২৬ জানুয়ারি ২০২২, ১২ মাঘ ১৪২৮, ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩
`
রঙ সুতার দাম দ্বিগুণ

পাবনা-সিরাজগঞ্জে ৬ লাখ তাঁতের ৪ লাখ বন্ধ

পাবনার জালালপুরে বন্ধ হয়ে যাওয়া একটি তাঁতশিল্প: নয়া দিগন্ত -

কাঁচামালের অব্যাহত দাম বৃদ্ধির প্রভাবে লোকসানে বন্ধ হচ্ছে তাঁত। পাবনা-সিরাজগঞ্জের ছয় লাখ তাঁত কারখানার মধ্যে প্রায় চার লাখ তাঁত বন্ধ হয়ে গেছে। এভাবে লোকসানের ধারবাহিকতা বজায় থাকলে বাকি দুই লাখ তাঁতও বন্ধ হয়ে যাবে। পথে বসার উপক্রম হয়েছে সংশ্লিষ্টদের। অনেকে অন্য পেশায় নিয়োজিত হচ্ছে।
পাবনা-সিরাজগঞ্জের তাঁতিদের সাথে কথা বলে জানা যায়, করোনার পর গত তিন-চার মাসে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সুতার দাম। সুতার দাম ইতোমধ্যে ৭০ থেকে ৮০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। একই সথে বাড়ছে রঙ, কেমিক্যালসহ তাঁত কারখানার সব কাঁচামালের দাম। কাঁচামাল ও কেমিক্যালের দাম বৃদ্ধি পেলেও বাড়েনি তাঁত কাপড়ের দাম। এ অবস্থায় লোকসান দিয়ে ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে পারছেন না তাঁতিরা। বিভিন্ন ব্যাংক এনজিওর লোন তাদের গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে।
বর্তমানে প্রতি পাউন্ড ৮০ কাউন্ট সুতা বিক্রি হচ্ছে ৩৫০ থেকে ৩৭০ টাকা। অথচ কয়েক মাস আগে এই সুতার দাম ছিল কাউন্ট প্রতি মাত্র ১৮০ থেকে ২০০ টাকা। একইভাবে প্রতি পাউন্ড ৬০ কাউন্ট সুতা বিক্রি হচ্ছে ২৩০ থেকে ২৪০ টাকা। যা কয়েক মাস আগে বিক্রি হয়েছে ১৫০ থেকে ১৫৫ টাকা। এ ছাড়া প্রতি পাউন্ড ৪০ কাউন্ট সুতা বিক্রি হচ্ছে ১৯০ থেকে ২০০ টাকা। যা কয়েক মাস আগেও বিক্রি হয়েছে ১২০ থেকে ১৩০ টাকা। করোনা-পরবর্তী গত কয়েক মাসে সুতার দাম কয়েক দফায় বৃদ্ধি পেয়ে এখন নাগালের বাইরে চলে গেছে। সুতার দামের পাশাপাশি রঙের দাম বেড়েছে প্রায় দিগুণ। পাঁচ হাজার টাকার চীনা রঙ এখন ৯ হাজার টাকা কেজিতে কিনতে হচ্ছে। সেই সাথে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় পরিবহন ব্যয়ও বেড়েছে। ফলে পণ্য বিক্রি করে উৎপাদন খরচ উঠাতে পারছে না তাঁতিরা। ব্যবসা গুটিয়ে নেয়া ছাড়া কোনো উপায় দেখছেন না তারা।
পাবনা সদর উপজেলার তাঁতের জন্য বিখ্যাত অঞ্চল জালালপুর। এক সময়ের প্রতিষ্ঠিত তাঁত কারখানার মালিক বুলবুল হোসেন বলেন, আমার ৪০টি তাঁতের প্রায় সবগুলো বিক্রি করে ঘর ফাঁকা করেছি। ব্যবসা পরিবর্তন করব। কি ব্যবসা করা যায় সেটাই ভাবছি। কারণ কারখানা চালালে দুই দফায় লোকসানের সম্মুখীন হতে হবে। চড়া দামে সুতা ও রঙ কিনে কাপড় তৈরি করে লোকসান দিয়ে বাজারে বিক্রি করতে হবে। একই সাথে ঋণের কিস্তি পরিশোধ করতে হবে। সে কারণে কারখানা বিক্রি করে লোন পরিশোধের পাশাপাশি নতুন ব্যবসার চেষ্টা করছি।
