে ইটভাটা অবাধে পুড়ছে বনের গাছ

-

বরগুনায় একের পর এক গড়ে উঠছে অবৈধ ইটভাটা। ড্রাম চিমনি ও পাজা নামক ইটভাটার ছড়াছড়ি। গ্রামের কৃষি জমিতেই নির্মিত হচ্ছে এসব অবৈধ ইটভাটা আর এতে জ্বলছে বনের ছোট ছোট গাছ। এতে বনজসম্পদ ধ্বংস হওয়ার পাশাপাশি দূষিত হচ্ছে পরিবেশ। হুমকির মুখে পড়েছে কৃষিজমি।
বরগুনার আমতলী উপজেলার কুকুয়া ইউনিয়নের রায়বালা গ্রামের দুই ফসলি জমিতে প্রশাসন ও পরিবেশ অধিফতরের অনুমতি ছাড়াই আল্লাহ দান ব্রিকস নামে একটি অবৈধ ড্রাম চিমনি ইটভাটা গড়ে তোলা হয়েছে। এ ছাড়া এই ভাটায় স্থানীয় এক ব্যক্তির জমি জোরপূর্বক দখল করে নেয়ার অভিযোগ রয়েছে। তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ভাটামালিক।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, এই ইটভাটা প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই গড়ে তোলা হয়েছে। এই ভাটা চালু হলে এলাকার কৃষিতে বিপর্যয় দেখা দেবে। আর ইটভাটা মালিক পক্ষ বলছেন ভাটার ইট পোড়ানোর আগুনে কৃষিজমির কোনো ধরনের ক্ষতি হবে না।
এ বিষয়ে আমতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ক এস কে এম আব্দুল্লাহ বিন রশিদ নয়া দিগন্তকে বলেন, নতুন করে ইটভাটা নির্মাণের জন্য আমার কাছ থেকে কোনো অনুমতি নেয়া হয়নি। আর ওই এলাকায় নতুন ইটভাটা নির্মাণ করা হয়েছে কিনা তা আমার জানা নাই। অনুমতি ছাড়া নির্মিত করা ইটভাটার বিরুদ্ধে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
পরিবেশ অধিফতর বরিশাল কার্যালয়ের সূত্রে জানা যায়, আমতলী উপজেলায় নতুন করে কোনো ইটভাটা নির্মাণের জন্য অনুমতি দেয়া হয়নি। নতুন করে কোনো ইটভাটা নির্মাণ করা হলে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।
সরেজমিন দেখা গেছে, আমতলী উপজেলার কুকুয়া ইউনিয়নের রায়বালা গ্রামে ১১ একর কৃষি জমির ওপর অবৈধ (ড্রাম চিমনি) ইটভাটা গড়ে তোলা হচ্ছে। এই ভাটার ইট পোড়ানোর জন্য ভাটার পাশে কাঠ স্তূপ করে রাখা হয়েছে।
স্থানীয় বাসিন্দা আবুল হোসেন বলেন, এ ইটভাটার চার পাশে রয়েছে বিস্তীর্ণ ধানক্ষেত। নতুন ইটভাটায় ইট পোড়ানোও শুরু হলে ক্ষতিকর ধোঁয়ায় কালো হয়ে উঠবে চার দিক। শ্বাসকষ্ট ও হাঁপানিসহ নানা রোগে আক্রান্ত হবে মানুষ। এলাকার বাসিন্দা সালাম বলেন, এ এলাকার গাছপালাগুলো খুব দ্রুত মারা যাবে।
আবুল হোসেন চৌকিদার নামের রায়বালা গ্রামের এক বাসিন্দা বলেন, আল্লাহর দান ব্রিকসের মালিক আমার বাবার ছয় একর জমি জোরপূর্বক দখল করে নিয়েছেন। আমরা আদালতে মামলা করলে আদালত ইটভাটা নির্মাণে নিষেধাজ্ঞা দেন। কিন্তু তিনি তা না মেনে আমাদের জমিতে ইটভাটা গড়ে তোলছেন।
আমতলী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সিএম রেজাউল করিম বলেন, কৃষিজমিতে নতুন ইটভাটা নির্মাণ করার বিষয়টি আমার জানা নেই। ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৩ অনুযায়ী দুই ফসলি কৃষি জমিতে ইটভাটা স্থাপন সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।
জানতে চাইলে অভিযুক্ত আল্লাহর দান ব্রিকস মালিক নুরুজ্জামান বলেন, এই ভাটা নির্মাণের জন্য এখন পর্যন্ত কোনো অনুমতিপত্র পাইনি। অনুমতির জন্য আমরা চেষ্টা করছি।
বরগুনা জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান বলেন, জেলা প্রশাসনের কাছ থেকে নুতন ইটভাটা নির্মাণের জন্য কোনো অনুমতি নেয়া হয়নি। আর ড্রাম চিমনি নির্মাণের কোনো অনুমতিতো দেয়াই হয়নি। কেউ এ ধরনের ইটভাটা নির্মাণ করলে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।
এ বিষয়ে পরিবেশ অধিদফতর বরিশাল কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক তোতা মিয়া বলেন, আমতলীতে নতুন কোনো ইটভাটা নির্মাণের কোনো ছাড়পত্র দেয়া হয়নি। আমতলীতে ছাড়পত্র ছাড়া যদি কোনো ইটভাটা নির্মাণ করা হয় তাহলে ভাটা সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরো সংবাদ


premium cement