০২ ডিসেম্বর ২০২০

বগুড়ায় আবাসিক এলাকায় পেট্রল পাম্প

-

বগুড়ার বিভিন্ন স্থানে আবাসিক এলাকায় গড়ে উঠেছে অবৈধ পেট্রল পাম্প। পাম্প উচ্ছেদে বিভিন্ন দফতরে অভিযোগ করা হলেও স্থানীয় প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না। এতে যেকোনো সময় দুর্ঘটনার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।
বগুড়ার প্রতিটি উপজেলায় বৈধ পেট্রল পাম্পের পাশাপাশি জেলাজুড়ে ৩০টি অবৈধ পেট্রল পাম্প রয়েছে। এসব স্থানে সরকারের তেল কোম্পানির অনুমোদন না নিয়ে আন্ডার গ্রাউন্ড ট্যাংকি বসিয়ে দেদারছে জ্বালানি তেল বিক্রি করছে। এ ছাড়া জেলা প্রশাসকের অনাপত্তিপত্র ও বিস্ফোরক অধিদফতরের কোনো অনুমতি নেই। এতে এক দিকে যেমন দুর্ঘটনার ঝুঁকি রয়েছে তেমনি বৈধ পাম্প মালিকরা ব্যবসায়িকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন এবং সরকারও বিপুল রাজস্ব হারাচ্ছে।
গাবতলী উপজেলার প্রধান সড়কের পাশে গড়ে তোলা হয়েছে অবৈধ পেট্রল পাম্প। উপজেলার নারুয়ামালা বাজারে জামি ট্রেডার্স, কলেজ রোডে আটাপাড়া বাজারে বিসমিল্লাহ ট্রেডার্স, নেপালতলী বাজারে মেসার্স সমীর অ্যান্ড সাফি ফিলিং স্টেশন, গোলাবাড়ি বাজারের মেসার্স নুরুল ইসলাম অ্যান্ড সন্সসহ আরো কয়েকটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে, যা খুবই ঝুঁকিপূর্ণ।
জামি ট্রেডার্স নিজ বাড়িতে জ্বালানি তেলের পাশাপাশি সিলিন্ডার গ্যাসও বিক্রি করেন। দোতলা বাড়ির নিচ তলার এক পাশে দু’টি ডিসপেন্সার বসিয়ে পেট্রল পাম্প বানিয়ে জ্বালানি তেল বিক্রি করা হচ্ছে। অথচ এলাকাটি আবাসিক এলাকা। বিসমিল্লাহ ট্রেডার্সও একইভাবে জ্বালানি তেল বিক্রি করছে। নেই পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা। পদ্মা, যমুনা ও মেঘনা অয়েল কোম্পানির কাছ থেকে কোনো অনুমোদনও নেয়া হয়নি। অনুমোদন না নিয়েই ইচ্ছামতো তেল বিক্রি করছে।
২০১৬ সালের ৯ সেপ্টেম্বর শিবগঞ্জের কিচক বাজারে নওশিন এন্টারপ্রাইজের একটি অবৈধ পেট্রল পাম্প বিস্ফোরিত হয়ে পুরো একটি মার্কেটের দোকানপাট পুড়ে যায়। এ নিয়ে গাবতলী উপজেলার পদ্মা অয়েল কোম্পানির কয়েকজন ডিলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, তেল কোম্পানি বরাবর অভিযোগ করেছেন।
গাবতলী উপজেলার নারুয়ামালা বাজারের জামি ট্রেডার্সের মালিক আবু বকর সিদ্দিক জানান, তিনি অনুমোদন পাওয়ার জন্য পদ্মা অয়েল কোম্পানিতে আবেদন করেছেন। এখনো অনুমোদন পাননি।
পদ্মা অয়েল কোম্পানির রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের বগুড়াস্থ কার্যালয়ের সহকারী মহাব্যবস্থাপক মজিবুর রহমান বলেন, অবৈধ পাম্প মালিকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ পায়েছি। পদ্মা-মেঘনা ও যমুনা অয়েল কোম্পানির পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে জানিয়েছি।


আরো সংবাদ