তাঁত ব্যবসায়ী আজিজুল হাকিমের বলেন, ‘২৪টি তাঁতের মধ্যে ইতোমধ্যে ১২টি তাঁত বন্ধ করে দিয়েছি। ১২টি তাঁত কোনো রকমে চালাতে হচ্ছে লোকসান দিয়েই।’ তাঁত কারখানার পাশে একটি মুদি দোকান দিয়ে জীবিকা নির্বাহের বিকল্প দেখছেন তিনি।
জালালপুর তাঁতিপাড়ায় সর্বত্রই একই অবস্থা। জালালপুরের পাঁচ হাজার তাঁতের মধ্যে এখন মাত্র দেড় থেকে দুই হাজারের মতো তাঁত চলছে। অন্যরা পথে বসে গেছে। একদন্তের চাচকিয়ার তাঁত শ্রমিক শামীম বলেন, আমি যে কারখানায় কাজ করতাম সেখানে ৩৪টি তাঁতের বেশির ভাগই বন্ধ হয়ে গেছে। অনেক শ্রমিক বেকার হয়েছে। মালিক বলেছেন, দ্রুতই বাকিগুলোও বন্ধ হয়ে যাবে।
সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের পুরানো তাঁতি আবদুল মমিন বলেন, বর্তমানে ৮০ কাউন্ট সুতার এক থান তাঁতের কাপড় (চারটি লুঙ্গি) তৈরি করতে খরচ হচ্ছে প্রায় আড়াই হাজার টাকা। অথচ বাজারে বিক্রি হচ্ছে সর্বোচ্চ দুই হাজার ৪০০ টাকা। সুতার দাম ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ বৃদ্ধি পেলেও কাপড়ের দাম বেড়েছে থান প্রতি ১০০ থেকে ২০০ টাকা।
পাবনা ডিসেন্ট লুঙ্গির মালিক আবদুর রহমান জানান, আগের চেয়ে আমাদের বিক্রি কমে গেছে। সব কিছুর দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় সাধারণ মানুষ আগের মতো কাপড় কিনছে না।
বাংলাদেশ হ্যান্ডলুম অ্যান্ড পাওয়ারলুম মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি হায়দায় আলী বলেন, দেশের অন্যতম বৃহত্তম তাঁত সমৃদ্ধ এলাকা পাবনা ও সিরাজগঞ্জের ছয় লাখ তাঁতের মধ্যে এখন প্রায় চার লাখ তাঁতই বন্ধ হয়ে গেছে। এ অবস্থা চলতে থাকলে বাকি তাঁতগুলো যেকোনো সময় বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা আছে। আন্তর্জাতিক বাজারে তুলার দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় সুতার দাম হু হু করে বাড়ছে। পাশাপাশি সুতার বাজার নিয়ন্ত্রণ করছে মাত্র কয়েকটি আমদানিকারক অ-স্পিনিং মিল। ফলে প্রান্তিক তাঁতিদের স্বার্থ সংরক্ষণ হচ্ছে না। সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা না পেলে এই ব্যবসা মুখ থুবড়ে পড়বে।


আরো সংবাদ


premium cement
সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রথম রাষ্ট্রীয় সফরে যাচ্ছেন ইসরাইলের প্রেসিডেন্ট অনশন ভাঙলেন শাবি শিক্ষার্থীরা বাবা হলেন যুবরাজ সিং বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস আরো হ্রাস করলো আইএমএফ বাংলাদেশ-রাশিয়া অংশীদারিত্ব দুই দেশের অভিন্ন স্বার্থ পূরণ করে : সের্গেই লাভরভ কূটনৈতিক সম্পর্কের সুবর্ণজয়ন্তী : রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা পুতিনের পুতিনের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে : বাইডেনের হুমকি ট্রেনের ধাক্কায় ৩ শ্রমিক নিহত আরো একবার ওমিক্রনের তাণ্ডব দেখল বিশ্ব আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা শাবিপ্রবির শিক্ষার্থীদের ২৪ বছর পরে পূর্ণ শক্তি নিয়েই পাকিস্তান সফরে যাবে অস্ট্রেলিয়া

সকল