০৪ মার্চ ২০২১
`

কোটচাঁদপুরে ২ বিদ্রোহী প্রার্থী নিয়ে বিপাকে আ’লীগ

-

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নবঞ্চিত দুই বিদ্রোহী মেয়রপ্রার্থী নিয়ে টেনশনে রয়েছে আওয়ামী লীগ। এ নিয়ে নেতৃবৃন্দ দেনদরবার করছেন। আওয়ামী লীগ প্রার্থীসহ তিন মেয়রপ্রার্থী অনড় অবস্থানে থেকে নির্বাচনী তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনেও কোনো মেয়রপ্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি। এখানে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন শাহাজান আলী । অপর দুই প্রার্থী হলেন (স্বতন্ত্র) পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সহিদুজ্জামান সেলিম ও বর্তমান মেয়র (আওয়ামী লীগ সদস্য) জাহিদুল ইসলাম। সবাই ভোট ও দোয়া চাইছেন বাড়ি বাড়ি গিয়ে।
আওয়ামী লীগ প্রার্থী দলীয় প্রতীক নৌকা মার্কায় ভোট প্রার্থনা করছেন। প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার ১০ জানুয়ারি ও প্রতীক বরাদ্দের দিন ১১ জানুয়ারি। এ অবস্থায় আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দলের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী সহিদুজ্জামান সেলিম ও বর্তমান মেয়র জাহিদুল ইসলামকে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের নির্দেশনা জানাতে ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুল হাই এমপি ও সাধারণ সম্পাদক ঝিনাইদহ পৌর মেয়র সাইদুল করীম মিন্টুসহ নেতৃবৃন্দ গত ৬ জানুয়ারি বর্ধিত সভা ডেকে দিনভর কোটচাঁদপুরে অবস্থান করেন। কিন্তু ওই দুই প্রার্থী এ মিটিং বর্জন করলে শেষ পর্যন্ত নেতৃবৃন্দ মোবাইল ফোনে তাদের সাথে যোগাযোগ চেষ্টা করে বিফল হয়ে ফিরে যান। এখন মনোনয়নপত্র প্রত্যাহরের শেষ দিন ১০ জানুয়ারিও যদি তারা মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করেন তবে এ দুই প্রার্থী দল থেকে বহিষ্কার হতে পারেন বলে দলের সিনিয়র নেতা পৌর আওয়ামী লীগ আহ্বায়ক অধ্যাপক ফারজেল হোসেন মণ্ডল জানিয়েছেন। আর এতে করে এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগে গ্রুপিং জোরদার হবে ।
নৌকার প্রার্থী শাহাজান আলীর পক্ষে বর্তমান এমপি শফিকুল আজম খান ও সহিদুজ্জামান সেলিমের পক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি শরিফুন্নছা মিকি অবস্থান নিয়েছেন। সহিদুজ্জামান মোবাইলে জানান, তিনি নির্বাচন থেকে সরে আসবেন না। সুষ্ঠু ভোট হলে তিনি বিজয়ী হবেন।
এ দিকে সাবেক মেয়র এস কে এম সালাহউদ্দিন বুলবুল সিডল বিএনপির একমাত্র প্রার্থী হওয়ায় দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা ভারমুক্ত। দলীয় পর্যায়ে বিভেদ থাকলেও এ নির্বাচনে তার একাট্টা।



আরো সংবাদ