২৩ এপ্রিল ২০২১
`

নবাবগঞ্জে টোলের নামে চাঁদাবাজি

নবাবগঞ্জের বান্দুরায় সেতুর ওপর ইজিবাইক দাঁড় করিয়ে চাঁদা তোলা হচ্ছে : নয়া দিগন্ত -

ঢাকার নবাবগঞ্জের বান্দুরায় ইজারা আইন উপেক্ষা করে বাসস্ট্যান্ড সড়ক ও সেতুর ঢাল থেকে টোল আদায়ের নামে চলছে চাঁদাবাজি। প্রশাসনের বিধিনিষেধের তোয়াক্কা না করে ক্ষমতাসীন দলের বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নাম ব্যবহার করে কিছু ব্যক্তি এই চাঁদাবাজি করছে বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা।
অনুসন্ধানে জানা যায়, উপজেলার বান্দুরা ইউনিয়নের পুরনো বান্দুরা বাজারের পূর্বপাশের পুরনো বান্দুরা লঞ্চঘাট এলাকার ২১ শতাংশ খাসজমি ইজারা নিয়েছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা হুমায়ুন কবির। নিয়মানুযায়ী তিনি শুধু নির্দিষ্ট জায়গার টোল তুলতে পারবেন। কিন্তু নিয়মনীতি না মেনে পাশের বান্দুরা সেতুর ওপর থেকে নিয়মিত টোল আদায় করছেন।
জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ নেতা হুমায়ুন কবির বলেন বলেন, ইজারা চুক্তি অনুযায়ী বাসস্ট্যান্ড সড়ক ও সেতুর ঢাল থেকে টোল আদায় অবৈধ। তিনি বলেন, স্থানীয় একটি চক্র এ চাঁদাবাজির সাথে জড়িত। আমি বারবার নিষেধ করলেও তারা শোনেনি। সংবাদকর্মীরা প্রয়োজনে প্রশাসনে জানাতে পারেন।
সরেজমিন দেখা যায়, তিনজন যুবক হাতে কলম নিয়ে টাকা আদায় করছেন। সেতুর ওপর ইজিবাইকগুলো থামিয়ে টাকা ওঠানোর ফলে সৃষ্টি হচ্ছে দীর্ঘ যানজট। তবে সেদিকে খেয়াল নেই টাকা আদায়কারী যুবকদের। কেউ টাকা দিতে দেরি করলে বা রাজি না হলে তর্কাতর্কি, ধমকা-ধমকি শেষে লাঞ্ছিত পর্যন্ত করা হয় বলে অভিযোগ করেছেন ইজিবাইক চালকরা।
চাঁদা আদায়কারী একজনের সাথে কথা হলে জানান, প্রতিদিন সেতুর ওপর থেকে তিন-চার হাজার টাকা ওঠে। সে হিসাবে মাসে লক্ষাধিক টাকা আসে। তারা মামুন ও সাগর নামে দুই বড় ভাইয়ের কথা বলেন। তারা তাদের টাকা ওঠানোর দায়িত্ব দিয়েছেন। সেতুতে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত তিনজন টাকা তোলেন। বিনিময়ে এ কাজের জন্য প্রতিদিন তাদের ৩০০ টাকা করে বেতন দেয়া হয়।
মূলত এ কাজের প্রধান এন মল্লিক পরিবহনের বান্দুরা বাসস্ট্যান্ড কন্ট্রোলার সেন্টু পত্তনদার। তিনি মোবাইল ফোনে বলেন, এন মল্লিক পরিবহনের কর্ণধার নার্গিস মল্লিকের ইজারাদার। তার নির্দেশে টোল তোলা হচ্ছে। বিষয়ে জানতে নার্গিস মল্লিকের সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এইচ এম সালাউদ্দিন মনজু বলেন, ইজারা দেয়া জমির বাইরে বাসস্ট্যান্ড কিংবা সড়ক থেকে টোলের নামে টাকা নেয়া ইজারাবিধান সম্পূর্ণ লঙ্ঘন। এ বিষয়ে খোঁজ নেয়া হবে বলে তিনি জানান।



আরো সংবাদ