১৫ আগস্ট ২০২০

পিরোজপুরে ধর্ষণের অভিযোগে ডাক্তার গ্রেফতার

-
24tkt

পিরোজপুরে ১৭ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে শাহ আলম (৫৫) নামে একজন চিকিৎসককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শাহ আলম পিরোজপুর ডায়াবেটিক সমিতির নিয়মিত চিকিৎসক। মেয়েটিকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য শুক্রবার পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, দরিদ্র পরিবারের সন্তান মেয়েটি চলতি বছর পিরোজপুর সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এসএসসি পাস করেছে। গত ১৭ জুন সে চিকিৎসক শাহ আলমের সদর রোডের নাজ সু স্টোরের দ্বিতীয়তলার ব্যক্তিগত চেম্বারে অফিস সহকারী পদে সাত হাজার টাকা বেতনে চাকরি নেয়। ঘটনার দিন ১ জুলাই বেলা ২টার দিকে চেম্বারে কেউ না থাকার সুযোগ নিয়ে শাহ আলম মেয়েটিকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় মেয়েটি শাহ আলমের বিবস্ত্র ছবি তোলার চেষ্টা করলে সে মেয়েটির মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে ভেঙে ফেলে। এ কারণে মেয়েটিকে ওই চিকিৎসক মারধর করে। পরে মেয়েটির মোবাইলের মূল্য বাবদ ইসলামী ব্যাংক পিরোজপুর শাখায় তার ব্যক্তিগত চেকের (০০৯৬৫৫২) মাধ্যমে ১০ হাজার টাকা প্রদান করে। মেয়েটি বাড়িতে গিয়ে তার পরিবার ও আত্মীয়স্বজনকে ঘটনার বিষয় জানালে তারা তাকে সদর থানায় নিয়ে আসে। বৃহস্পতিবার রাতে মেয়েটি বাদি হয়ে মামলা দয়ের করে।
সদর থানার ওসি নূরুল ইসলাম বাদল জানান, মেয়েটির অভিযোগ পাওয়ার পরে অভিযুক্ত ওই চিকিৎসককে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।


আরো সংবাদ