০১ অক্টোবর ২০২০

সুদকারবারিদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ চিতলমারীবাসী

-

শত শত পরিবার গ্রামছাড়া : ভিটেমাটি হারিয়ে নিজের জমিতেই বর্গাচাষি
ষ এস এস সাগর চিতলমারী (বাগেরহাট)
‘প্রথমে ওরা এসে ভাব জমায়। খাতির করে। পরে দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে টাকা ধার দেয়। সময় মতো সেই টাকা পরিশোধ না করলে চড়া সুদে পরিণত হয়। শুরু হয় সপ্তাহিক ও মাসিক হিসেবে সুদ গোনা। ধারকৃত টাকার ২ থেকে ৩ গুণ শোধ করলেও পরিশোধ হয় না আসল টাকা। বিক্রি করতে হয় ভিটেমাটি, বাড়ি, গাড়ি ও সহায়-সম্বল। এতেও সুদকারবারিরা ক্ষান্ত হয় না। শেষ পর্যন্ত তাদের লোলুপ দৃষ্টি পড়ে ঘরের মেয়ে-বউদের ওপর। আর এই টাকা আদায় করতে সুদকারবারিদের রয়েছে শক্তিশালী ‘আদায়কারী’ বাহিনী। তাই তো বাগেরহাটের চিতলমারীতে অত্যাচার-নির্যাতনে একের পর এক আত্মহত্যার ঘটনা ঘটছে। দুঃখভরা কণ্ঠে এমনটাই জানালেন সুদের দায়ে সব হারানো প্রকাশ বালা।
উপজেলার চরবানিয়ারী ইউনিয়নের সাবেক সদস্য খড়মখালী গ্রামের হরেকৃষ্ণ বালার ছেলে প্রকাশ বালা (৩২) আরো জানান, বছর ৩-৪ আগে অতিবর্ষণে তার চিংড়িঘের তলিয়ে সব মাছ ভেসে যায়। মাছের খাবারের দোকানে দেনা হয়ে পড়েন। ভালোবাসার ভাব দেখিয়ে এক সুদকারবারি ৫০ হাজার টাকা ধার দেয়। কিছ ুদিন পর টাকা ফেরত চায় ওই কারবারি। দিতে না পারায় মাথায় ওঠে সুদের বোঝা। ওই টাকা পরিশোধ করতে আরো ৪-৫ জনের সুদের জালে জড়িয়ে পড়েন। এক বছরের মাথায় তার আনা দেড় লাখ টাকার সুদ হয় ১০ লাখ টাকা। শুরু হয় সুদকারবারি ও তাদের আদায়কারী বাহিনীর অত্যাচার-নির্যাতনের স্টিমরোলার। তাদের নির্মমতায় পালিয়ে যান বাড়িঘর ফেলে। কিন্তু এভাবে কত দিন। সুদকারবারিদের সাথে আপসরফা করতে বিক্রি করে দেন চিতলমারী বাজারে পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া দোকানঘর ও জায়গা-জমি। এখন সব হারিয়ে তিনি নিজের জমিতেই বর্গাচাষি।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক ব্যক্তি জানান, সুদকারবারিদের নির্যাতনে চিতলমারীর হাজার খানেক পরিবার ভিটেমাটি, জায়গা-জমি ও গাড়ি-বাড়ি হারিয়ে আজ নিঃস্ব। এ ছাড়া সুদকারবারিদের অত্যাচারের স্টিমরোলারের চাপ সইতে না পেরে বাপ-দাদার ভিটেমাটি ফেলে পালিয়েছে শত শত পরিবার। এ উপজেলায় সদর থেকে প্রত্যন্ত পল্লী পর্যন্ত বিভিন্ন ক্যাটাগরির দুই শতাধিক সুদকারবারি রয়েছে। এর বাইরে দেপাড়া, বাগেরহাট, বেসরগাতি ও গজালিয়ার বহু লোক চিতলমারীর বিভিন্ন এলাকায় সুদ কারবার চালায়।
এখানে সুদের দেনার চাপ সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেন কালশিরা গ্রামের ভাস্কর্য শিল্পী রাম প্রসাদ মালাকার, রুইয়ারকুল গ্রামের সনজিত ব্রক্ষ্ম, সুরশাইল গ্রামের মাওলানা হারুন। সর্বশেষ গত ২০ জুলাই সুদখোরদের নির্মম অত্যাচার-নির্যাতন সইতে না পেরে স্কুলশিক্ষিকা হাসিকনা বিশ্ব আত্মহত্যা করেন।
এ ব্যাপারে চিতলমারী থানার ওসি মীর শরিফুল হক জানান, সুদ ও মাদককারবারিদের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ইতোমধ্যে পুলিশ দুই সুদকারবারিকে গ্রেফতার করেছে। চিতলমারী থেকে সুদ ও মাদক উচ্ছেদ করা হবে।
তবে চিতলমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মারুফুল আলম জানান, স্কুলশিক্ষিকার আত্মহত্যার ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী অভিযানে নেমেছে। এ ছাড়া অবৈধভাবে অর্থলগ্নিকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে।


আরো সংবাদ

বাংলাদেশ কখনই জঙ্গিবাদকে প্রশ্রয় দেয়নি, দেবেও না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কুয়েতের আমিরের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক অভাবের তাড়নায় সন্তান বিক্রি করে মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা বিএনপি নেতা লুৎফর রহমান মিন্টুর জানাজা ও দাফন সম্পন্ন করোনায় টিএমএসএসের নির্বাহী পরিচালক হোসনে আরার মায়ের মৃত্যু ইবতেদায়ি মাদরাসা জাতীয়করণের দাবিতে মানববন্ধন আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ আইসিইউতে চিকিৎসাধীন সংগ্রাম সম্পাদক আবুল আসাদকে মুক্তি দিন : অ্যামনেস্টি নারী নির্যাতনের অভিযোগে চট্টগ্রামে ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি গ্রেফতার জাহালমকে ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশ আজ থেকে ও লেভেল-এ লেভেল পরীক্ষায় কোনো বাধা নেই

সকল

সুবিধাজনক অবস্থায় আজারবাইজান, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির শিকার আর্মেনিয়রা (১৯২৯১)আর্মেনিয়ান রেজিমেন্ট ধ্বংস করলো আজারবাইজান, শীর্ষ কমান্ডারের মৃত্যু (১৪১০৪)আর্মেনিয়া-আজারবাইজান তুমুল যুদ্ধ, নিহত বেড়ে ৯৫ (১৩০২৮)আজারবাইজানের সাথে যুদ্ধ : ইরান দিয়ে আর্মেনিয়ার অস্ত্র বহনের অভিযোগ সম্পর্কে যা বলছে তেহরান (৭৪২৯)স্বামীকে খুঁজতে এসে সন্তানের সামনে ধর্ষণের শিকার মা (৭২৯২)আজারবাইজান-আর্মেনিয়ার যুদ্ধের মর্টার এসে পড়লো ইরানে (৭২১৭)এমসি কলেজে গণধর্ষণ : স্বামীর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে ধর্ষকরা (৬৪১৯)এমসি কলেজে গণধর্ষণ : সাইফুরের যত অপকর্ম (৫৯৮৯)‘তুরস্ককে আবার আর্মেনীয়দের ওপর গণহত্যা চালাতে দেয়া হবে না’ (৫৬২১)আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজান দ্বন্দ্ব: কোন দেশের সামরিক শক্তি কেমন? (৫৪৩৫)