০১ ডিসেম্বর ২০২০

রাজাপুরে আমনে পোকার আক্রমণে দিশেহারা কৃষকরা

-

ঝালকাঠির রাজাপুরে মৌসুমের শুরুতেই কয়েক দফা বন্যা, অতিবৃষ্টিতে বীজতলা নষ্ট, রোপণ করা আমনের চারা পচে যাওয়াসহ নানা সঙ্কটের মধ্যে এবার আমন ধানে খোলপচা ও পাতামোড়া রোগ এবং পোকার আক্রমণ দেখা দিয়েছে। ফসল রক্ষায় কীটনাশক দিয়েও ফল পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করেছেন কৃষকরা। একইভাবে ধানে ইঁদুরের উপদ্রবও বেড়েছে বলে জানিয়েছেন তারা।
উপজেলার শুক্তাগড় ইউনিয়নের ঘিগড়া গ্রামের কৃষক আক্কাস আলী তালুকদার জানান, ৯ কাঠা জমিতে পাতামোড়া ও খোলপচা রোগ দেখা দিয়েছে। তিনি মরা ধানের ছোপা ও মোড়ানো পাতার ভেতরে পোকার অসংখ্য সাদা ডিম বের করে দেখিয়ে বলেন, ওই ডিম থেকে ছোট ছোট লম্বাকৃতির পোকা হওয়ায় ধানের পাতা মরে যায়। দোকানদারের পরামর্শে কীটনাশক ওষুধ স্প্রে করেছেন, তাতেও তেমন কাজ হচ্ছে না বলে জানান তিনি।
কাঠিপাড়া গ্রামের কৃষক চান মিয়া জানান, তিনি দেড় বিঘা জমিতে আমন আবাদ করেছেন। কয়েক দিন ধরে তার ক্ষেতে খোলপচা ও পাতামোড়া রোগ দেখা দিয়েছে। উপজেলা কৃষি অফিসে গিয়ে পরামর্শ নিয়ে কীটনাশক স্প্রে করায় এখন কিছুটা পানোজ (চেহারার পরিবর্তন) ফিরছে। একই গ্রামের পরিমল মণ্ডল জানান, তিন বিঘা জমিতে আমন ধানের চাষ করেছি। প্রায় মাসখানেক আগে সার দিয়েছি। বীজ এখন ঘন সবুজ আকৃতির হয়ে ওঠা শুরু করছে। কয়েক দিনের মধ্যেই থোড় (ধানের ছড়ার প্রাথমিক অঙ্কুর) আসবে। এখন পাতা মোড়ানো ও খোল পচা রোগ দেখা দিয়েছে। কৃষি অফিসের লোকজন আমাদের কাছে না আসায় উপজেলায় গিয়ে পরামর্শ নিয়ে কীটনাশক স্প্রে করতে হচ্ছে।
স্থানীয় কৃষক আব্দুল মালেক জানান, তিনি ২০ কাঠা জমিতে আমন আবাদ করেছেন। পোকায় ধানের ক্ষতির পাশাপাশি কয়েক দিন ধরে ক্ষেতে ইঁদুরের উপদ্রব দেখা দিয়েছে। ধানের গোছার মধ্য থেকে দু-তিনটি করে চটা কেটে ফেলে চলে যায় ইঁদুরের দল।

 


আরো সংবাদ